টার্গেট পূরণে ব্যর্থ হওয়ায় মেঝেতে হামাগুড়ি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:০১ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০২০

বিক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে ব্যর্থ হওয়ায় মেঝেতে হামাগুড়ি দিতে হচ্ছে কর্মকর্তাদের। এমন দৃশ্য দেখা গেছে একটি চীনা কোম্পানিতে। ওই কোম্পানিতে কর্মরত সব ব্যবস্থাপক এবং পরিচালককে প্রতিষ্ঠানটির কর্মচারীদের সামনেই হামাগুড়ি দিতে হয়েছে।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের হামাগুড়ি দেয়ার এই দৃশ্য ভাইরাল হয়েছে। মঙ্গলবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে, এই ঘটনা নিয়ে দেশটিতে চলছে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা।

ভাইরাল হওয়া একটি ফুটেজে দেখা গেছে, স্যুট-প্যান্ট পরা কর্মকর্তারা সারিবদ্ধভাবে একটি মঞ্চের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন। সেখান থেকে এক একজন নামছেন আর চার হাত-পায়ে হামাগুড়ি দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন।

ভিডিওটি চীনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় জিলিন প্রদেশের একটি রেস্তোরাঁ কোম্পানির বার্ষিক অনুষ্ঠানে ধারণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে। ওই ঘটনার ১৫টি ভিডিও ফুটেজ চীনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম উইবোতে প্রকাশ করেছেন এক ব্লগার। তিনি জানিয়েছেন, ফুটেজগুলো ওই প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী দাবি করা অজ্ঞাত এক ব্যক্তি তার কাছে পাঠিয়েছেন।

কথিত ওই কর্মচারী জানিয়েছেন, গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে বেঁধে দেয়া লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে ব্যর্থ হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তাদের সঙ্গে এমন আচরণ করা হয়েছে। সেদিন তারা তিনবার হামাগুড়ি দিয়ে ভেন্যুর চারপাশ ঘুরেছেন।

কর্মকর্তারা হামাগুড়ি দেয়ার সময় পাশের লাউড স্পিকারে ‘শপথ করছি, আমি দায়ী’ স্লোগান বাজানো হচ্ছিল। তবে ওই প্রতিষ্ঠানেরই আরেক কর্মী দাবি করেছেন, কর্মকর্তাদের জোর করে হামাগুড়ি দেয়ানো হয়নি। লক্ষ্যমাত্রা পূরণে ব্যর্থ হওয়ায় তারা স্বেচ্ছায় এই শাস্তি নিয়েছেন। তিনি জোর দিয়ে বলেন, ‘তারা নিজেদের ইচ্ছাতেই হামাগুড়ি দিয়েছেন। যদি না হতো, কে তাদের হামাগুড়ি দেয়াতে পারত?’ তবে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হঠাৎ কেন এমন খায়েশ হলো, সেটা বলতে পারেননি ওই ব্যক্তি।

ওই ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর উইবোতে শুরু হয়েছে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা। একজন মন্তব্য করেছেন যে, এসব কর্মকর্তাকে বাড়িতে বৃদ্ধ বাবা-মায়ের দেখাশোনা, সন্তানদের লালনপালন বা বন্ধকির ঋণ পরিশোধ করতে হচ্ছে। তারা এই মুহূর্তে চাকরি হারালে বড় বিপদে পড়বেন, এজন্যই এমন শাস্তি মাথা পেতে নিয়েছেন।

আরেকজন বলেছেন, এ ধরনের বার্ষিক অনুষ্ঠানগুলোতেই মানবতার অন্ধকার অংশটা দেখা যায়। কর্মক্ষেত্রে কঠোর শাস্তির ঘটনা অবশ্য চীনে এটাই প্রথম নয়। তবে কিছু ঘটনায় দেখা গেছে এগুলো মানুষের নজরে আসার জন্য করা হয়েছে। গত বছর দেশটির তেংঝৌ শহরেও একইভাবে হামাগুড়ি দেওয়ার ঘটনা ঘটেছিল।

সেসময় দাবি করা হয়েছিল, বিক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে না পারায় কর্মীদের শহরের রাস্তায় হামাগুড়ি দিতে বাধ্য করা হয়েছে। ওই ঘটনার ভিডিও দেশজুড়ে ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দেয়। কিন্তু পরে জানা যায়, সেটি ছিল মূলত জনসংযোগমূলক প্রচারের অংশ। পুলিশও জানিয়েছে যে, প্রতিষ্ঠানটি মানুষের নজরে আসার জন্যই পরিকল্পিতভাবে ওই ঘটনা ঘটিয়েছে। পরে অবশ্য এর জন্য ক্ষমাও চেয়েছে তারা।

কেএএ/টিটিএন/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]