হন্তারক এবং বৃক্ষহীন পৃথিবী চাই

সাহিত্য ডেস্ক সাহিত্য ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৫৯ এএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

খান মুহাম্মদ রুমেল

হন্তারক

ঘরভাঙার দুঃখে কাঁদে বিরহী পাখি
দুর্বৃত্ত হায়েনা কেটেছে কৃষ্ণচূড়া বসত তার!
কী নির্মম, ভয়ানক ঔদ্ধত্য
কী অবিমৃষ্যকারী অহংকার
কেটে নেয় সে আমার প্রেমের স্মৃতি
কেটে নেয় সে আমার দ্রোহের স্মৃতি!
কেটে নেয় সে আমাদের সম্মিলিত সুন্দর!
কেটে নেয় সে নগরীর ফুসফুস!
ঘরহারা পাখির দুঃখে কাতর হও মানুষ।
পাখি তুমি বিরহী নয় বিদ্রোহী হও।
স্বার্থবাদী মানুষের থেকে বুঝে নাও অধিকার।

কেটে নেওয়া প্রতিটি গাছের অভিশাপ লাগুক
কেটে নেওয়া কৃষ্ণচূড়ার অভিশাপ লাগুক
তোর গায়ে তোদের গায়ে, হারামজাদা!

****

বৃক্ষহীন পৃথিবী চাই

কেটে নিন বৃক্ষগুলো
সাফ করে দিন লতাগুল্ম সব।
বৃক্ষেরা সব চির উচ্চশির
ছাপিয়ে যায় তোষামোদী মাথা
দোলে স্বাধীনচেতা উদ্দাম!
কেটে ফেলুন, ছেঁটে ফেলুন তাদের!

ভবন বানান সুউচ্চ বিস্তারে
তারপর লাগিয়ে নিন শীতাতপ মেশিন
মেতে উঠুন তুমুল দলাদলিতে!

বৃক্ষ মানেই খোলা বাতাস নির্মল হাওয়া
ভুলে যান এসব ফালতু বাত কা বাত!

অট্টালিকা বানান আবার ভাঙুন আবার বানান...
নতুন নির্মাণ, নতুন কড়ির ঝনঝনানি।
বৃক্ষ না হয় ফুল ফল বাতাস দেবে
বাঁচার মতো সাহস শক্তি চিন্তা দেবে!
গল্প কবিতা মুক্তচিন্তার আধার দেবে।
ওসবে কি আর ভরবে পেট আপনার আমার?

বৃক্ষছায়ায় নতুন নতুন ভাবনা হয়
বৃক্ষ জাগিয়ে তোলে শেকল ভাঙার চেতনা।

সবচেয়ে বড় কথা—
বৃক্ষের নিচে ষড়যন্ত্রী জাল বোনা সম্ভব নয়!
কেটে ফেলুন সব বৃক্ষ, এটাই আশু প্রয়োজন!

এসইউ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]