‘এক-তৃতীয়াংশ রোগী ফুসফুসের বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৫৬ পিএম, ২৪ মার্চ ২০১৯

চেস্ট অ্যান্ড হার্ট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. মির্জা মোহাম্মদ হিরন বলেছেন, ‘দেশের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ রোগী ফুসফুসের বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত। শুধুমাত্র অ্যাজমাতে ভুগছেন প্রায় ৭০ লাখ মানুষ।’

রোববার সকালে রাজধানীতে বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস, ৩৯তম বার্ষিক সাধারণ সভা এবং বৈজ্ঞানিক অধিবেশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব বলেন মোহাম্মদ হিরন। অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মুরাদ হাসান।

হিরন আরও বলেন, ‘বায়ু দূষণের কারণে প্রথমে আক্রান্ত হয় ফুসফুস ও শ্বাসনালী। অব্যাহত বায়ু দূষণে অ্যাজমা, অ্যালার্জি, শ্বাসনালী ও ফুসফুসে নিউমোনিয়া সংক্রমণ, সিওপিডি ও ফুসফুসের ক্যান্সারসহ বিভিন্ন কার্ডিওভাসকুলার রোগও বেড়েই চলেছে। পরিবেশ দূষণ, জীবনযাত্রা প্রণালী, খাদ্যাভাব ইত্যাদির কারণে বক্ষব্যাধি ও হৃদরোগ আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার জন্য এক নতুন চ্যালেঞ্জ।’

অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ডা. মো. আবু রায়হান বলেন, ‘২৪ মার্চ বিশ্ব যক্ষ্মা দিবসে নিউজ লেটার, পোস্টার ও সায়েন্টিফিক সেমিনারের আয়োজন করে থাকি। এ ছাড়া বিশ্ব সিওপিডি দিবসে দ্য চেস্ট অ্যান্ড হার্ট অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ থেকে পালন করে থাকি। এ ছাড়া বিভিন্ন জেলা শহরে প্রতি বছর হেলথ ক্যাম্প ও সেমিনারের আয়োজন করা হয়ে থাকে।’

এ সময় অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি অধ্যাপক ডা. বিশ্বাস আখতার হোসেন বলেন, ‘১৯৫৫ সাল স্থাপতি ঢাকার মহাখালীর এই হাসপাতালটি দেশের বক্ষব্যাধি আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় ক্ষেত্রে একমাত্র জাতীয় প্রতিষ্ঠান। সেই সঙ্গে একই চত্বরে জাতীয় অ্যাজমা সেন্টারের কার্যক্রম পুরো মাত্রায় চলছে।’

চেস্ট অ্যান্ড হার্ট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন সংসদ সদস্য ডা. মো. ইউনুস আলী সরকার, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন এবং এর মহাসচিব ডা. মো. ইহ্তেশামুল হক চৌধুরী।

পিডি/এমআরএম/জেআইএম