বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে প্রদীপ মাহবুবের কবিতাগুচ্ছ

প্রদীপ মাহবুব
প্রদীপ মাহবুব প্রদীপ মাহবুব
প্রকাশিত: ১১:৫৩ পিএম, ১৫ আগস্ট ২০১৯

বঙ্গবন্ধু

সীমানা পেরিয়ে দৃষ্টি যতদূর
শুনি তোমার উদ্যত বজ্রসুর,
ম্লান সাগর পাহাড় মেঘনাদ
একটি তর্জনীতে বিজয়ের স্বাদ।
দেহে মিশে হিমালয়ের দৃঢ়তা
কণ্ঠে হারে তলোয়ারের ক্ষীপ্রতা,
কোটি মানুষের খ্যাপা হ্যামিলিয়ন
নতুন স্বপ্নে বাঙালির জাগরণ।
লাল সবুজের পতাকা অনিবার
দেখ বাংলাদেশ দুর্বিনীত দুর্বার,
কুর্নিশে কুরবান নায়াগ্রা সিন্ধু
তুমি নীতির নেতা ‘বঙ্গবন্ধু’।

তোমার জন্য পিতা

তোমার জন্য আজও পিতা কাঁদে বাঙালি
তোমার জন্য আজও অনেকে বড্ড বেখেয়ালি,
তোমার জন্য আজও কেউ জুতো পরে না পায়ে
তোমার জন্য আজও কেউ কাঁদে বসে দূর গাঁয়ে।
তোমার জন্য আজও পিতা বুকে হাহাকার
তোমার জন্য আজও অনেকে স্তব্ধ নির্বিকার,
তোমার জন্য আজও কেউ মুছে চোখের জল
তোমার জন্য আজও কেউ চোখে দেয় না কাজল।
তোমার জন্য আজও কেউ পিতা পথ চেয়ে থাকে
তোমার জন্য আজও অনেকে নতুন স্বপ্ন দেখে,
তোমার জন্য আজও কেউ দুর্বার সংগ্রামী
তোমার জন্য আজও কেউ করে পাগলামি।
তোমার জন্য আজও পিতা স্বপ্নের জাল বোনে
তোমার জন্য আজও অনেকে মুক্তির গান শোনে,
তোমার জন্য আজও কেউ রাস্তায় নেমে আসে
তোমার জন্য আজও কেউ সোনালী স্মৃতিতে ভাসে।
তোমার জন্য আজও পিতা হয় না ফেরা নীড়ে
তোমার জন্য আজও পিতা মন চাতক পাখি
আসো যদি আবার এই সোনার বাংলায় ফিরে!

ক্ষমা

হে বঙ্গপিতা! ধন্য বঙ্গ তোমার জন্মে
শোধাবো কেমনে এই ঋণ এ জনমে?
বাঙালির চোখে স্বপ্ন আঁকে দফা ছয়
সাধ্য কার রুখবে ক্ষ্যাপা ছেলের জয়!
অগ্নিঝরা বজ্রকণ্ঠে মুক্তির ঘোষণা
গর্জে ওঠে লাঠি, পূর্ণতা পেল বাসনা।
ফাঁসির মঞ্চে নির্ভীক, দাবিতে অটল
জয় হলো বাঙালির, ভাঙল শেকল।
মাতৃপ্রেমে মগ্ন, ভুললে আপন-পর
পিঠে বসে ছুরি মারল পাক-দোসর।
লুটালে মায়ের কোলে উঁচু করে শির
সাক্ষী ধরণী, মৃত্যুতেও ডরে না বীর।
ক্ষমা করো পিতা, লজ্জিত জাতি বাঙালি
হারিয়ে খুঁজি, আমরা পথের কাঙালি।

প্রশ্ন ও উত্তর

দেশ কি কভু স্বাধীন হয় কুড়ানো ফলের মতো?
জনকহীন কি সন্তান হয় বেওয়ারিশের মতো?
বাদক ছাড়া বংশীতে কি ওঠে মধুর সুর?
রাত্রি ছাড়া কেউ কখনও দেখেছো কি ভোর?
লাল-সবুজের পতাকা কি কেউ করেছে দান?
তিরিশ লক্ষ মুক্তিপাগল দেয়নি কি গো প্রাণ?
কে দেখাল মুক্তির স্বপ্ন কে জাগাল নেশা?
কার তর্জনী গর্জে ওঠে খুঁজে পেতে দিশা?
সুবোধ তোমার ভয় কোথায় সত্য স্বীকারে?
কী বুঝাতে চাও গো তুমি ইঙ্গিত আকারে?
স্বাধীনতার জনক নিয়ে কেন লুকোচুরি?
সুশীল বেশে মুখে কেন মিথ্যের ফুলঝুরি?
পিতা ছাড়া দেশের জন্ম হয়নি কোনো কালে
বঙ্গবন্ধুই জাতির পিতা দিলাম তোমায় বলে,
মানতে যদি দ্বিধা লাগে থেকো না বাংলাদেশে
পাকিস্তানে চলে যাও রাজাকারের বেশে।

লেখক : সহযোগী অধ্যাপক, লোক প্রশাসন বিভাগ
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।

বিএ

আপনার মতামত লিখুন :