ফেসবুকে ঝড় তুলেছে ছোট্ট সাম্যর গান

সালাহ উদ্দিন মাহমুদ
সালাহ উদ্দিন মাহমুদ সালাহ উদ্দিন মাহমুদ , লেখক ও সাংবাদিক
প্রকাশিত: ১২:৫৯ পিএম, ৩০ এপ্রিল ২০১৯

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে ছোট্ট একটি মেয়ের সুললিত কণ্ঠে গাওয়া গান। ‘মোর ঘুম ঘোরে এলে মনোহর’, ‘ভ্রমর কইও গিয়া’, ‘সাত ভাই চম্পা জাগো’, ‘ও কি ও বন্ধু কাজল ভ্রমরা’, ‘রোদ টলমল মেঘনা নদীর কাছে’, ‘তোমরা কুঞ্জ সাজাও গো’সহ বেশকিছু গান ইতোমধ্যেই ঘুরছে বিভিন্নজনের টাইমলাইনে। ছোট্ট এই মেয়েটির গান শুনে মুগ্ধ হয়েছেন সবাই। জানতে চেয়েছেন ওর নাম-পরিচয়।

অবশেষে জামালপুর জেলার মেলান্দহ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা তামিম ইয়ামীনের মাধ্যমে জানা গেল মেয়েটির পরিচয়। তিনিই বিভিন্ন সময় তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভ করে মেয়েটির গানগুলো পৌঁছে দেন ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কাছে।

samyo-in

মেলান্দহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তামিম ইয়ামীন বলেন, ‘সারা দেশের কণ্ঠ হয়ে বেজে ওঠা মেয়েটির নাম সাম্য। পুরো নাম লিউনা তাসনীম সাম্য। ওকে দেখতে চাইলে আপনাকে আসতে হবে জামালপুর জেলার মেলান্দহ উপজেলায়। আর যদি কষ্ট করে এতদূর না আসতে চান, তবে কিছুদিন অপেক্ষা করুন। সে আপনাদের হৃদয়ের অন্দরে পৌঁছে যাবে। মূলত তার গান দিয়ে।’

জানা যায়, মা আরজুমান মোস্তারি ও বাবা আজমত আলীর ২য় সন্তান সাম্য। মেলান্দহ উপজেলা সমাজসেবা অফিসের অফিস সহকারী হিসেবে কর্মরত আছেন আজমত আলী। উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির শিক্ষার্থী সাম্য গান, ছবি আঁকা ও নাচের পাশাপাশি সাম্য পড়াশোনাও করে এবং খুব ভালোভাবে করে। সে উত্তর মেলান্দহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণির শিক্ষার্থী।

তামিম ইয়ামীন বলেন, ‘গানটির লাইভ দেখে সাতক্ষীরা সদরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমার ব্যাচমেট দেবাশীষ চৌধুরী ফরোয়ার্ড করেন জুবায়ের আল মাহমুদ রাসেলকে। তিনি তার অ্যাকাউন্ট থেকে আপলোড করার পর ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়তে থাকে। ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি তাদের প্রতি।’

samyo-in

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ‘মোর ঘুম ঘোরে এলে মনোহর’ গানটি একটি প্রতিযোগিতায় গাওয়ার জন্য সিলেক্ট করে দিয়েছিলেন সোমেশ্বরী নদী। ধন্যবাদ তাকেও।’

সাম্যকে এতো কাছে পাওয়ার অন্যতম কারণ সাম্যর পাশে বসে থাকা ইউএনও’র মেয়ে। তাদের একমাত্র মেয়ে লিলিথ। সাম্য ও লিলিথ বন্ধু হওয়ায় সারাদিন একসঙ্গেই থাকে। এ সুযোগেই ওকে কাছে পাওয়া যায়। ফলে অনেকেই ইউএনওকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। কেউ কেউ তাকে জিজ্ঞাসা করেছেন, সাম্য তার মেয়ে কি-না?

samyo-in

ইউএনও তামিম ইয়ামীন বলেন, ‘নিজের অজান্তে সবাইকে বিভ্রান্ত করার জন্য দুঃখিত। তবে কী, সাম্য আর আমার মেয়ে একসাথে খেলে। তারা একসাথে গায়, আঁকে, নাচে, পাঠশালায় যায়। সে কি আমার মেয়ে নয়! সাম্যর জন্য অনেক ভালোবাসা।’

শুনুন সাম্যর লাইভ গান-

এসইউ/পিআর