মান্না ফাউন্ডেশন নিয়ে চলচ্চিত্র তারকারা


প্রকাশিত: ১০:৩১ এএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৫

ঢাকাই ছবির পর্দা কাঁপানো নায়ক ছিলেন প্রয়াত চলচ্চিত্র অভিনেতা মান্না। খেটে খাওয়া মানুষের নায়কি ছিলেন তিনি। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত উপহার দিয়ে গেছেন অসংখ্য ব্যবসা সফল ছবি।

এই অভিনেতার অকাল প্রয়াণে যে ক্ষতি হয়েছিলো চলচ্চিত্র শিল্পের তা আজও কাটিয়ে উঠতে পারেনি বিএফডিসি। মান্নান মৃত্যুর পর তার পরিবার মান্না ফাউন্ডেশন নামে একটি সংগঠন প্রতিষ্ঠিত করে সমাজসেবা ও মানবকল্যানে কাজ করে যাচ্ছে। শুরু থেকে এর চেয়ারপারসন হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন মান্নার স্ত্রী শেলী মান্না। সময়ের কালস্রোতে সংগঠনটির কর্মপরিধি বেড়েছ।

মান্না ফাউন্ডেশনের সঙ্গে এবার একাত্মতা ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। এ উপলক্ষে গেল বুধবার, ২ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশানের একটি রেস্তোঁরায় শেলী মান্নার আহ্বানে মত বিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন শিল্পী সমিতির নেতাকর্মীরা।

সেখানেই আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দেয়া হয়, এখন থেকে মান্না ফাউন্ডেশনের কর্মকাণ্ডের সঙ্গী হবে পাশে থাকবে শিল্পী সমিতি। সেখানে বলা হয়, আগামী বছরের প্রথম দিন অর্থাৎ ১ জানুয়ারি একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এর ঘোষণা দেওয়া হবে।

সভায় শিল্পী সমিতির সভাপতি শাকিব খান ছাড়া এক ঝাঁক তারকারা উপস্থিত ছিলেন। তাদের মধ্যে চিত্রনায়ক রিয়াজ, শাবনূর, ওমর সানি, মৌসুমী, পপি, অমিত হাসান, সাইমন ও জায়েদ খানের উল্লেখযোগ্য।

FDC
প্রসঙ্গত, আশির দশকে এফডিসির নতুন মুখের সন্ধানের মাধ্যমে বাংলা সিনেমায় আগমন ঘটে টাঙ্গাইলের এস এম আসলাম তালুকদারের। রুপালি পর্দায় পরিচিত হন মান্না নামে। ১৯৮৫ সালে নির্মিত আজহারুল ইসলাম পরিচালিত ‘তওবা’ মান্নার প্রথম মুভি। তবে প্রথম মুক্তি পায় কাজী হায়াতের ‘পাগলী’ মুভিটি।

নায়ক হিসেবে তার উত্থান ৯০ দশকের শুরুতে এসে। ওই সময় কাজী হায়াত পরিচালিত ‘দাঙ্গা’, ‘ত্রাস’, ‘চাঁদাবাজ’ নামে তিনটি হিট মুভির মাধ্যমে বাংলাদেশের সিনেমা জগতে নিজের আসন পাকাপোক্ত করে নেন মান্না।

এরপর একে একে অনেক ব্যবসা-সফল ছবিতে অভিনয় করেন মান্না। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- সিপাহী, আম্মাজান, স্বামী-স্ত্রীর যুদ্ধ, আব্বাজান, বর্তমান, কাশেম-মালার প্রেম, শান্ত কেন মাস্তান, প্রেম দিওয়ানা, তেজী, রাজধানী, দুই বধূ এক স্বামী, ক্ষমতার গরম ইত্যাদি।

এর মধ্যে আম্মাজান বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে অন্যতম ব্যবসা-সফল ছবি। অভিনয়ের পাশাপাশি চলচ্চিত্র প্রযোজনা করাও শুরু করেছিলেন তিনি। তার প্রযোজিত প্রথম মুভি লুটতরাজ। তার প্রযোজনায় উল্লেখযোগ্য ছবির মধ্যে রয়েছে মনের সাথে যুদ্ধ, স্বামী-স্ত্রীর যুদ্ধ, লাল বাদশা, আব্বাজান ইত্যাদি।

এলএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]