প্লেনে টিভির পর্দা ঢেকে দেয়ায় সহযাত্রীর চুলে চুইংগাম লাগালেন তিনি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:১৯ পিএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০

প্লেন, বাস কিংবা অন্যান্য যানবাহনে আশপাশের যাত্রীদের কারণে নানা সমস্যায় পড়তে হয়। সহযাত্রীর দ্বারা এমনই এক সমস্যায় পড়েছেন উড়ন্ত প্লেনের এক যাত্রী। তবে তিনি এর প্রতিকারও করেছেন প্রতিশোধের ঢঙ্গে। সেটির ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, একটি ফ্লাইটে এক নারী আরেক নারীর চুলের সঙ্গে কিছু একটা করছেন। কী করছেন, তা বোঝার জন্য একটু জুম করা হয়। দেখা যায়, সামনের সিটের এক নারী তার বড় চুল এমনভাবে সিটের পেছনে ফেলে রেখেছেন এতে পেছনের সিটের যাত্রীর ফ্রন্ট সিটের টিভি মনিটরটা ঢেকে গেছে। সেই যাত্রীকে শাস্তি দিতেই এরপর বদ্ধপরিকর হয়ে ওঠেন অপরজন।

ভিডিওটিতে দেখা যায়, পেছনের সিটের যাত্রী সামনের সিটের যাত্রীর মেলে রাখা চুলে চুইংগাম লাগিয়ে দেন। এমনভাবে লাগানো হয় যাতে তা ওঠাতে কষ্ট হতে পারে। এখানেই শেষ নয়, এরপর ওই চুল কিছু একটা জিনিস দিয়ে অল্প অল্প করে কাটতে শুরু করেন তিনি। বিভিন্ন অংশ থেকে অল্প অল্প করে কেটে দেন। তার এই কীর্তি বিমানসেবিকা দেখলে তিনি কিছুক্ষণের জন্য এই কাজ বন্ধ করে দেন। কিন্তু পরে আবার শুরু করেন। এবার তিনি তার মুখে থাকা ললিপপ বের করে ওই চুলে আটকে দেন। এতেই শেষ নয়, ললিপপ ভালো করে আটকে রাখার জন্য তা কফির ক্যানেও চুবিয়ে দেন।

ভাবা যেতেই পারে, সামনের সিটের যাত্রী কিছু টের পাননি। না হলে তিনি প্রতিবাদ করতেন। কিন্তু না, ওই নারী চুলে টান অনুভব করায় বারবার মাথা এদিক-ওদিক নাড়াতে থাকেন, কিন্তু বুঝতে পারেননি তার চুলের সঙ্গে হচ্ছেটা কী! এরপর পেছনের সিটের যাত্রী আবারও সেই চুলে আরেকটা চুইংগাম লাগান এবং খানিকটা কেটে সব চুল সামনের সিটের দিকে ঘুরিয়ে দেন।

কিন্তু পেছনের যাত্রী বারবার চুলগুলো টিভির স্ক্রিন থেকে সরিয়ে দিলেও সামনের যাত্রী আবার তার চুল সরিয়ে স্ক্রিনের উপরেই রাখছিলেন। অবশেষে চুলে ললিপপ, চুইংগাম আটকে রয়েছে দেখতে পেয়ে ওয়াশরুমে ছুটে যান।

ভিডিওটি দেখে স্পষ্ট বোঝা যায়, টিভি স্ক্রিনে বারবার চুল রেখেছিলেন বলেই সামনের যাত্রীকে শাস্তি দিতে এ কাজ করেন পেছনের জন।

ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হতেই কমেন্ট করতে শুরু করেন নেটিজেনদের একাংশ। অনেকে পেছনের যাত্রীকে বাহবা জানিয়েছেন, কারণ কেউ বিরক্ত করলে এবং কথা না শুনলে এমন না করে উপায় থাকে না।

অনেকে আবার বলেছেন, এটা খুবই নোংরা কাজ। বিশেষ করে নিজের মুখের ললিপপ বের করে চুলে আটকে দেয়া খুবই খারাপ কাজ।

এফআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]