প্রধান বিচারপতির ‘বিশেষ দৃষ্টি’ চান আইনজীবী সমিতি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:২১ পিএম, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৯:২৪ পিএম, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
ফাইল ছবি

পুলিশের গ্রেফতার ও নির্যাতন থেকে রক্ষার জন্য আগাম জামিনের ব্যাপারে ইতিবাচক মনোভাব দেখাতে প্রধান বিচারপতির ‘বিশেষ দৃষ্টি’ আশা করেছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন।

নবনিযুক্ত প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে রোববার দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সমিতির পক্ষ থেকে তার দেয়া বক্তব্যে তিনি এ আশা প্রকাশ করেন।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীন লিখিত বক্তব্যে বলেন, ঢালাওভাবে হাজার হাজার লোককে নির্বিচারে আসামি করে ক্ষমতাসীন দলের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের প্রচেষ্টা চলছে। সেক্ষেত্রে হাইকোর্ট বিভাগ অবশ্যই পুলিশের গ্রেফতার ও নির্যাতন থেকে রক্ষার জন্য আগাম জামিনের ব্যাপারে ইতিবাচক মনোভাব দেখাবেন বলে আমরা আশা করি। এ ব্যাপারে আপনার ‘বিশেষ দৃষ্টি’ থাকবে বলে আইনজীবী সমাজ প্রত্যাশা করে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি হিসেবে আপনার নিয়োগকে আমরা স্বাগত ও অভিনন্দন জানাচ্ছি। আপনি একসময় এ বারের একজন সম্মানিত সদস্য ছিলেন। এটা আমাদের গর্ব এবং আপনি আমাদেরই একজন। আপনার জন্ম এক ঐতিহ্যবাহী আইনজীবী পরিবারে।’

জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘দেশে আজ এক চরম রাজনৈতিক অস্থিরতা বিরাজমান। এ সুযোগে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কতিপয় সদস্য ক্ষমতাসীন দলের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করার জন্য ঢালাওভাবে রাজনৈতিক নেতাকর্মী ও নিরীহ মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যা এবং হয়রানিমূলক মামলা করছে। একেকটি মামলায় শত থেকে হাজারজনকে আসামি দেখানো হচ্ছে। আর গ্রেফতারের ভয় দেখিয়ে অবাধে গ্রেফতার বাণিজ্য চলছে। এ মিথ্যা এবং হয়রানিমূলক মামলা থেকে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতিও রক্ষা পায়নি। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও সম্পাদকের বিরুদ্ধেও রাজনৈতিক মামলা দিয়ে মানসম্মান ক্ষুণ্ন করছে, যা অতীতে আমরা কখনো দেখি নাই।’

প্রধান বিচারপতিকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরো বলেন, আপনার সামনে এখন চালেঞ্জ হচ্ছে দেশে আইনের শাসন, মানবাধিকার, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা এবং বিচার বিভাগে যে ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে তা পূরণ করা এবং বিচার বিভাগের প্রতি মানুষের আস্থা ফিরিয়ে আনা।

‘দলীয় রাজনীতির ঊর্ধ্বে থেকে মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে’ হাইকোর্টে বিচারক নিয়োগের জন্য একটি নীতিমালা প্রণয়নের দাবি জানান সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি।

জয়নুল আবেদীন বলেন, ১৯৯৭ সালে প্রণীত ম্যাপ এবং খসড়া প্ল্যান অনুযায়ী নির্ধারিত স্থানে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির বহুতল ভবন নির্মাণের জন্য জায়গা খালি করার ব্যবস্থা এবং নতুন বহুতল ভবন নির্মাণের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আপনার কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।

এফএইচ/জেডএ/জেআইএম