মক্কায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর এবার বিস্ফোরক ড্রোন হামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:২৪ পিএম, ২১ মে ২০১৯

সৌদি আরবের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের নাজরান প্রদেশে দেশটির বেসামরিক স্থাপনায় বিস্ফোরক বোঝাই ড্রোন হামলা হয়েছে। পবিত্র নগরী মক্কা এবং জেদ্দায় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলার একদিন পর মঙ্গলবার এই হামলা হয়েছে বলে দাবি করেছে রিয়াদ।

মঙ্গলবার আরব জোট সমর্থিত ইয়েমেনের সরকার ওই হামলার খবর দিয়ে বলছে, নাজরানের ড্রোন হামলায় বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুথি জড়িত।

সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব জোটের মুখপাত্র তুর্কি আল-মালিকি ক্ষেপণাস্ত্র হামলার একদিন পর ড্রোন হামলার ঘটনায় একটি বিবৃতি দিয়েছেন। দেশটির সরকারি সংবাদসংস্থা সৌদি প্রেস অ্যাজেন্সি (এসপিএ) এক প্রতিবেদনে বলছে, বিবৃতিতে তুর্কি আল-মালিকি বলেছেন, গুরুত্বপূর্ণ বেসামরিক স্থাপনাকে টার্গেট করা হয়েছে।

আরও পড়ুন :মক্কা ও জেদ্দায় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

‘হুথি সমর্থিত ইরানের সন্ত্রাসী মিলিশিয়ারা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড অব্যাহত রেখেছে। বেসামরিক স্থাপনা টার্গেট করে আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা, স্থিতিশীলতা এমনকি বেসামরিক নাগরিক ও সব জাতীয়তাবাদের জন্য প্রকৃত হুমকি তৈরি করা হয়েছে।’

তবে বিস্ফোরক বোঝাই ড্রোন হামলার ঘটনায় কোনো হতাহত হয়েছে কিনা বিবৃতিতে সেব্যাপারে কোনো তথ্য জানানো হয়নি। হামলার ব্যাপারেও বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করেনি সৌদি কর্তৃপক্ষ।

সোমবার আল মালিকি বলেন, পবিত্র নগরী মক্কা এবং জেদ্দায় দু’টি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়েছে। তবে টার্গেটে আঘাত হানার আগেই সৌদি বিমান প্রতিরক্ষা বাহিনী গুলি চালিয়ে ক্ষেপণাস্ত্র দু’টি ভূপাতিত করেছে।

আরও পড়ুন : ইফতারে চাইলেন পানি, ট্রেতে খাবার দিলেন বিমান সেবিকা

ইয়েমেনের সাবেক প্রেসিডেন্ট আব্দ রাব্বু মনসুর আল-হাদি সমর্থিত সরকারকে ক্ষমতায় বসানোর লক্ষ্যে ২০১৫ সালের মাঝের দিকে দেশটির বিদ্রোহীগোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে হামলা শুরু সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব জোট।

সৌদি জোটের এই হামলা শুরুর পর থেকেই পাল্টা প্রতিশোধ হিসেবে ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা রিয়াদ-সহ সীমান্তবর্ন্তী শহরগুলোতে প্রতিনিয়ত ক্ষেপণাস্ত্র এবং ড্রোন হামলা চালিয়ে আসছে।

সূত্র : আরব নিউজ।

এসআইএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]