রাজধানীর জলাবদ্ধতা নিরসনে ‘ভরসা’ জেট অ্যান্ড সাকার মেশিন


প্রকাশিত: ০৫:৩৫ এএম, ০৫ জুলাই ২০১৭

রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের অদূরে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মনোগ্রাম সম্বলিত একটি গাড়ির সামনে মানুষের জটলা। গাড়িটির আকার-আকৃতি প্রচলিত গাড়ির চেয়ে একেবারেই ভিন্ন। ঝকঝকে নতুন দশ চাকার বিশাল সাইজের এ গাড়িতে মোটা পাইপসহ বিভিন্ন যন্ত্রপাতি সহজেই মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছিল।

ডিএসসিসির কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ড্রেনের ময়লা পানি ও আবর্জনা অপসারণ এবং ময়লা জমে বন্ধ হয়ে যাওয়া ড্রেন পরিষ্কারের জন্য সম্প্রতি ডিএসসিসির বহরে যুক্ত হয়েছে জেট ও সাকার নামের অত্যাধুনিক এ মেশিন।

কথা বলার সময় দেখা যায়, কয়েকজন ব্যক্তি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের উত্তর দিকে রাস্তায় জমে থাকা পানিতে গাড়ি থেকে লম্বা পাইপটি বের করে রাখলেন। কয়েক মিনিটেই রাস্তার পানি হাওয়া! এবার গাড়িটি সামনে নিয়ে পাইপ দিয়ে সেই পানি ড্রেনে রাখা হলো।

ইতালি থেকে আমদানিকৃত এ মেশিনটির দাম ১১ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। গত ২২ জুন মেয়র সাইদ খোকন এটির আনুষ্ঠানিক উদ্ভোধন করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এ জেট ও সাকার মেশিনে ২টি চেম্বার রয়েছে। ৯ টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন স্লাশ চেম্বার এবং ৬ টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন পানি চেম্বার। ড্রেনে জমে থাকা আবর্জনা জেট গতিতে পানি দিয়ে আঘাত করে পানিসহ আবর্জনা চেম্বারে জমা করে। এরপর শক্ত হয়ে যাওয়া আর্বজনা মেশিনে সংযোজিত ড্রিল দিয়ে গুঁড়া করে এয়ার ভ্যাকুয়ামের মাধ্যমে স্লাশ চেম্বারে জমা হয়। স্লাশ চেম্বারে শুধু স্লাশ সংরক্ষিত করে পানি রিফাইন হয়ে অটোমেটিকভাবে পানির চেম্বারে চলে যায়। স্লাশ চেম্বার পরিপূর্ণ হয়ে গেলে মাতুয়াইল নিয়ে গিয়ে অপসারণ করা হয়।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনেও (ডিএনসিসি) এমন একটি মেশিন রয়েছে বলে জানা গেছে। যা বর্তমানে রাজধানীর জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রধান ভরসা।

এমইউ/আরএস/আরআইপি

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]