সভাপতির চেয়ারে বসা হলো না, খসরুকে নিয়ে স্মৃতিচারণ

মুহাম্মদ ফজলুল হক
মুহাম্মদ ফজলুল হক মুহাম্মদ ফজলুল হক , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:৩৪ এএম, ১৫ এপ্রিল ২০২১

নির্বাচনী প্রচারণার সময় তার বক্তব্যে আকৃষ্ট হয়েছিলেন আইনজীবীরা। তিনি বলেছিলেন, ‘এবার যদি হেরে যাই তাহলে আমার হ্যাটট্রিক হবে। তাই আইনজীবীদের কাছে আমি শেষবারের মতো ভোট চাই।’ এরপর ১২ মার্চ অনুষ্ঠিত সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশন নির্বাচনে তিনি বিপুল ভোটে সভাপতি নির্বাচিত হন। এরপর ১৬ মার্চ তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। পরে হাসপাতালে ভর্তি হন।

হাসপাতালে থাকা অবস্থায়ই ১২ এপ্রিল তার নেতৃত্বাধীন নতুন কমিটি দায়িত্ব বুঝে নেয়। ওইদিনই সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতির কক্ষে তার নামফলক টানানো হয়। কিন্তু নামফলক টানানো কক্ষে থাকা সভাপতির চেয়ারে তার আর বসা হয়নি। তার মৃত্যুতে মন্ত্রী, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী, সাংবাদিক, শিক্ষকসহ অসংখ্য মানুষ আবেগী প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘সাবেক আইনমন্ত্রী, ৫ বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি, জ্যেষ্ঠ আইনজীবী, বীর মুক্তিযোদ্ধা, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সর্বজন শ্রদ্ধেয় আব্দুল মতিন খসরু অসাধারণ একজন ভালো মানুষ ছিলেন। আল্লাহ তাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুন।’

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল লিখেছেন, ‘এমনটি কথা ছিল না স্যার। কত স্মৃতি, কত পরিকল্পনা। ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে মালয়েশিয়ায় ICAPP সম্মেলনে ৩দিন একটানা আপনার সান্নিধ্যে ছিলাম। সে সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদও ছিলেন। দেশ নিয়ে, বিশ্ব রাজনীতি নিয়ে আপনার ভাবনাটি শেয়ার করেছিলেন উনি।’

এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী নির্বাচনের দায়িত্ব পালনকারী ব্যারিস্টার অনিক আর হক বলেন, গত ১২ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নতুন কমিটি দায়িত্ব গ্রহণ করেছে। নতুন কমিটির সভাপতি সেদিন উপস্থিত ছিলেন না। তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব গ্রহণের আগেই মারা গেলেন। এটা আইনজীবীদের জন্য খুবই কষ্টের।’

আইনজীবী এম শফিকুল ইসলাম লিখেছেন, ‘যখন জানলাম যে স্যারকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়েছে, তখন থেকেই মনটা খুব বিষণ্ন হয়ে আছে। গত মাসের ১৩ তারিখে সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি নির্বাচিত হয়ে পরদিন অর্থাৎ ১৪ মার্চ খসরু স্যার আমাদের সাথে নিয়ে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করেন। ১৫ মার্চ স্যার কোভিড টেস্ট করালে পজিটিভ রেজাল্ট আসে। স্যার সিএমএইচে ভর্তি হন। স্যারকে আইসিইউতে নেয়া হয়। রেজাল্ট নেগেটিভ আসে। অবস্থার উন্নতি হলে স্যারকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে আবার আইসিইউতে। গতকাল ২৩ এপ্রিল লাইফ সাপোর্টে। এরপর স্যার আমাদের কাছ থেকে চিরবিদায় নিলেন।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘আবদুল মতিন খসরু স্যার একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। কুমিল্লা থেকে নির্বাচিত ৫ বারের এমপি। তিনি সাবেক আইনমন্ত্রী। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য। তার চলে যাওয়া আইন অঙ্গন ও দেশের রাজনীতিতে বিশাল শূন্যতা সৃষ্টি করেছে। মহান আল্লাহ আবদুল মতিন খসরু স্যারকে জান্নাতুল ফিরদাউস নসিব করুন।’

jagonews24

ব্যারিস্টার এবিএম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘স্যারের স্নেহধন্য হবার সুযোগ। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতিকে আরও উচ্চতায় নিতে হবে এটা আপনার সংকল্প ছিল। আমার মরহুম সিনিয়র খন্দকার মাহবুব উদ্দিন আহমাদের প্রতি ছিল আপনার অগাধ শ্রদ্ধা। আল্লাহ আপনাকে বেহেশতের উচ্চতম মাকাম প্রদান করুন। আমিন।’

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী একলাস উদ্দিন ভূঁইয়া লিখেছেন, ‘বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়ার অভিভাবক আমাদের খসরু ভাই আর নেই। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। আল্লাহ উনাকে জান্নাতবাসী করুন। আমিন।’

আইনজীবী তাপস গোপাল ঘোষ লিখেছেন, ‘সবাইকে কাঁদিয়ে করোনার কবলে না ফেরার দেশে চলে গেলেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি, বিজ্ঞ সিনিয়র আইনজীবী আবদুল মতিন খসরু স্যার। স্যারের এ প্রস্থান আইনজীবীদের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি। বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।’

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কুমার দেবুল দে লিখেছেন, ‘প্রস্তুত ছিলাম না স্যার!! মনে করেছিলাম আবার দেখা হবে!! আবদুল মতিন খসরু স্যার আর নেই। আমি তার আত্মার সদগতি কামনা করছি। আমার জানামতে তিনি খুব ভালো মানুষ ছিলেন।’

আইনজীবী মো. তাজুল ইসলাম লিখেছেন, ‘সুপ্রিম কোর্ট বারের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন খসরু করোনা আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন। আমার দেখামতে তিনি বিনয়ী, সজ্জন ও সালাত আদায়কারী মানুষ ছিলেন। আল্লাহ তায়ালা তাকে ক্ষমা করুন ও জান্নাত নসীব করুন।’

ব্যারিস্টার মোহাম্মদ মোতাহার হোসেন লিখেছেন, ‘সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি, সাবেক আইনমন্ত্রী, সিনিয়র অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু এমপি ইন্তেকাল করেছেন। আমরা একজন ভালো মানুষ, মুরুব্বি হারালাম। আমরা গভীরভাবে শোকাহত। আল্লাহ তাকে জান্নাত নসীব করুন।’

আইনজীবী জেআর খান রবিন লিখেছেন, ‘মি. আবদুল মতিন খসরু স্যার আর নেই। আইন ও রাজনৈতিক অঙ্গনের আরেক নক্ষত্রের বিদায়।’

jagonews24

ব্যারিস্টার একেএম এহসানুর রহমান লিখেছেন, ‘আমাদের মধ্যে এমন কোনো আইনজীবী হয়তো ছিল না, যে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি আবদুল মতিন খসরু স্যারের সুস্থতার এবং তার ফেরত আসার জন্য মহান আল্লাহর দরবারে দুহাত তুলে দোয়া করেনি। কিন্তু মহান আল্লাহ পাক তার প্রিয় বান্দাকে তার কাছে নিয়ে গেলেন। মহান আল্লাহ স্যারকে জান্নাতের সর্বোচ্চ মাকামে অধিষ্ঠিত করুন। আমিন।’

ব্যারিস্টার হুমায়ুন কবির পল্লব লিখেছেন, ‘স্যার এমন তো কথা ছিল না! বলেছিলেন এবার সভাপতি হতে পারলে কত কিছু করবেন। আমাদের বলেছিলেন আপনারা সবাই আমাকে সহযোগিতা করবেন। আমরা শপথ করেছিলাম এবার আপনাকে আমরা নির্বাচিত করব। দেশের আইনজীবী সমাজ সে কথাটি রেখেছে। সভাপতি ঠিকই হলেন। দায়িত্ব নিলেন। কিন্তু আপনাকে চেয়ারের আসনে দেখতে পারলাম না। কষ্টে বুকটা ভেঙে যাচ্ছে। তবুও আল্লাহর প্রিয় বান্দা হিসেবে আপনি আল্লাহর কাছে ভালো থাকুন।’

আইনজীবী এএম জামিউল হক ফয়সাল লিখেছেন, ‘চলে গেলেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সম্মানিত সভাপতি আব্দুল মতিন খসরু স্যার। এই ছবিটিই ছিল স্যার নির্বাচিত হওয়ার পর সাধারণ আইনজীবীদের সাথে প্রথম ও সম্ভবত শেষ ছবি! চলে যাবেন বলেই হয়তো এবারের নির্বাচনে তিনি আইনজীবী ও সমাজের নেতৃত্বে আইনজীবীদের ভূমিকা নিয়ে চমৎকার কথাগুলো বলতেন! সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি হিসেবে আপনার কাছে সাধারণ আইনজীবীদের অনেক কিছুই হয়তো মিস করবে! ভালো থাকুন স্থায়ী ঠিকানায়! আল্লাহ তায়ালা আপনাকে ক্ষমা করুন।’

আইনজীবী তাপসী লিখেছেন, ‘সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতির চেয়ারে আর বসা হলো না মানুষটার। বর্ণিল জীবনের অবসান হলো। আল্লাহ তাকে ডেকে নিলেন। আল্লাহ উনাকে রহমত দান করুন আর গুনাহ মাফ করে দিন, জান্নাতবাসী করুন। আমিন।’

আইনজীবী আবদুস সাত্তার পালোয়ান তার ফেসবুকে বলেন, ‘করোনার এ সময়ে শুধু সুপ্রিম কোর্টের কয়েকশ আইনজীবী মারা গেছেন। গত একমাসের মেসেজ চেক করে দেখলাম ২০ জন আইনজীবী মৃত্যুবরণ করেছেন। আজ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি আবদুল মতিন খসরু এমপি স্যার মারা গেছেন। সভাপতি নির্বাচিত হবার পর একদিনের জন্যও চেয়ারে বসতে পারলেন না। এ মহামারি আইনাঙ্গনকে নাস্তানাবুদ করে ছাড়ছে। হে আল্লাহ, আপনি মহামারিতে মৃত্যুবরণকারী আইনজীবীগণসহ সকল মুসলমানকে শহীদ হিসেবে কবুল করুন।’

সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের একান্ত সহকারী জিবরুল হাসান লিখেছেন, ‘বিদায় আব্দুল মতিন খসরু স্যারের! একজন অমায়িক, ভদ্র এবং নামাজি মানুষ ছিলেন তিনি। কোর্টের বারান্দায় দেখা হলে সালামটা আগে দিতেন, কুশলাদি বিনিময় করতেন। ছোট-বড় সবাইকে ‘আপনি’ করে সম্বোধন করতেন। তিনি ছিলেন একাধারে বর্ষীয়ান পার্লামেন্টারিয়ান, সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র অ্যাডভোকেট এবং সুপ্রিম কোর্ট বারের সদ্যনির্বাচিত সভাপতি।

ইনকিলাবের সিনিয়র সাংবাদিক সাঈদ আহমেদ লিখেছেন, ‘বাসায় গেলে কখনোই না খাইয়ে ছাড়তেন না। ব্যক্তি হিসেবে ছিলেন অমায়িক। মানুষ হিসেবে সৎ। আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু ভাই না ফেরার দেশে চলে গেলেন। দেখা হলেই দূর থেকে তার মতো করে আর নাম ধরে ডাকবেন না কেউ। আল্লাহ তুমি তাকে জান্নাত দিও....।’

jagonews24

বেসরকারি টিভি বাংলাভিশনের সিনিয়র সাংবাদিক আহমেদ সরোয়ার হোসেন ভূঞা লিখেছেন, ‘কুমিল্লা-৫ আসনের সংসদ সদস্য, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার, সাবেক আইনমন্ত্রী, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি আবদুল মতিন খসরু ইন্তেকাল করেছেন, ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। তিনি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। ১৯৯১ সালে বিচারপতি শাহাবুদ্দিন আহমদের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লার ১২টি আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগের হয়ে একমাত্র তিনিই ছিলেন জয়ী। ৯৬ সালে সে ধারাবাহিকতা বজায় থাকে। আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে তিনি আইনমন্ত্রী হন। মন্ত্রী হিসেবে জাতীয় সংসদে ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিলের বিল উত্থাপনের সময় তার যে বক্তব্য, পক্ষ-বিপক্ষের সবার আবেগেই কাঁপন ধরিয়ে ছিল।’

দীপ্ত টিভির সিনিয়র সাংবাদিক আজিজুর রহমান পান্নু লিখেছেন, ‘সাবেক সফল আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরুও চলে গেলেন না ফেরার দেশে। কদিন ধরে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন তিনি। অনেক বড় মানুষ হওয়া সত্ত্বেও ছিলেন অত্যন্ত বিনয়ী। হাইকোর্টের করিডোরে দাঁড়িয়ে থাকা দেখে থেমে গিয়ে বলতেন, কী খবর সাংবাদিক সাহেব! আর মোবাইল করে কোনো বিষয়ে মতামত নিতে চাইলে খুব সহজেই সময় দিতেন। অনেক সময় কুমিল্লায় থাকলে খুব বিনয়ীভাবে বলতেন, আমি যে কুমিল্লাতে। সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর আমরা সহকর্মীরা ফুল দিতে যাই। তিনি ফুল না নিয়ে আগে নিজ হাতে মিষ্টি খাওয়ালেন আমাদের। এরপর ফুল নিলেন। আল্লাহ আপনাকে জান্নাতুল ফিরদাউস দান করুক। আমিন....’

চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের সাংবাদিক মো. মাসুদুর রহমান লিখেছেন, ‘কে জানতো, এবার জেতার পরও চেয়ারে বসতে পারবেন না সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু। সোমবার দুপুরে দায়িত্ব নিলেন ভার্চুয়ালি। বুধবার বিকেলে সৃষ্টিকর্তার কাছে চলে গেলেন তিনি। ফেব্রুয়ারিতে তার বাসায় গিয়েছিলাম সবশেষ। বললেন ভয় পান করোনা... এমন মৃত্যু স্তব্ধতার মোড়কে বেঁধে ফেলে। সুপ্রিম কোর্ট যখন চলেছে, প্রতিদিন দেখা হতো... হাসিমুখে বলতেন, আজ কী নিউজ আছে...!!! আল্লাহ আপনাকে বেহেস্তবাসী করুন খসরু ভাই।’

সাংবাদিক মোহাম্মদ নাসের লিখেছেন, ‘এই পৃথিবী থাকার জায়গা নয়। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি, সাবেক আইনমন্ত্রী, পাঁচবারের সংসদ সদস্য, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, আবদুল মতিন খসরু ভাইয়ের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করছি। আল্লাহ তাকে জান্নাতের সর্বোচ্চ মর্যাদা দান করুক।’

একজন শিক্ষক মুহিদুল ইসলাম তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘একজন ভালো মানুষের বিদায়। আল্লাহ উনাকে জান্নাতুল ফিরদাউস দান করুক।’

আইন শিক্ষানবিশ ও মানবজমিনের সাংবাদিক রাশিম মোল্লা লিখেছেন, ‘একজন ভালো মানুষ ও মেধাবী রাজনীতিকের বিদায়। তিনি একজন ভালো মানুষ ও মেধাবী রাজনীতিক ছিলেন। আজকাল এমন মানুষের বড়ই অভাব। এবার তৃতীয়বারের মতো তিনি যখন সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি পদে নির্বাচন করার জন্য মনোস্থির করেন, আমার মতো অনেকেই নির্বাচনের আগেই তিনি জয়ী হবেন বলে মন্তব্য করেন। সত্যিই তিনি জয়ী হন। কিন্তু দায়িত্ব গ্রহণ না করেই চলে গেলেন। আল্লাহ তুমি তার ভুলগুলো ক্ষমা করে জান্নাত নসিব কর।’

এফএইচ/এমএইচআর/বিএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

৩৩,৪৮,৫০,৮৭২
আক্রান্ত

৫৫,৭২,৬৩৪
মৃত

২৭,০৬,০৩,১৪৪
সুস্থ

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ
বাংলাদেশ ১৬,৩২,৭৯৪ ২৮,১৬৪ ১৫,৫৩,৭৯৫
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৬,৮৫,৪৯,৫৯০ ৮,৭৭,০৮৩ ৪,৩২,৬৫,৪৯৯
ভারত ৩,৭৮,৯৬,০১১ ৪,৮৭,২২৬ ৩,৫৫,৬৮,৬৭৩
ব্রাজিল ২,৩২,১৫,৫৫১ ৬,২১,৫৭৮ ২,১৭,১০,৮৩১
যুক্তরাজ্য ১,৫৩,৯৯,৩০০ ১,৫২,৫১৩ ১,১৬,১৭,০৩১
ফ্রান্স ১,৪৭,৩৯,২৯৭ ১,২৭,৬৩৮ ৯৪,০৭,০৯৪
রাশিয়া ১,০৮,৬৫,৫১২ ৩,২২,৬৭৮ ৯৯,০২,৯৩৫
তুরস্ক ১,০৫,৯১,৭৫৭ ৮৫,০৭৭ ৯৮,১৫,২২২
ইতালি ৯০,১৮,৪২৫ ১,৪১,৮২৫ ৬৩,১৪,৪৪৪
১০ স্পেন ৮৫,১৮,৯৭৫ ৯১,২৭৭ ৫৩,৬৪,৫৩৪
১১ জার্মানি ৮১,৪০,৪৪৬ ১,১৬,৬১০ ৭০,৫০,১০০
১২ আর্জেন্টিনা ৭৩,১৮,৩০৫ ১,১৮,৪২০ ৬২,৯৫,৪৭২
১৩ ইরান ৬২,২৭,৮৪৯ ১,৩২,১১৩ ৬০,৬৮,৯৮৩
১৪ কলম্বিয়া ৫৫,৯৬,৯১৭ ১,৩১,২৬৮ ৫২,৯০,৯৩৪
১৫ মেক্সিকো ৪৩,৮৫,৪১৫ ৩,০১,৪৬৯ ৩৪,৭৮,১৩০
১৬ পোল্যান্ড ৪৩,৪৩,১৩০ ১,০২,৬৮৬ ৩৮,০৬,১৩৯
১৭ ইন্দোনেশিয়া ৪২,৭৩,৭৮৩ ১,৪৪,১৮৩ ৪১,২০,০৩৬
১৮ ইউক্রেন ৩৭,৬৮,০৮৮ ৯৮,৫৪৯ ৩৫,৬১,৯২৩
১৯ নেদারল্যান্ডস ৩৬,৪২,৬৯৬ ২১,১৬৮ ২৯,৫৮,৮৪৫
২০ দক্ষিণ আফ্রিকা ৩৫,৬৪,৫৭৮ ৯৩,৫৫১ ৩৩,৮০,৩৭৪
২১ ফিলিপাইন ৩২,৭০,৭৫৮ ৫২,৯৬২ ২৯,৩৩,৩৩৮
২২ কানাডা ২৮,২০,৩৯৮ ৩১,৮২৫ ২৪,৬৬,৭৩৯
২৩ মালয়েশিয়া ২৮,১৩,৯৩৪ ৩১,৮১৮ ২৭,৪১,৩৫৫
২৪ পেরু ২৬,৩১,৮২৬ ২,০৩,৫৫০ ১৭,২০,৬৬৫
২৫ চেক প্রজাতন্ত্র ২৬,২৪,১২১ ৩৬,৯১০ ২৪,৪৩,২৩০
২৬ বেলজিয়াম ২৪,৮৪,০২৭ ২৮,৬৬১ ১৯,৭১,১৫২
২৭ থাইল্যান্ড ২৩,৩৭,৮১১ ২১,৯৫৯ ২২,৩৩,৯০৩
২৮ ইরাক ২১,২৫,২৬৬ ২৪,২৬২ ২০,৭১,১২০
২৯ ভিয়েতনাম ২০,৬২,১২৮ ৩৫,৯৭২ ১৭,৫৬,১৫৪
৩০ পর্তুগাল ১৯,৫০,৬২০ ১৯,৩৮০ ১৫,৯৮,৪৫৪
৩১ রোমানিয়া ১৯,২৮,৩০৬ ৫৯,৩২৭ ১৭,৮৪,১০৭
৩২ জাপান ১৯,০৩,১৯০ ১৮,৪৩৪ ১৭,৪৩,১৩৬
৩৩ চিলি ১৮,৯৩,১১৫ ৩৯,৪২৭ ১৭,৫২,৩৫০
৩৪ অস্ট্রেলিয়া ১৮,৭৬,০৩৫ ২,৭৭৬ ৬,৬৩,৭৪৫
৩৫ ইসরায়েল ১৭,৯২,১৩৭ ৮,৩১৯ ১৫,৩০,৭১৬
৩৬ সুইজারল্যান্ড ১৭,৫৫,৮৯৮ ১২,৬২৬ ১১,৭৬,১৫২
৩৭ গ্রীস ১৭,০৩,৩৯৬ ২২,১৯৭ ১৩,৯৯,৯৩৩
৩৮ সুইডেন ১৬,৫৭,৬১১ ১৫,৫১৬ ১২,৪৪,৯৩০
৩৯ অস্ট্রিয়া ১৪,৭৫,৯৯১ ১৩,৯৪২ ১৩,১৪,১২৯
৪০ সার্বিয়া ১৪,৬৭,১৯৮ ১৩,১২৪ ১২,৮৬,২৪১
৪১ হাঙ্গেরি ১৩,৫৫,০৮৪ ৪০,৬০১ ১১,৭৬,৮৫৫
৪২ পাকিস্তান ১৩,৩৩,৫২১ ২৯,০২৯ ১২,৬৪,৬১১
৪৩ ডেনমার্ক ১১,৫২,৪৩৪ ৩,৫১৯ ৮,৪২,৮৯৩
৪৪ আয়ারল্যান্ড ১১,১৫,৫৮৫ ৬,০৩৫ ৬,৫০,৫৬৫
৪৫ জর্ডান ১১,১১,১৮১ ১৩,০১৪ ১০,৬৪,৯৯১
৪৬ কাজাখস্তান ১০,৭১,১৩০ ১৩,০৮৭ ৯,৭৩,৬৩৭
৪৭ মরক্কো ১০,৫৯,৫৮৬ ১৫,০১২ ৯,৮৪,০৪৭
৪৮ জর্জিয়া ১০,০৬,৮৬৪ ১৪,৫১২ ৯,৩৪,৬৬৭
৪৯ কিউবা ১০,০৫,৬৪৯ ৮,৩৪৫ ৯,৭৯,৫৫৯
৫০ স্লোভাকিয়া ৮,৮৪,৬০৪ ১৭,৩৯৮ ৮,৩২,১৬৪
৫১ নেপাল ৮,৬৮,২১৫ ১১,৬২৪ ৮,১৭,৫৪৭
৫২ বুলগেরিয়া ৮,৪১,৭৮৫ ৩২,৩৩৮ ৬,৩৯,৩৫২
৫৩ লেবানন ৮,৩৩,৮৭১ ৯,৪১২ ৬,৮২,৯৭৭
৫৪ ক্রোয়েশিয়া ৮,২৬,৩৮০ ১৩,২১২ ৭,৬৩,৬৪০
৫৫ সংযুক্ত আরব আমিরাত ৮,১১,০২৯ ২,১৯৮ ৭,৬২,৩৭৯
৫৬ তিউনিশিয়া ৭,৯১,৯১৭ ২৫,৮১৭ ৭,০৬,২৯১
৫৭ বলিভিয়া ৭,৬৩,৩৯২ ২০,২৯১ ৬,০৪,৬৪৬
৫৮ বেলারুশ ৭,১৮,০৯৮ ৫,৮৫০ ৭,১০,৮৭৬
৫৯ দক্ষিণ কোরিয়া ৭,০০,১০২ ৬,৩৭৮ ৫,৮৫,৬৭৩
৬০ গুয়াতেমালা ৬,৫৩,৫৫৫ ১৬,১৭৯ ৬,১৩,৩৯৫
৬১ ইকুয়েডর ৬,২৯,৫০৭ ৩৪,২৩২ ৪,৪৩,৮৮০
৬২ আজারবাইজান ৬,২৭,০১৫ ৮,৫৪১ ৬,০৯,৪৮০
৬৩ সৌদি আরব ৬,২৬,৮০৮ ৮,৯১০ ৫,৭৩,৮৩১
৬৪ কোস্টারিকা ৬,২৫,৯৫২ ৭,৪২৫ ৫,৬৬,২৫৩
৬৫ শ্রীলংকা ৫,৯৭,৭০৭ ১৫,২৩১ ৫,৬৮,৫০৬
৬৬ পানামা ৫,৯১,৮৪৩ ৭,৫৪৫ ৫,২১,৩৮০
৬৭ লিথুনিয়া ৫,৭৫,৩৫৭ ৭,৬৮১ ৫,১৭,১৩৮
৬৮ স্লোভেনিয়া ৫,৪৭,০১৩ ৫,৭১৫ ৪,৬৫,২৪২
৬৯ নরওয়ে ৫,৩৮,৭৯১ ১,৩৮৩ ৮৮,৯৫২
৭০ মায়ানমার ৫,৩৩,৪০৮ ১৯,৩০৫ ৫,১১,৪৮৩
৭১ উরুগুয়ে ৫,২০,৮২২ ৬,২৪৮ ৪,৩১,১৮২
৭২ ডোমিনিকান আইল্যান্ড ৫,১০,৪৫৮ ৪,২৬৯ ৪,৭১,৬২৫
৭৩ প্যারাগুয়ে ৫,০৯,৭৯৫ ১৬,৮৬৬ ৪,৫২,৯২১
৭৪ কুয়েত ৪,৭৫,৩০৩ ২,৪৭৯ ৪,২৮,৬৬৬
৭৫ ইথিওপিয়া ৪,৫৯,৪৮৬ ৭,১৮৪ ৩,৭৬,১৫২
৭৬ ভেনেজুয়েলা ৪,৫৬,৬৪১ ৫,৩৮৩ ৪,৩৮,৭২২
৭৭ ফিলিস্তিন ৪,৪৭,১৩৯ ৪,৭৬২ ৪,৩৬,০৫৪
৭৮ মঙ্গোলিয়া ৪,১১,৩৫০ ২,০৮৯ ৩,১৩,২৫৬
৭৯ মিসর ৪,০২,৬১১ ২২,২০৫ ৩,৩৬,০২৮
৮০ ফিনল্যাণ্ড ৩,৯৯,৩২৯ ১,৭৬১ ৪৬,০০০
৮১ লিবিয়া ৩,৯৮,৯৪০ ৫,৮৬৩ ৩,৮৫,৬৯৩
৮২ মলদোভা ৩,৯৩,৪২৩ ১০,৪৬২ ৩,৬৭,৭২৮
৮৩ হন্ডুরাস ৩,৮৫,৩৬২ ১০,৪৫৬ ১,২৭,০২৯
৮৪ আর্মেনিয়া ৩,৪৮,১৪৫ ৮,০২২ ৩,৩৩,৭১৬
৮৫ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ৩,২১,০৩৪ ১৩,৮৮৮ ১৩,৪৯,৯৫৬
৮৬ কেনিয়া ৩,১৮,২৪৯ ৫,৫০৪ ২,৮৬,৪৮৩
৮৭ ওমান ৩,১৪,৮৫৩ ৪,১২২ ৩,০২,৭৬২
৮৮ বাহরাইন ৩,১৩,৯২৫ ১,৩৯৮ ২,৮৯,৬৬৮
৮৯ লাটভিয়া ৩,০৯,০৬০ ৪,৭৪২ ২,৭৩,০৯৮
৯০ কাতার ৩,০৭,০৫৬ ৬৩০ ২,৬৪,২৮২
৯১ জাম্বিয়া ২,৯৮,০৩২ ৩,৮৭৩ ২,৮১,২১৫
৯২ সিঙ্গাপুর ২,৯৪,৪৬২ ৮৪৩ ২,৮৫,৩৫২
৯৩ এস্তোনিয়া ২,৭১,৫০০ ১,৯৮৭ ২,৩৬,৫১৯
৯৪ নাইজেরিয়া ২,৫১,৩৪১ ৩,১১৬ ২,২৪,৯৩৯
৯৫ উত্তর ম্যাসেডোনিয়া ২,৪৭,৬৬৩ ৮,১৩৯ ২,২২,৩০৬
৯৬ বতসোয়ানা ২,৩৯,৮৮৭ ২,৫৩৪ ২,২৭,০৪১
৯৭ আলবেনিয়া ২,৩৬,৪৮৬ ৩,২৭৭ ২,১১,১৮৭
৯৮ সাইপ্রাস ২,৩০,৮৫৬ ৬৮৯ ১,২৪,৩৭০
৯৯ আলজেরিয়া ২,২৭,৫৫৯ ৬,৪৩৫ ১,৫৫,৬২৭
১০০ জিম্বাবুয়ে ২,২৬,৪৬০ ৫,২৫৮ ২,০৮,১১২
১০১ মোজাম্বিক ২,২০,২৪১ ২,১৩৬ ১,৯৩,১৪৫
১০২ উজবেকিস্তান ২,০৭,০৫৭ ১,৫২২ ১,৯৯,৮৭২
১০৩ মন্টিনিগ্রো ২,০৬,৬৭৬ ২,৪৮৫ ১,৯১,৯৬২
১০৪ কিরগিজস্তান ১,৯১,২৮৮ ২,৮৩৬ ১,৮১,২২৫
১০৫ আফগানিস্তান ১,৫৮,৯৭৪ ৭,৩৮৩ ১,৪৬,০২১
১০৬ উগান্ডা ১,৫৮,৯৩৩ ৩,৪৩৭ ৯৮,৯৭৯
১০৭ নামিবিয়া ১,৫৪,৬৬৪ ৩,৮৩৩ ১,৪২,৯০০
১০৮ ঘানা ১,৫৪,১৯০ ১,৩৫০ ১,৪৫,৪০৮
১০৯ রিইউনিয়ন ১,৩৩,৬১৭ ৪৬২ ৮৬,৬৬৯
১১০ লুক্সেমবার্গ ১,২৯,০৯২ ৯৪০ ১,০৪,৪৩৮
১১১ রুয়ান্ডা ১,২৬,১৩৩ ১,৪১৩ ৪৫,৫২২
১১২ লাওস ১,২৬,০৬৬ ৫০০ ৭,৬৬০
১১৩ এল সালভাদর ১,২৩,৫৭৭ ৩,৮৩৭ ১,১৬,৭৪২
১১৪ কম্বোডিয়া ১,২০,৮৪৭ ৩,০১৫ ১,১৭,১২৯
১১৫ জ্যামাইকা ১,১৪,৯৮৬ ২,৫৫১ ৬৭,৪৮১
১১৬ ক্যামেরুন ১,০৯,৬৬৬ ১,৮৫৩ ১,০৬,০৫০
১১৭ মালদ্বীপ ১,০৬,৫৯৫ ২৬৫ ৯৮,২৩৮
১১৮ চীন ১,০৫,২৫৮ ৪,৬৩৬ ৯৭,০৯২
১১৯ ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ১,০২,০২৪ ৩,২২৪ ৮১,৬০২
১২০ অ্যাঙ্গোলা ৯৪,২৭৫ ১,৮৭০ ৮৪,৯২৭
১২১ সেনেগাল ৮৩,১৭৪ ১,৯১২ ৭৬,২৪৪
১২২ ড্যানিশ রিফিউজি কাউন্সিল ৮২,৯৮৪ ১,২৭৮ ৫০,৯৩০
১২৩ মালাউই ৮২,৯৭৫ ২,৪৮০ ৬৫,৮৪২
১২৪ আইভরি কোস্ট ৭৯,৪৩৫ ৭৬৩ ৭৫,২৯৮
১২৫ গুয়াদেলৌপ ৭৩,৯৫৯ ৭৫৩ ২,২৫০
১২৬ মার্টিনিক ৭১,১৯৩ ৮১৩ ১০৪
১২৭ ফ্রেঞ্চ গায়ানা ৭০,৪৮৩ ৩৫২ ১১,২৫৪
১২৮ ইসওয়াতিনি ৬৭,৯৩৫ ১,৩৬৫ ৬৫,৯৬৮
১২৯ সুরিনাম ৬৫,২৮২ ১,২১৬ ৪৯,১৬১
১৩০ মালটা ৬৪,৩৭৭ ৫০৯ ৫৪,২৭৫
১৩১ ফিজি ৫৯,৭৮৫ ৭৪৬ ৫৫,২৩৬
১৩২ মৌরিতানিয়া ৫৫,৮৫৮ ৯১১ ৪৩,৭৭২
১৩৩ মাদাগাস্কার ৫৫,৮২৭ ১,১৬৯ ৫০,৩৮১
১৩৪ কেপ ভার্দে ৫৪,৬৩৭ ৩৭৮ ৫২,১০৮
১৩৫ গায়ানা ৫৩,১৭৮ ১,১০১ ৩৯,৯৯১
১৩৬ সুদান ৫১,৮০২ ৩,৩৮৮ ৪০,৩২৯
১৩৭ সিরিয়া ৫০,৭৮৪ ২,৯৫৩ ৩৫,০১৩
১৩৮ আইসল্যান্ড ৪৯,৯৭২ ৪৪ ৩৯,৭৬৬
১৩৯ ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ৪৭,২৭৫ ৬৩৬ ৩৩,৫০০
১৪০ গ্যাবন ৪৫,৪০৫ ২৯৯ ৩৯,৮৮৯
১৪১ বেলিজ ৪৩,১১৫ ৬১১ ৩৩,৯২৮
১৪২ চ্যানেল আইল্যান্ড ৩৭,২৪৪ ১২৪ ৩৪,০৬১
১৪৩ বুরুন্ডি ৩৬,৬৫৪ ৩৮ ৭৭৩
১৪৪ পাপুয়া নিউ গিনি ৩৬,৪৪৬ ৫৯৬ ৩৫,৭৯৮
১৪৫ টোগো ৩৬,০৫৬ ২৬৩ ২৯,৩৭৮
১৪৬ বার্বাডোস ৩৫,৭৩৪ ২৭১ ২৯,৮৫১
১৪৭ গিনি ৩৫,৬০২ ৪০৮ ৩১,১৮৩
১৪৮ মায়োত্তে ৩৪,৯০৩ ১৮৬ ২,৯৬৪
১৪৯ কিউরাসাও ৩৪,৩৬৮ ২০৭ ২২,৫৯৯
১৫০ সিসিলি ৩২,৮৪৬ ১৪০ ২৭,৬৫৭
১৫১ লেসোথো ৩১,৭৩৪ ৬৮৭ ১৯,৯১৫
১৫২ তানজানিয়া ৩১,৩৯৫ ৭৪৫ ১৮৩
১৫৩ আরুবা ৩১,৩৩৮ ১৮৬ ২৯,৯২১
১৫৪ বাহামা ৩১,১০৫ ৭১৯ ২৩,০৬৪
১৫৫ এনডোরা ২৯,৮৮৮ ১৪২ ২৪,০৩০
১৫৬ মালি ২৯,০৩৯ ৬৯২ ২৪,৬৫৪
১৫৭ হাইতি ২৭,৮১৯ ৭৮০ ২৪,০৫৭
১৫৮ বেনিন ২৬,০৩৬ ১৬২ ২৫,০৩৩
১৫৯ মরিশাস ২৪,৯০৩ ৭৬২ ২২,৭১০
১৬০ সোমালিয়া ২৪,২৬১ ১,৩৩৫ ১৩,১৮২
১৬১ কঙ্গো ২৩,২৪৪ ৩৭১ ১৮,৯৯৩
১৬২ বুর্কিনা ফাঁসো ২০,২৯০ ৩৫৩ ১৯,০১৯
১৬৩ পূর্ব তিমুর ১৯,৮৬৫ ১২২ ১৯,৭২৯
১৬৪ তাইওয়ান ১৭,৯৫১ ৮৫১ ১৬,১১৩
১৬৫ সেন্ট লুসিয়া ১৭,৬৬৬ ৩১৪ ১৩,৯৯৮
১৬৬ নিকারাগুয়া ১৭,৬০৪ ২১৫ ৪,২২৫
১৬৭ তাজিকিস্তান ১৭,০৯৫ ১২৪ ১৬,৯৬৬
১৬৮ দক্ষিণ সুদান ১৬,৫৪৭ ১৩৬ ১২,৯৩৪
১৬৯ ব্রুনাই ১৫,৯০১ ৯৮ ১৫,৪৫২
১৭০ ইকোয়েটরিয়াল গিনি ১৫,৪৯২ ১৭৮ ১৩,৭১০
১৭১ নিউজিল্যান্ড ১৫,১৭০ ৫২ ১৪,০৯০
১৭২ জিবুতি ১৫,০৮৯ ১৮৯ ১৪,৩৬৪
১৭৩ নিউ ক্যালেডোনিয়া ১৪,১৫৭ ২৮২ ১২,৮১০
১৭৪ আইল অফ ম্যান ১৪,১২৬ ৭০ ১৩,৭৫৫
১৭৫ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ১৩,৩১৯ ১০৮ ৬,৮৫৯
১৭৬ হংকং ১৩,০৬৬ ২১৩ ১২,৩২৭
১৭৭ কেম্যান আইল্যান্ড ১১,৬৬৬ ১৫ ৮,০৯৩
১৭৮ গাম্বিয়া ১১,৫৭২ ৩৪৭ ১০,১৫৬
১৭৯ ফারে আইল্যান্ড ১১,৩১৩ ১৫ ৭,৬৯৩
১৮০ জিব্রাল্টার ১১,০৬৪ ১০০ ৯,৪৩৪
১৮১ সান ম্যারিনো ১০,৬৩৯ ১০৩ ৮,৮৯৫
১৮২ ইয়েমেন ১০,৩৪৯ ১,৯৯২ ৭,০৫১
১৮৩ গ্রেনাডা ১০,১৮৮ ২০৪ ৬,৫৬৩
১৮৪ বারমুডা ৯,১৪৪ ১১০ ৭,০৮১
১৮৫ ইরিত্রিয়া ৯,০৮৫ ৮৯ ৮,৪৩০
১৮৬ গ্রীনল্যাণ্ড ৮,৭৯০ ২,৭৬১
১৮৭ সিন্ট মার্টেন ৮,৬৮০ ৭৫ ৬,০০৩
১৮৮ নাইজার ৮,৪৫৯ ২৯৩ ৭,৪৪৬
১৮৯ ডোমিনিকা ৭,৯৫৭ ৪৮ ৭,২৬২
১৯০ কমোরস ৭,৭৭১ ১৫৯ ৭,২৯০
১৯১ সেন্ট মার্টিন ৭,৭১৩ ৬০ ১,৩৯৯
১৯২ সিয়েরা লিওন ৭,৫৫৮ ১২৫ ৪,৩৯৩
১৯৩ লিচেনস্টেইন ৭,৩৪০ ৭৩ ৭,০০১
১৯৪ লাইবেরিয়া ৭,১২১ ২৮৭ ৫,৭৪৭
১৯৫ গিনি বিসাউ ৭,০৩৪ ১৫২ ৬,৩৪৩
১৯৬ মোনাকো ৬,৯৪৩ ৪৪ ৬,৪২৭
১৯৭ চাদ ৬,৮৮৭ ১৮৫ ৪,৮৭৪
১৯৮ সেন্ট ভিনসেন্ট ও গ্রেনাডাইন আইল্যান্ড ৬,৫৯৯ ৮৭ ৫,৬০৯
১৯৯ ক্যারিবিয়ান নেদারল্যান্ডস ৫,৬৪৯ ২৬ ৬,৪৪৫
২০০ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ ৫,৪৪৯ ৪৭ ২,৬৪৯
২০১ অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা ৫,৩৪৬ ১২১ ৪,২৪০
২০২ টার্কস্ ও কেইকোস আইল্যান্ড ৫,১১০ ৩০ ৪,৫৬৫
২০৩ সেন্ট কিটস ও নেভিস ৫,০২৬ ২৮ ৩,৮০৯
২০৪ ভুটান ৩,১৭০ ২,৬৫৪
২০৫ সেন্ট বারথেলিমি ২,৯২৭ ৪৬২
২০৬ এ্যাঙ্গুইলা ২,১০৯ ১,৯১৩
২০৭ ডায়মন্ড প্রিন্সেস (প্রমোদ তরী) ৭১২ ১৩ ৬৯৯
২০৮ সেন্ট পিয়ের এন্ড মিকেলন ৪৯৪ ২৪০
২০৯ ওয়ালিস ও ফুটুনা ৪৫৪ ৪৩৮
২১০ পালাও ১৬৭ ১৯
২১১ মন্টসেরাট ১৪৬ ৯৫
২১২ ফকল্যান্ড আইল্যান্ড ৮৫ ৬৮
২১৩ ম্যাকাও ৭৯ ৭৯
২১৪ সলোমান আইল্যান্ড ৩২ ২০
২১৫ ভ্যাটিকান সিটি ২৯ ২৭
২১৬ পশ্চিম সাহারা ১০
২১৭ জান্ডাম (জাহাজ)
২১৮ মার্শাল আইল্যান্ড
২১৯ ভানুয়াতু
২২০ সামোয়া
২২১ সেন্ট হেলেনা
২২২ টাঙ্গা
তথ্যসূত্র: চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (সিএনএইচসি) ও অন্যান্য।
করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]