জানুয়ারিতে ডিএমপির সেরা যারা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৩৮ এএম, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

জানুয়ারি মাসের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনায় ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ঢাকা মহানগর পুলিশের শ্রেষ্ঠ বিভাগ নির্বাচিত হয়েছে তেজগাঁও বিভাগ। মঙ্গলবার দুপুরে ডিএমপি সদরদফতরে মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিজয়ীদের হাতে নগদ অর্থ পুরস্কার তুলে দেন ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

জানুয়ারি মাসে সেরা হলেন যারা
শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার এবিএম জাকির হোসেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার, পল্লবী জোন; শ্রেষ্ঠ পুলিশ পরিদর্শক (অফিসার ইনচার্জ) মো. শামীম অর রশিদ তালুকদার, চকবাজার থানা; শ্রেষ্ঠ পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. ওয়াহিদুজ্জামান, মিরপুর মডেল থানা; শ্রেষ্ঠ পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশনস) মো; শফিকুল ইসলাম, ভাষানটেক থানা, শ্রেষ্ঠ এসআই যৌথভাবে এসআই জুবায়ের হোসেন, মিরপুর মডেল থানা ও মারগুব তৌহিদ তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা। শ্রেষ্ঠ এএসআই যৌথভাবে এএসআই মো. হেলাল উদ্দিন, মতিঝিল থানা ও এএসআই মো. ইলিয়াস বেপারী মিরপুর মডেল থানা।

শ্রেষ্ঠ ওয়ারেন্ট তামিলকারী অফিসার এএসআই মো. ইলিয়াস বেপারী মিরপুর মডেল থানা; শ্রেষ্ঠ অস্ত্র উদ্ধারকারী অফিসার এসআই কামরুল হাসান উজ্জল, পল্লবী থানা ও এসআই মো. আ. বারিক, পিপিএম, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা; শ্রেষ্ঠ বিস্ফোরক উদ্ধারকারী অফিসার এবি এম মশিউর রহমান, অফিসার ইনচার্জ, কোতোয়ালী থানা; শ্রেষ্ঠ মাদকদ্রব্য উদ্ধারকারী অফিসার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশনস) মো. শফিকুল ইসলাম; ভাষানটেক থানা এবং শ্রেষ্ঠ চোরাইগাড়ি উদ্ধারকারী অফিসার এসআই মো. মানুনুর রশিদ তোকদার, ক্যান্টনমেন্ট থানা।

গোয়েন্দা ও অপরাধ তথ্যবিভাগের শ্রেষ্ঠ যারা
গোয়েন্দা ও অপরাধতথ্য বিভাগের শ্রেষ্ঠ বিভাগ হয়েছে ডিবি-দক্ষিণ বিভাগ। শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার হয়েছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার খন্দকার রবিউল আরাফাত, অবৈধ মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও প্রতিরোধ টিম, ডিবি দক্ষিণ; চোরাইগাড়ি উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ হয়েছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার রাহুল পাটওয়ারী, গাড়ি চুরি প্রতিরোধ টিম ডিবি পশ্চিম; মাদকদ্রব্য উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ হয়েছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার খন্দকার রবিউল আরাফাত, অবৈধ মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও প্রতিরোধ টিম। অস্ত্র উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ হয়েছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার নাজমুল হাসান ফিরোজ, ডেমরা জোনাল টিম, ডিবি পূর্ব; অজ্ঞান ও মলম পার্টি গ্রেফতারে শ্রেষ্ঠ হয়েছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. নজরুল ইসলাম, সিরিয়াস ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম।

ট্রাফিকের শ্রেষ্ঠ যারা
ট্রাফিকের শ্রেষ্ঠ বিভাগ নির্বাচিত হয়েছে ট্রাফিক-পূর্ব বিভাগ। শ্রেষ্ঠ সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার এসএম মুক্তারুজ্জামান, রামপুরা ট্রাফিক জোন; শ্রেষ্ঠ ট্রাফিক ইন্সপেক্টর- বিপ্লব ভৌমিক, রামপুরা ট্রাফিক জোন; শ্রেষ্ঠ টিএসআই/সার্জেন্ট যৌথভাবে হয়েছেন সার্জেন্ট মো. মাজেদুল হক, ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগ ও সার্জেন্ট মো. আশিকুর রহমান, ওয়ারী ট্রাফিক জোন। ট্রাফিক সচেতনতামূলক কর্মসূচির জন্য পুরস্কৃত হয়েছেন ট্রাফিক মতিঝিল জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার নাজমুন নাহার, ট্রাফিক পূর্ব বিভাগ।

বিট পুলিশিং কার্যক্রমে পুরস্কৃত হয়েছেন তেজগাঁও জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার সাত্যকি কবিরাজ ঝুলন, কোতোয়ালী জোনের সিনিয়র সহাকারী পুলিশ কমিশনার বদরুল হাসান, কামরাঙ্গীরচর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহীন ফকির বিপিএম, গেন্ডারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ কাজী মিজানুর রহমান, মোহাম্মদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জামাল উদ্দিন মীর ও যাত্রাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আনিছুর রহমান।

বিশেষ পুরস্কারে পুরস্কৃতরা হলেন যারা
অপহৃত শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার ও আসামি গ্রেফতারে মোমতাজুল এহসান আহাম্মদ হুমায়ুন, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (বাড্ডা জোন), এবিটি সদস্য গ্রেফতারে মো. নাজমুল ইসলাম, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার, সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম বিভাগ, হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটনে সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. আশরাফুল করিম, বাড্ডা জোন, সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার রাহুল পাটওয়ারী, ডিবি-পশ্চিম।

ছিনতাইকৃত টাকা ‍উদ্ধারে বিমানবন্দর জোনাল টিমের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মহরম আলী, ডিবি-উত্তর; ছিনতাইকারী গ্রেফতারে সম্মিলিতভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন পুলিশ পরিদর্শক (শহর ও যানবাহন) বিপ্লব ভৌমিক, রামপুরা ট্রাফিক জোন; এসআই মোঃ আবু তাহের ভূইয়া, বনানী থানা; সার্জেন্ট রনি আহমেদ, মতিঝিল ট্রাফিক জোন; টিএসআই হেলাল উদ্দিন, রামপুরা ট্রাফিক জোন ও এএসআই রাশেদা খাতুন, সবুজবাগ ট্রাফিক জোন।

ডাকাতি মামলার আসামি গ্রেফতারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার আহসানুজ্জামান, ডিবি দক্ষিণ; ডাকাত গ্রেফতারে সম্মিলিতভাবে এসআই মো. আজহারুল ইসলাম, কদমতলী থানা ও এএসআই মো. আসাদুজ্জামান, আদাবর থানাকে পুরস্কৃত করা হয়েছে।

এছাড়াও জাল রুপি উদ্ধারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. গোলাম সাকলায়েন, ডিবি-উত্তর, মুক্তিপণ আদায়কারী চক্র গ্রেফতারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মাহমুদ নাছের জনি, ডিবি-পশ্চিম; উস্কানিমূলক মন্তব্যকারী গ্রেফতারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার ফাতেমা ইসলাম, সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম বিভাগ; জিনের বাদশা গ্রেফতারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. আজহারুল ইসলাম মুকুল, সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম বিভাগ; ফেসবুকে অশ্লীল ছবি আপলোডকারী গ্রেফতারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার ইশতিয়াক আহমেদ, সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম বিভাগ, ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ঘটনার ওপর ত্বড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণে বাড্ডা থানার অফিসার ইনচার্জ কাজী ওয়াজেদ আলী; গণধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতারে চকবাজার মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মু. মোরাদুল ইসলাম, চোরাইগাড়ি উদ্ধারে পুলিশ পরিদর্শক (শহর ও যানবাহন) এসএম আলমগীর হোসেন, ডেমরা ট্রাফিক জোন; প্রেমিকাকে ছুরিকাহতকারীকে গ্রেফতারে এসআই খোরশেদ আলম, গুলশান থানা ও কঙ্কাল উদ্ধারে শাহবাগ ট্রাফিক জোনের কনস্টেবল মো. আসাদুল হককে বিশেষ পুরস্কারে পুরস্কৃত করা হয়।

বিশেষ ক্যাটাগরিতে পুরস্কার প্রাপ্তরা হলেন
অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন), অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস), উপ-পুলিশ কমিশনার (সদরদফর ও প্রশাসন, লজিস্টিকস, পিএসঅ্যান্ডআইআই, মিডিয়া, তেজগাঁও বিভাগ, রমনা, লালবাগ, অর্থ, কল্যাণ ও ফোর্স বিভাগ, ট্রাফিক-উত্তর, ট্রাফিক-পশ্চিম, প্রটেকশন বিভাগ, প্রসিকিউশন, ইএন্ডডি, ডিপ্লোমেটিক সিকিউরিটি, স্পেশাল অ্যাকশন গ্রুপ, কাউন্টার টেরোরিজম, ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম) ও অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদরদফর ও প্রশাসন)।

জেইউ/বিএ

আপনার মতামত লিখুন :