বাসায় গৃহকর্মীর মরদেহ : শিক্ষিকার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ১২ মে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৪৩ পিএম, ১১ এপ্রিল ২০২১

রাজধানীর পিলখানায় বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের একটি আবাসিক ভবন থেকে লাইলি আক্তার (১৬) নামের এক গৃহকর্মীর মরদেহ উদ্ধার ঘটনায় করা মামলার ওই কলেজের শিক্ষিকা ফারজানা ইসলামের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ১২ মে দিন ধার্য করেছেন আদালত।

আজ রোববার (১১ এপ্রিল) ঢাকা মহানগর হাকিম মঈনুল ইসলাম মামলার এজহার গ্রহণ করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য এ দিন ধার্য করেন।

এদিন ওই কলেজের শিক্ষিকা ফারজানা ইসলামকে ঢাকা ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় নিউ মার্কেট থানায় করা মামলার সঠিক তদন্তের জন্য তাকে দশ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্তকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম মঈনুল ইসলাম তার চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

শনিবার (১০ এপ্রিল) বিকেল ৫টার দিকে কলেজের শিক্ষিকা আবাসিক ভবনের চতুর্থতলা থেকে লাইলি আক্তারের (১৬) মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় নিউ মার্কেট থানায় একটি মামলা করা হয়।

নিউমার্কেট থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আইনি প্রক্রিয়া শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, লাইলির শরীরে বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, আঘাতের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

নিহতের মা শ্যামলা বেগম বলেন, লাইলির ফুফুর মাধ্যমে আট মাস আগে এক হাজার টাকা বেতনে তাকে ওই বাসায় কাজে দেয়া হয়। বিভিন্ন সময় আমি দেখা করতে চাইলে দেখা করতে দিত না।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমার মেয়েকে পিটিয়ে, বিভিন্নভাবে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে। থানায় একটি মামলাও করা হয়েছে।

জানা গেছে, লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জ থানার চন্দ্রপুর গ্রামের মৃত সিরাজ মিয়ার সন্তান লাইলি। বর্তমানে নিউমার্কেটের বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক স্কুল শিক্ষিকা আবাসিক ভবনের ১/১-এইচ নম্বর বাসার চতুর্থ তলায় থাকতেন।

জেএ/এমআরএম/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]