যেভাবে অসংখ্য মানুষের ভাগ্য বদলেছেন হৃদয়

সাজেদুর আবেদীন শান্ত
সাজেদুর আবেদীন শান্ত সাজেদুর আবেদীন শান্ত , ফিচার লেখক
প্রকাশিত: ১১:৪৫ এএম, ০৩ আগস্ট ২০২১

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে একটি জনপ্রিয় নাম ‘স্বপ্ন ছোঁয়া টিভি’। যেখানে প্রতিনিয়ত ঘটে যাওয়া সমাজের বিভিন্ন ধরণের অসঙ্গতির চিত্রগুলোকে ভিডিওচিত্রের মাধ্যমে তুলে ধরা হয়।

এর ফলে বদলে গেছে কত শত মানুষের ভাগ্য, কান্না মুছে হাসি ফিরেছে অসংখ্য পরিবারের। বিশেষ করে অসহায় মানুষের চিকিৎসা সেবা থেকে শুরু করে যেকোনো বিপদে সহায়তা করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি।

এ ছাড়াও সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে সামাজিক নানা কর্মকাণ্ডে যুক্ত আছেন তারা। জানা যায়, হৃদয় হাসান নামে ২৬ বছর বয়সী এক তরুণ ২০১৭ সালের জুন মাসে চালু করেছিলেন স্বপ্ন ছোঁয়া টিভি’র ইউটিউব চ্যানেল।

jagonews24

ঢাকার যাত্রাবাড়ির বাসিন্দা হৃদয় হাসান। পরবর্তীতে একই নামে ফেসবুক পেজ খুলে অসহায় মানুষদের নিয়ে ভিডিও তৈরি করতে থাকতে তিনি। ফলে খুব অল্প দিনের মধ্যেই তরুণ উদ্যোক্তা হিসেবে সফলতার মুখ দেখেন এই হৃদয় হাসান।

বর্তমানে ‘স্বপ্ন ছোঁয়া টিভি’ ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা ৮ লাখেরও বেশি। আর ফেসবুক পেজটি ফলো করেন ৩০ লাখ মানুষ।

jagonews24

‘স্বপ্ন ছোঁয়া টিভি’ প্রতিষ্ঠাতা হৃদয় হাসান জাগো নিউজকে বলেন, ‘প্রায় প্রতিদিনই অসহায় মানুষদের নিয়ে কাজ করে থাকি আমরা। তাদের দুঃখ কষ্টগুলোকে মানুষকে জানোনোর পাশাপাশি কেউ অসুস্থ থাকলে সেই বিষয়টিও ভিডিও’র মাধ্যমে তুলে ধরি থাকি।’

তিনি আরও জানান, ‘সমাজের বিত্তবানরা আমাদের এই ভিডিও দেখে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ান। এ ছাড়াও বিভিন্ন সময়ে নিজের চেষ্টায় যতটুকু সম্ভব অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়েছি আমি। এখন পর্যন্ত আমি আমার প্রতিষ্ঠান স্বপ্ন ছোয়া টিভির ভিডিও’র মাধ্যমে অসংখ্য মানুষের ভাগ্য বদলে গেছে’।

জীবনে মানুষের জন্য কিছু করাকে আনন্দের মনে করেন হৃদয় হাসান। ছোটবেলা থেকেই কারো কোনো বিপদ হলে কিংবা কোনো সমস্যা দেখলে তাদের পাশে থাকার চেষ্টা করেন। এই কাজ তিনি জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত অব্যাহত রাখতে চান।

jagonews24

হৃদয় হাসান বলেন, ‘আমি নিজের সততা, একাগ্রতা, কাজ এবং পরিশ্রম দিয়ে সফল হয়ে উঠেছি। বর্তমানে ‘স্বপ্ন ছোঁয়া টিভি’ লাখ লাখ মানুষের ভালোবাসা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে।’

লেখক: ফিচার লেখক ও গণমাধ্যমকর্মী

জেএমএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]