ট্রাম্পের মুসলিম বিদ্বেষী বক্তব্য ঘৃণায় পরিপূর্ণ


প্রকাশিত: ০৫:৫৫ এএম, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৫

শান্তিতে নোবেল বিজয়ী ও মানবাধিকারকর্মী মালালা ইউসুফজাই যুক্তরাষ্ট্রের রিপাবলিকান পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুসলিম বিদ্বেষী বক্তব্যের নিন্দা জানিয়েছেন। একই সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিমদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপে ট্রাম্পের বক্তব্যকে `ঘৃণায় পরিপূর্ণ` বলে মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের এই নারী অধিকারকর্মী। খবর বিবিসির।

ক্যালিফোর্নিয়ায় সম্প্রতি এক মুসলিম দম্পতির সশস্ত্র হামলার পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাম্প মুসলিমদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা দরকার বলে মন্তব্য করেন। এর পর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন ট্রাম্প। এমনকি নিজের দলের নেতাকর্মীরাও সমালোচনা করেন ট্রাম্পের।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী ম্যানুয়েল ভালস এবং ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন ট্রাম্পের বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন। হোয়াইট হাউজ ট্রাম্পের ওই বক্তব্যের কারণে মার্কিন নিরাপত্তাকে আরো ঝুঁকিপূর্ণ করে তুলবে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

trump

যুক্তরাজ্যের বার্মিংহামে মালালা বলেন, যদি সন্ত্রাসবাদ বন্ধ করাই উদ্দেশ্য হয়, তাহলে এর জন্য সব মুসলিমদের দোষারোপের চেষ্টা করা যাবে না, কারণ এর মাধ্যমে সন্ত্রাস বন্ধ হবে না। একই সঙ্গে তিনি বিদ্বেষমূলক কথাবার্তার ক্ষেত্রে গণমাধ্যম এবং রাজনীতিকদের আরো সচেতনতা অবলম্বন করা উচিত বলে মন্তব্য করেন।

পাকিস্তানের এই ক্ষুদে মানবাধিকার কর্মী ২০১২ সালে তালেবান জঙ্গিদের হামলার শিকার হন। সে সময় জঙ্গিরা মালালার মাথায় গুলি চালায়। এর পর বিশ্বব্যাপী ব্যাপক আলোড়ন তৈরি হয়। পরে শিক্ষা ও মানবাধিকার নিয়ে কাজ করায় ২০১৪ সালে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন তিনি।

মালালা পেশওয়ারে সেনাবাহিনী পরিচালিত একটি স্কুলে তালেবান জঙ্গিদের হামলায় ১৪০ জন নিহত হওয়ার বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানে ট্রাম্পের বক্তব্যের নিন্দা জানান। ওই ঘটনায় হতাহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে পাকিস্তানের বেশ কিছু প্রদেশে স্কুল ও কলেজ বন্ধ রয়েছে। এদিকে, সন্ত্রাসী হামলার বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানে দেশটির রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, সেনাপ্রধান ও দেশটির শীর্ষ কর্মকর্তারা পেশওয়ারের ওই স্কুলটিতে আজ আরো পরের দিকে যোগ দেবেন।

এসআইএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]