চিকিৎসা পেশায় ‘দায়িত্বশীলতা’র ওপর গুরুত্বারোপ

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:২৯ পিএম, ১৭ এপ্রিল ২০১৯

চিকিৎসা পেশায় দায়িত্বশীলতা ও নৈতিকতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। বুধবার (১৭ এপ্রিল) বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের এ ব্লকের অডিটোরিয়ামে ‘চিকিৎসাসেবায় নৈতিকতা’ বিষয়ক এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান। মুখ্য আলোচক ছিলেন বিএসএমএমইউয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মাহমুদ হাসান। সভাপতিত্ব করেন উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া।

মন্ত্রী বলেন, চিকিৎসক সমাজের আরও উজ্জ্বল ভাবমূর্তি গড়ে তুলতে রোগীদের আন্তরিকতার সঙ্গে সেবা এবং ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্ব ও বাস্তবমুখী পদক্ষেপের কারণে স্বাস্থ্যখাত অনেক দূর এগিয়ে গেছে। মেডিকেল কলেজসহ স্বাস্থ্যসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশের আট বিভাগে একটি করে কিডনি এবং ক্যান্সার হাসপাতাল গড়ে তোলা হবে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শয্যা সংখ্যা পাঁচ হাজারে উন্নীত করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান বলেন, মানবতাবোধ থেকেই রোগীদের আপনজন মনে করে সেবা দিয়ে হাসি ফোটাতে হবে। চিকিৎসকদের মানবতার সেবায় উৎসর্গ করতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, রোগীদের যথাযথ সময় দিতে হবে। চিকিৎসকের প্রতি রোগীদের যথেষ্ট আত্মবিশ্বাস যাতে গড়ে ওঠে সেজন্য চিকিৎসকদের সজাগ থাকতে হবে।

সভায় আলোচক ছিলেন স্বাস্থ্য সচিব (স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ) জি. এম. সালেহ উদ্দিন, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ডা. মো. ইহতেশামুল হক চৌধুরী, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. এম এ আজিজ।

এমইউ/এএইচ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :