ছেলেমেয়ের সঙ্গে কাটছে নায়িকা শিল্পীর ঈদ

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:২৯ পিএম, ০১ আগস্ট ২০২০

নব্বই দশকের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা শিল্পী। ২০০০ সালের পর তাকে আর দেখা যায়নি চলচ্চিত্রে। প্রায় ২০ বছর ধরে তার দেখা মেলে কেবল বিএফডিসি বা চলচ্চিত্রের ঘরোয়া অনুষ্ঠানগুলোতে। সিনেমায় নেই, তবে তাকে নিয়ে এখনো আগ্রহ আছে সিনেমার দর্শকের।

কেমন কাটছে এ নায়িকার ঈদ? শিল্পী জানান, ছেলে সানাদ ইকবাল ও মেয়ে এঞ্জেলিনা ইকবালকে সঙ্গে নিয়ে ঘরে বসেই এবারের ঈদ কাটাচ্ছেন তিনি। শিল্পী বলেন, 'অনেক কিছুই তো প্ল্যান থাকে ঈদে কিন্তু করোনার কারণে এবার সবই ভেস্তে গেল। ঘর থেকে বের হচ্ছি না৷ কোরবানি দিয়েছি ঢাকার বাইরে এক আত্মীয়ের বাড়িতে৷ সেখান থেকে মাংস এলে বন্টন করে নিজের ভাগেরটুকু গুছিয়ে রাখবো। প্রথমে শুনেছিলাম ঢাকায় কোরবানি করার অনেক ঝামেলা হবে। কিন্তু এখন দেখছি সবাই সবার বাড়িতে কোরবানি দিতে পারছেন। আমি শুধু শুধু কষ্ট পোহালাম।'

এ নায়িকা আরও বলেন, 'ছেলেমেয়েকে নিয়ে সময় কাটাচ্ছি। তাদের বাবা থাকে দেশের বাইরে৷ তার সঙ্গে কথা বলেছি সবাই একসাথে৷ নিজ হাতে রান্না করবো পরিবারের সবার জন্য। আপাতত ঈদ এভাবেই কাটছে।'

এদিকে গেল কয়েক বছর ধরে শিল্পী বিএফডিসিতে সরব।তাকে দেখা গেছে আর্থিক সহায়তাসহ নানাভাবে চলচ্চিত্র শিল্পীদের পাশে দাঁড়াতে।

বিশেষ করে বছরের দুই ঈদে তিনি দুই হাত খুলে দান করেন তার প্রিয় আঙিনার অসহায় মানুষদের জন্য। সেই ধারাবাহিকতায় এবারের ঈদে ১ লাখ টাকার আর্থিক সাহায্য দিয়েছেন তিনি। নায়িকা শিল্পী জাগো নিউজকে জানান, তিনি আর্থিকভাবে অসচ্ছল শিল্পীদের জন্য ১ লাখ টাকা শিল্পী সমিতিতে অনুদান হিসেবে দিয়েছেন।

'প্রিয়জন' সিনেমার এ নায়িকা বলেন, 'আমি চলচ্চিত্রের মানুষ। এখানে কাজ করে জনপ্রিয়তা ও সম্মান পেয়েছি। নানা কারণে এখন আর অভিনয় করা হয় না। তবে এখানকার সবকিছুর প্রতি, এখানকার মানুষের প্রতি দুর্বলতা সবসময়ই কাজ করে। ভালো লাগে চলচ্চিত্রের মানুষদের জন্য কিছু করতে পারলে। এতদিন নিজেই চলচ্চিত্রের শিল্পী ও কলাকুশলীদের সাহায্য করতাম। গেল কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন সংগঠনগুলোর মাধ্যমে করছি। করোনার এই দুর্দিনে চলচ্চিত্রের যেসব শিল্পী ও কলাকুশলীরা অসহায় দিন যাপন করছেন আশা করি আমার ছোট্ট এই অনুদান তাদের কিছুটা হলেও উপকারে আসবে।'

প্রসঙ্গত, আওলাদ হোসেন চাকলাদার পরিচালিত ‘নাগ নর্তকী’ ছবি দিয়ে চলচ্চিত্রে নাম লেখান শিল্পী ১৯৯৪ সালে। তবে তার প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা হলো ১৯৯৫ সালে আমিন খানের বিপরীতে ‘বাংলার কমান্ডো’। এরপর নায়করাজ রাজ্জাকের পরিচালনায় ‘বাবা কেন চাকর’ ছবির মধ্য দিয়ে প্রথম আলোচনায় আসেন এই অভিনেত্রী।

এক এক করে আমিন খান, বাপ্পারাজ, মান্না, রিয়াজ, রুবেলসহ বেশ কজন জনপ্রিয় নায়কদের সঙ্গে জুটি বেঁধে সফল সিনেমা উপহার দিয়েছেন। অমর নায়ক সালমান শাহের সঙ্গেও একটি সিনেমায় কাজ করেছিলেন শিল্পী। ‘প্রিয়জন’ নামের সেই ছবিটি এ নায়িকার ক্যারিয়ারে অনন্য এক পালক যোগ করেছে।

শিল্পী অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত সর্বশেষ চলচ্চিত্র দুটি হচ্ছে—নায়করাজ রাজ্জাকের ‘প্রেমের নাম বেদনা’ এবং দেওয়ান নজরুলের ‘সুজন বন্ধু’।

এলএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]