টেন মিনিট স্কুলে ১৭ কোটি টাকার বিনিয়োগ

খালিদ সাইফুল্লাহ্
খালিদ সাইফুল্লাহ্ খালিদ সাইফুল্লাহ্ , ফিচার লেখক
প্রকাশিত: ১০:৪০ এএম, ১৬ জানুয়ারি ২০২২

সেকইয়া ক্যাপিটাল ইন্ডিয়ার ‘সার্জ’ প্রোগ্রামের আওতায় ১৭ কোটি টাকার বিদেশি বিনিয়োগ পেয়েছে বাংলাদেশের অনলাইন এডুকেশনাল প্ল্যাটফর্ম টেন মিনিট স্কুল। প্রথম বাংলাদেশি এড-টেক কোম্পানি হিসেবে টেন মিনিট স্কুল এ বিনিয়োগ পেয়েছে। এ বিনিয়োগ নতুন প্রোডাক্ট ও কন্টেন্ট তৈরি, প্রযুক্তিগত সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং প্রতিষ্ঠানের বিস্তারে ব্যবহৃত হবে।

বিনিয়োগ প্রসঙ্গে টেন মিনিট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা এবং পরিচালক আয়মান সাদিক বলেন, ‘২০২১ সালে টেন মিনিট স্কুল ব্যবসায়িকভাবে ১২ গুণ বড় হয়। আমাদের ইউজারদের কাছে টেন মিনিট স্কুল অ্যাপটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। সেকইয়া ক্যাপিটাল ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া এ বিনিয়োগ টেন মিনিট স্কুলের প্রোডাক্ট, টেকনোলজি, দক্ষ জনবল এবং কার্যক্রমের বিস্তার ঘটাতে সাহায্য করবে।’

তিনি বলেন, ‘আশা করি, আমরা নতুন বছরে এ বিনিয়োগের মাধ্যমে টেন মিনিট স্কুলের বিকাশ আরও ত্বরান্বিত করে আমাদের শিক্ষার্থীদের কাছে গুণগত শিক্ষা পৌঁছে দিতে পারব। এছাড়া মানসম্পন্ন কন্টেন্ট তৈরিতে এ বিনিয়োগ ভূমিকা রাখবে।’

২০২০ সালের শুরুর দিকে করোনা মহামারিতে দেশের স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম যখন থমকে যায়; তখন অনলাইন শিক্ষাব্যবস্থা নতুন করে জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করে। লকডাউনেও যাতে পড়াশোনা থেমে না থাকে এ চেষ্টায় নতুন নতুন কোর্স ও বই বের করে ই-লার্নিং প্রতিষ্ঠানগুলো। শুধু এ মহামারির সময় প্রায় ৯০ লাখ নতুন শিক্ষার্থী যুক্ত হয় টেন মিনিট স্কুলের সাথে। ১৭,০০০ নতুন ভিডিও লেকচার যুক্ত হয় তাদের শিক্ষা কার্যক্রমে।

শিক্ষার্থীদের কাছে ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতিকে আরও সহজলভ্য এবং সাশ্রয়ী করার লক্ষ্য নিয়ে ২০১৫ সালে আয়মান সাদিক ও আবদুল্লাহ আবইয়াদ রাইদের হাত ধরে টেন মিনিট স্কুলের যাত্রা শুরু হয়। ‘নেভার স্টপ লার্নিং’ মূলমন্ত্র নিয়ে শুরু হওয়া টেন মিনিট স্কুলের কার্যক্রম প্রথমে শুধু ভর্তিপরীক্ষা প্রস্তুতি কেন্দ্রীক হলেও এখন তা প্রসারিত হয়েছে। দেশব্যাপী ভালো মানের শিক্ষামূলক অনলাইন কন্টেন্ট পৌঁছানোর জন্য কাজ করছে টেন মিনিট স্কুল।

বর্তমানে এ লার্নিং অ্যাপটি ব্যবহার করছে ৩০ লাখেরও বেশি শিক্ষার্থী। পড়াশোনার পাশাপাশি স্পোকেন ইংলিশ, পাওয়ারপয়েন্ট, ফ্রিল্যান্সিং, ফেসবুক মার্কেটিং, কোরআন শিক্ষাসহ অনেক ধরনের কোর্স থাকার ফলে সাশ্রয়ী মূল্যে দক্ষতা বাড়ানোর লক্ষ্যে কাজ করছে টেন মিনিট স্কুল।

২০২২ সালের শুরুতে পঞ্চম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য লাইভ কোচিং ক্লাস, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্যে টেস্ট পেপার সলভ প্রোগ্রাম, ভর্তিপরীক্ষা ও বিসিএসের সম্পূর্ণ প্রস্তুতি কোর্স, তৃতীয়-দ্বাদশ শ্রেণির ইন্টার্যাক্টিভ অ্যাকাডেমিক বইয়ের পাশাপাশি ২৫টিরও বেশি স্কিল ডেভেলপমেন্ট কোর্স আনার পরিকল্পনা করছে প্রতিষ্ঠানটি।

এছাড়াও দক্ষ, উৎসাহী এবং পরিশ্রমী তরুণদের তাদের প্রোডাক্ট, ইঞ্জিনিয়ারিং, কন্টেন্ট এবং মার্কেটিং টিমে নেওয়ার জন্য খুঁজছে টেন মিনিট স্কুল।

এসইউ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]