সুপ্রিম কোর্ট বারে বিএনপিপন্থীদের জয়

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:১২ এএম, ২৩ মার্চ ২০১৮

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ২০১৮-১৯ সেশনের নির্বাচনে ১৪টি পদের মধ্যে সভাপতি-সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণ ১০টি পদে জয় পেয়েছেন বিএনপি ও জামায়াত সমর্থিত আইনজীবীরা। গত ২০১৭-১৮ সেশনের মেয়াদেও এই দুইজন সভাপতি-সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

অন্যদিকে সহসম্পাদকসহ চারটি পদে জয় পেয়েছেন সরকার সমর্থক আইনজীবীরা। বিএনপির ও জামায়াতপন্থীদের ১০ জনের মধ্যে সহসভাপতি পদে গোলাম রহমান ভূঁইয়া জামায়াতে ইসলামির একমাত্র প্রার্থী ছিলেন।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির দু’দিনব্যাপী নির্বাচনের পর ভোট গণনা শেষে শুক্রবার সকালে নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক ফলাফল ঘোষণা করেছেন নির্বাচন উপ-কমিটির আহ্বায়ক সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ ওয়াই মসিউজ্জামান।

আইনজীবী সমিতির নতুন কমিটির সভাপতি পদে আবারও বিজয়ী হয়েছেন, বিএনপি ও জামায়াত সমর্থিত জাতীয়তাবাদী ঐক্য প্যানেল থেকে অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। যিনি বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা। তিনি ভোট পেয়েছেন ২ হাজার ৩৬৯টি। সভাপতি পদে জয়নুল আবেদীন ৫৪ ভোট বেশি পেয়ে আবারও বিজয়ী হয়েছেন।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের সরকার ও আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্যানেলের অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন। তিনি ভোট পেয়েছেন ২ হাজার ৩১৫টি। জয়নুল আবেদীন থেকে মাত্র ৫৪ ভোট কম পেয়ে পরাজিত হয়েছেন অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন। যিনি আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য।

বিএনপি ও জামায়াত সমর্থিত জাতীয়তাবাদী ঐক্য প্যানেল সম্পাদক পদে আবারও নির্বাচিত হয়েছেন ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন। তিনি ভোট পেয়েছেন ২ হাজার ৬১৬টি। সম্পাদক পদে ৪৪১ ভোট বেশি পেয়ে টানা ষষ্ঠ বারের মতো বিজয়ী হয়েছেন ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। যিনি বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ছিলেন বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের সরকার ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্যানেলের অ্যাডভোকেট এস কে মো. মোরসেদ। তিনি পেয়েছেন দুই হাজার ১৭৫ ভোট। এই পদে ৪৪১ ভোট কম পেয়ে পরাজিত হয়েছেন আইনজীবী শেখ মোহাম্মদ মোরশেদ।

বিএনপি সমর্থিত নীল প্যানেল থেকে সহ-সভাপতি পদে ড. মো. গোলাম রহমান ভূঁইয়া (জামায়াত ইসলামী ) ও এম. গোলাম মোস্তফা, কোষাধ্যক্ষ নাসরিন আক্তার, সহ-সম্পাদক কাজী জয়নুল আবেদীন, সদস্য পদে মাহফুজ বিন ইউসুফ, সাইফুর আলম মাহমুদ, মো. আহসান উল্লাহ ও মোহাম্মদ মেহদী হাসান বিজয়ী হয়েছেন।

অপরদিকে সাদা প্যানেল থেকে সহ-সম্পাদক পদে মো. আবদুর রাজ্জাক, সদস্য ব্যারিস্টার আশরাফুল হাদী, শাহানা পারভীন ও শেখ মোহাম্মদ মাজু মিয়া জয়লাভ করেছেন।

নির্বাচনে মোট ৪ হাজার ৮৬৫ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।

নির্বাচনের দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার ভোট শেষে রাত ১২টার পর তা গণনা শুরু হয়। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণা করা হয়।

নির্বাচন উপ-কমিটির আহ্বায়ক সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ ওয়াই মসিউজ্জামান জানান, আইনজীবী সমিতির গুরুত্বপূর্ণ এই দুটি পদসহ কার্যনির্বাহী কমিটির ১৪টি পদের মধ্যে ১০টি পদে জয় পেয়েছেন বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত আইনজীবীরা। অন্যদিকে একটি সহ-সম্পাদকসহ মোট ৪টি পদে জয় পেয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত আইনজীবীরা।

তিনি বলেন, গত ২১ ও ২২ মার্চ পর পর দুইদিনই সকাল ১০টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে এক ঘণ্টার বিরতি দিয়ে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলে। এরপর বৃহস্পতিবার রাত থেকে ভোট গণনা শুরু হয়ে শুক্রবার সকালে গণনা শেষ হয়।

এবারের নির্বাচনে মোট ভোটার ছিলেন ৬১৫২ জন আইনজীবী। তবে ভোট প্রদান করেন ৪৮৬৫ জন। নির্বাচনে ১৪টি পদের বিপরীতে এবার মোট প্রার্থী হয়েছিলেন ৩৩ জন।

নির্বাচনে যথারীতি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন সরকার সমর্থক এবং বিএনপি সমর্থক আইনজীবীরা। ১৪টি পদের বিপরীতে লড়েছেন মোট ৩৩ প্রার্থী। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির ১৪ পদের মধ্যে ৭টি সম্পাদকীয় ও ৭টি নির্বাহী সদস্যের পদ রয়েছে। এসব পদের বিপরীতে সরকার সমর্থিত আওয়ামী লীগের বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ এবং বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেল ছাড়াও আলাদা পাঁচজন মিলে মোট ৩৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি প্যানেল ছাড়াও স্বতন্ত্রভাবে সভাপতি পদে দুইজন এবং সহ-সভাপতি, সম্পাদক ও সদস্য পদে একজন করে প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।

এফএইচ/এনএফ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :