নবজাতকদের চিকিৎসায় সরঞ্জাম দিলো কানাডার দুটি সংগঠন

ঢামেক প্রতিবেদক
ঢামেক প্রতিবেদক ঢামেক প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:১২ পিএম, ১৭ মে ২০১৮

নবজাতক শিশুর উন্নত চিকিৎসা ও পরিচর্যার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালকে নতুন একটি বাবল কন্টিনিয়াজ পজিটিভ এয়ারওয়ে পেশার (সিপিএপি) মেশিন ও ৭টি সিরিঞ্জ পাম্প দিয়েছে কানাডার দুটি সংগঠন হিউম্যান কনসার্ন ইন্টারন্যাশনাল (এইচসিআই) এবং কেয়ার ফর ওম্যান অ্যান্ড চিলড্রেন (সিডব্লিউসি)

এসব সরঞ্জামের বাজার মূল্য প্রায় ১০ লাখ ৪৫ হাজার টাকা। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে ঢামেকের সভা কক্ষে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিনের হাতে সরঞ্জামগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে দেন 'সুরভি' নামে একটি উন্নয়ন সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

অনুষ্ঠানে সুরভি’র নির্বাহী পরিচালক মো. আবু তাহের বলেন, সুরভি শিশুদের নিয়ে কাজ করে। শ্রমজীবী শিশুদের শিক্ষা, চিকিৎসার ব্যবস্থা করে দেয়াই সংগঠনের মূল উদ্দেশ্য।

অনুষ্ঠানে ঢামেকের নবজাতক বিভাগের অধ্যাপক ডা. তোফাজ্জল হোসেন বলেন, হাসপাতালে ১২টি সিরিঞ্জ পাম্প ছিল। এখন এই ৭টি মিলিয়ে মোট ১৯টি সিরিঞ্জ পাম্প হলো। তবে হাসপাতালের দরকার ৩০-৩৫টি। এর মাধ্যমে নিখুঁতভাবে নবজাতকদের ইনজেকশন দেয়া যাবে।

তিনি জানান, ঢামেকের সিপিএপি মেশিন এই নিয়ে মোট ৩টি। এর মাধ্যমে শ্বাসকষ্ট জটিলতায় আক্রান্ত নবজাতককে আরও সুন্দর ও নিপুণভাবে শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যবস্থা করা যাবে। ফলে বাংলাদেশের নবজাতকদের চিকিৎসার মান এগিয়ে যাবে।

ঢামেকের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন জানান, নতুন এতগুলো মেশিন পেয়ে আমি অনেক আনন্দিত। আমরা সবাই চাই মা ও শিশুরা নিরাপদে থাকুক ও চিকিৎসা পাক। শিশুদের চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার অন্য সবার থেকে বেশি। আর এ চিকিৎসায় এই সরঞ্জামগুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। ফলে অনেক শিশুর জীবন বাঁচানো সহজ হবে। এজন্য সুরভির সব কর্মকর্তাকে ধন্যবাদ জানিয়ে এ ধরনের সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়ার জন্য সবাইকে আহ্বান জানান তিনি।

এসএইচ/এমআরএম/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :