পশ্চিমবঙ্গে মোদী-মমতার পাল্টাপাল্টি জনসভা

পশ্চিমবঙ্গ প্রতিনিধি পশ্চিমবঙ্গ প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৬:০৪ পিএম, ১২ মে ২০২৪

ভারতে লোকসভা নির্বাচনের দ্বিতীয় দফা এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। সাত দফায় শেষ হবে নির্বাচন। তাই জোর প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে রাজনৈতিক দলগুলো। নির্বাচনী প্রচার চালাতে পশ্চিমবঙ্গে এসেছেন নরেন্দ্র মোদী। রোববার (১২ মে) একদিনে চারটি জনসভা করার কথা রয়েছে তার। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলের প্রধান মমতা ব্যানার্জীও এদিন নির্বাচনী জনসভা করছেন।

এক জনসভায় অংশ নিয়ে মোদী বলেন, একটা সময় ছিল পশ্চিমবঙ্গে বড় বড় বৈজ্ঞানিক তৈরি হতো। কিন্তু এখন তৃণমূল কংগ্রেস বোম বানানোর কুটির শিল্প তৈরি করেছে। শুধু তাই নয়, একটা সময় বাংলা বেআইনি অনুপ্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে লড়াই করতো। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেসের সরকারের সময় এই ধরনের বেআইনি অনুপ্রবেশকারীরা নির্ভয়ে চলাফেরা করছে, বেড়ে উঠছে। পশ্চিমবঙ্গে একটি নির্বাচনী জনসভায় যোগ দিয়ে এমন মন্তব্য করলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

এদিনের সভা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, কয়েক বছর আগে সিএজির রিপোর্ট এসেছে। ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে, তৃণমূল সরকার ২ লাখ ৩০ হাজার কোটি রুপির কোনো হিসাব দিতে পারেনি। এই পয়সা কীসে, কোথায় খরচ হয়েছে তার কোনো হিসাব নেই। এটা দুর্নীতি।

এই দল কত বড় দুর্নীতিবাজ তা বোঝা যায় শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি দেখে। এখানে টাকা নিয়ে পদ বিক্রি করা হয়েছে। ভুল ইন্টারভিউ নেওয়া হয়েছে। এই হাল বানিয়েছে রাজ্যের তৃণমূল সরকার।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ভাটপাড়ার জনসভা থেকে বলেন, বাংলার ভাই-বোন আপনাদের সতর্ক হতে হবে। ভোটব্যাংকের রাজনীতির জন্য তৃণমূল সিএএকে ভিলেন করে দিয়েছে। এই আইন নিপীড়িতদের নাগরিকত্ব দেওয়ার আইন। এতে কারও নাগরিকত্ব যাবে না। কিন্তু জাতীয় কংগ্রেস ও তৃণমূলের মতো দল মিথ্যা কথা বলছে এটা নিয়ে। এরা মতুয়া, নমঃশূদ্রদের নাগরিকত্ব দেওয়ারবিরোধী। এরা সিএএ আইন শেষ করতে চাইছে।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পাল্টা সভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন।

নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে হিন্দু ও মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষদের মধ্যে বিবেদ তৈরির অভিযোগ করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, দাঙ্গা দিয়ে শুরু হয়েছে আপনার জীবন। কত লোককে হত্যা করেছেন। আজও তাদের আত্মা কেঁদে বেড়াচ্ছে। আর আপনি বলছেন আমি তপশিলি জাতিদের কোটা কেটে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষদের দেবো। আপনার মতো বেশি রাজনৈতিক বুদ্ধি আমার নেই। আমার রাজনৈতিক বুদ্ধি খুব সীমিত। আর মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষেরা এ ধরনের আচরণ করে না, এটা মাথায় রাখবেন। মানুষকে সম্মান দিতে শিখুন।

তৃণমূল প্রধান আরও বলেন, কুৎসা দিয়ে, অপপ্রচার দিয়ে শুধু মিথ্যা কথা বলেন।টিভি, খবরের কাগজ, ইউটিউব যেখানেই যাবেন শুধু তাকেই দেখতে পাবেন এবং বাবুর জয়গান শুনতে পাবেন। মনে হচ্ছে দেশে যেন কেউ নেই।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে দেশ বিক্রির অভিযোগ তুলে বলেন, আজ মোদী দেশ বিক্রি করে দিয়েছেন, জাতি, ধর্ম, মায়ের সম্মান বিক্রি করে দিয়েছেন। নোটবন্দি করে রুপি লুট করেছেন। একটা বেকার যুবককেও চাকরি দেননি। চাকরিখেকো বাঘ দেখেছেন? উনি হচ্ছেন চাকরিখেকো বাঘ, সবার চাকরি খেয়ে নিচ্ছেন।

এদিনের জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা দাবি করেন, এবারের লোকসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদী হারছেন ও বিদায় নিচ্ছেন।

ডিডি/এমএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।