এএসপি স্ত্রীর যৌতুক মামলায় ঢাবি শিক্ষক স্বামীর বিচার শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:১৯ পিএম, ২৪ মার্চ ২০১৯

সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) স্ত্রীর কাছে যৌতুক চেয়ে নির্যাতন করার অভিযোগে স্বামী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (আইবিএ) সহকারী অধ্যাপক খালেদ মাহমুদসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন ট্রাইব্যুনাল। অভিযোগ গঠনের ফলে মামলায় তাদের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু হলো।

রোববার (২৪ মার্চ) ঢাকার ৯ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক শরীফ উদ্দিন আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য আগামী ১ এপ্রিল দিন ধার্য করেন ট্রাইব্যুনাল।

মামলায় অপর চার আসামি হলেন- খালেদ মাহমুদের বাবা মোমতাজ আলী শেখ, মা মাহমুদা সুলতানা, ভাই মাজিদ মাহমুদ ও শারমীন সুলতানা।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, আসামি খালেদ মাহমুদের সঙ্গে ২০১২ সালের ১৬ এপ্রিল র্যাবের সাবেক মহাপরিচালক মোখলেছুর রহমানের মেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) নাজিজা রহমানের বিয়ে হয়। বিয়ের পর ৫ লাখ টাকা যৌতুক দেয়া হয়। পরে সে আরও ৫০ ভরি স্বর্ণ এবং একটি ফ্ল্যাট লিখে দিতে বলে। যা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় ২০১৮ সালের ২ ও ৯ নভেম্বর ভাটারা থানাধীন বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার একটি বাসায় তাকে মানসিক নির্যাতন করা হয় এবং মারধর করা হয়।

ওই ঘটনায় ২০১৮ সালের ২২ নভেম্বর নাজিজা রহমান রাজধানীর ভাটারা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে ওই বছরের ১৯ ডিসেম্বর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) ইন্সপেক্টর মোহাম্মাদ জুয়েল মিয়া আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

জেএ/আরএস/পিআর