ইরাক যুদ্ধের প্রতিশোধ নিতে বুশকে হত্যার ষড়যন্ত্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০৯ এএম, ২৫ মে ২০২২
ছবি : সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশকে হত্যার একটি ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে মার্কিন বিচার বিভাগ। মঙ্গলবার (২৪ মে) তারা জানিয়েছে, ইরাক যুদ্ধের প্রতিশোধ নিতে শিহাব আহমেদ শিহাব নামে এক ইরাকি আশ্রিত নাগরিক বুশকে হত্যার ষড়যন্ত্র করছিলেন। খবর এএফপির।

ওহাইওর কলম্বাসে ফেডারেল আদালতে দায়ের করা এফবিআই’র হলফনামা অনুসারে, ৫২ বছর বয়সী শিহাব এফবিআই’র এক তথ্যদাতাকে (ইনফরমার) বলেছিলেন, বুশকে হত্যার পরিকল্পনা সফল করতে তিনি মেক্সিকো সীমান্ত দিয়ে অন্তত চার ইরাকিকে যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকাবেন। এদের মধ্যে দুজন ইরাকের সাবেক গোয়েন্দা এজেন্ট এবং বাকি দুজন আইএস অথবা ‘আল-রায়েদ’ নামে কাতারভিত্তিক একটি উগ্রবাদী গোষ্ঠীর সদস্য থাকবেন।

এফবিআই’র দাবি, শিহাব ওই তথ্যদাতাকে বলেছিলেন, ২০০৩ সালে ইরাক আক্রমণের নির্দেশ দেওয়ায় জর্জ বুশকে তিনি হত্যা করতে চান। কারণ তার বিশ্বাস, ইরাককে ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন করা ও দেশটির বহু নাগরিককে হত্যার জন্য দায়ী যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক এ প্রেসিডেন্ট।

শিহাব আরও জানিয়েছিলেন, তিনি আইএসের সাবেক প্রধান আবু বকর আল-বাগদাদির চাচাতো ভাই এবং ইরাক আক্রমণের পর অনেক মার্কিনিকে হত্যা করেছেন।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ভোরে শিহাবকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে অভিবাসন অপরাধ এবং একজন সাবেক মার্কিন কর্মকর্তাকে হত্যাচেষ্টায় সহায়তা ও প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।

বলা হয়েছে, কলম্বাসের বাসিন্দা শিহাব এফবিআইয়ের ওই তথ্যদাতাকে সঙ্গে নিয়ে জর্জ বুশের সঙ্গে সম্পর্কিত ডালাসের বিভিন্ন জায়গা পর্যবেক্ষণ করতে গিয়েছিলেন এবং কীভাবে বন্দুক, নিরাপত্তা বাহিনীর পোশাক ও গাড়ির বন্দোবস্ত করা যায়, তা নিয়ে আলোচনা করেছিলেন।

এছাড়া, শিহাব তাদের পরিবারের সদস্যদের অবৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে সহায়তা করতে এফবিআইর দ্বিতীয় এক তথ্যদাতাকে কয়েক হাজার ডলার দেওয়ার প্রস্তাব দেন বলেও অভিযোগ করা হয়েছে।

জানা গেছে, ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে ভিজিটর ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেন শিহাব। ২০২১ সালের মার্চ মাসে ভিসার মেয়াদ শেষ হলে রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন করেন তিনি।

কেএএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]