এমপি আনার হত্যা

জিহাদকে আরও ১৪ দিনের জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ

পশ্চিমবঙ্গ প্রতিনিধি পশ্চিমবঙ্গ প্রতিনিধি কলকাতা
প্রকাশিত: ০৭:৩৫ পিএম, ২১ জুন ২০২৪

ঝিনাইদহ-৪ আসনের এমপি আনোয়ারুল আজিম আনার হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত আসামি জিহাদ হাওলাদারকে ফের ১৪ দিনের জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। শুক্রবার (২১ জুন) উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বারাসাত জেলা ও দায়রা আদালতে এ রায় দেন বিচারপতি শুভঙ্কর বিশ্বাস।

শুক্রবার বারাসাত জেলা ও দায়রা আদালতে জিহাদকে সশরীরে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু জেল কর্তৃপক্ষের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণে গাড়ি না থাকায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জিহাদকে বিচারপতি শুভঙ্কর বিশ্বাসের এজলাসে হাজির করা হয়।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিচারপতি জিহাদের বক্তব্য শোনেন। সবকিছু শোনার পর বিচারপতি শুভঙ্কর বিশ্বাস জিহাদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে ফের ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন। পরবর্তী শুনানির দিন আগামী ৫ জুলাই ধার্য করা হয়েছে।

বারাসাত জেলা আদালতের আইনজীবী এ জামাল বলেন, জিহাদ হাওলাদারকে আজ সশরীরে হাজির হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পর্যাপ্ত গাড়ির অভাবে তাকে আদালতে আনা সম্ভব হয়নি। তাই এর বিকল্প হিসেবে যে পদ্ধতি চালু আছে, তা অবলম্বন করা হয়। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আসামির সঙ্গে কথা বলেন বিচারপতি।

জিহাদ হাওলাদারের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৬৪ (হত্যার উদ্দেশ্যে অপহরণ), ৩০২ (অপরাধমূলক নরহত্যা), ২০১ (তথ্য প্রমাণ লোপাট) ও ১২০ এর বি (অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র)- এই চার জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা দেওয়া হয়েছে।

চলতি বছরের ১৩ মে কলকাতার নিউটাউন এলাকার সঞ্জীবা গার্ডেনস আবাসনের একটি ফ্ল্যাটে হত্যার শিকার হন বাংলাদেশের ঝিনাইদহ-৪ আসনের এমপি আনোয়ারুল আজিম আনার। হত্যার ১৫ দিন পরে সেই আবাসনের সেপটিক ট্যাংক থেকে উদ্ধার করা হয় আনারের মরদেহের কিছু অংশ। যদিও এই অংশগুলো এমপি আনারেরই কিনা, তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

উদ্ধারকৃত এই মাংসের টুকরা পরীক্ষার জন্য এরই মধ্যে ভারতের সেন্ট্রাল ফরেনসিক সায়েন্স ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়েছে। প্রয়োজনে করা হবে ডিএনএ টেস্টও। আর এই সময়ের মধ্যে হাড় ও মাথার খুলি উদ্ধার করা গেলে এই খুনের তদন্ত গতি পাবে বলে দাবি তদন্তকারী কর্মকর্তাদের।

ডিডি/এসএএইচ

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।