সিদ্দিকের হত্যাকারীদের শনাক্তে নগরবাসীর সহযোগিতা চায় পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৫৮ পিএম, ১৬ নভেম্বর ২০১৭

রাজধানীর বনানীর ব্যবসায়ী সিদ্দিক হোসেন মুন্সি হত্যায় জড়িতদের পরিচয় শনাক্ত ও গ্রেফতারে নগরবাসীর সহযোগিতা চেয়েছে পুলিশ। হত্যার দুদিন অতিবাহিত হওয়ার পর বৃহস্পতিবার এ দাবি জানালো ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।

ডিএমপি বলছে, ‘এমএস মুন্সি ওভারসিজ’ নামে রিক্রুটিং এজেন্সির কর্ণধার সিদ্দিক হোসেন মুন্সি হত্যাকাণ্ডের পর সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করেছে পুলিশ।

ফুটেজে চার সন্দেহভাজন হত্যাকারীকে চিহ্নিত করা গেছে। কিন্তু তাদের বিস্তারিত পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এই চারজনকে গ্রেফতারে নগরবাসী তথা জনসাধারণের সহায়তা চায় পুলিশ।

বৃহস্পতিবার ডিএমপির নিউজ পোর্টালে হত্যাকারী চারজনের ছবি প্রকাশ করে তাদের ধরিয়ে দিতে নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

সংবাদে বলা হয়েছে, ‘গত মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর বনানীতে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের অফিসে ঢুকে কিছু সন্ত্রাসী হামলা চালালে ওই অফিসের একজন নিহত ও তিনজন আহত হন। পুলিশের সংগ্রহ করা সিসিটিভির ফুটেজে ধরা পড়ে চার সন্দেহভাজন হামলাকারীর ছবি। তাদের গ্রেফতারে পুলিশকে সহায়তা করার জন্য আমরা নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। এই সন্দেহভাজনদের কেউ দেখে থাকলে তথ্য জানাতে সরাসরি নিচের নম্বরে যোগাযোগ করতে অনুরোধ জানাচ্ছি।’

এডিসি গুলশান : ০১৭১৩ ৩৭৩১৬৭
এডিসি ডিবি : ০১৭১৩ ৩৯৮৬২৮
ওসি বনানী : ০১৭৬৯ ০৫৮০৫৩
ডিউটি অফিসার বনানী : ০১৭৬৯ ৬৯১৮০১

bb

ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মাসুদুর রহমান বলেন, সিসিটিভিতে হামলাকারীদের ছবি পাওয়া গেলেও পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। গ্রেফতারের জন্য হামলাকারীদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া জরুরি। তাই নগরবাসীর সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) রাতে সিদ্দিক হোসেন মুন্সিকে (৫০) গুলি করে হত্যা করে চার দুর্বৃত্ত। এ সময় ওই প্রতিষ্ঠানের ৩ কর্মকর্তা মির্জা পারভেজ (৩০), মোখলেসুর রহমান(৩৫) ও মোস্তাফিজুর রহমান (৩৯) গুলিবিদ্ধ হন।

এ ঘটনায় পরদিন বুধবার (১৫ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬টার দিকে বনানী থানায় নিহত ব্যবসায়ী সিদ্দিকের স্ত্রী জোৎস্না বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা চারজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

নিহত সিদ্দিক হোসেন মুন্সি তার স্ত্রী জোসনা বেগম, দুই মেয়ে সাবরিনা সুলতানা ও সাবিহা সিদ্দিক এবং ছেলে মেহেদী হাসানকে নিয়ে রাজধানীর উত্তরা ৪ নম্বর সেক্টরের ৭ নম্বর সড়কে একটি বাসায় বসবাস করতেন। তার গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলায়।

জেইউ/বিএ

আপনার মতামত লিখুন :