সাইনবোর্ডে বাংলা না লেখায় ৭ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:২৮ পিএম, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৫:৩৫ পিএম, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
সাইনবোর্ডে বাংলা না লেখায় ৭ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

সাইনবোর্ড-নামফলকে বাংলা না লেখায় রাজধানীর আসাদ গেট এলাকার সাত প্রতিষ্ঠানকে ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বৃহস্পতিবার ডিএনসিসি'র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম অজিয়র রহমানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত এ অভিযান পরিচালনা করেন।

প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে- কালার ওয়ার্ল্ড, ডিজিটাল ফটো এক্সপ্রেস, ওয়ালটন, ডমিনেটরস লিমিটেড, আদিল সিকিউরিটিজ লিমিটেড, ডিজিটাল স্টোর, তানিন বাংলাদেশ প্লাস্টিক লিমিটেড ও নর্দান কলেজ। অভিযানে এসব প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড তাৎক্ষণিকভাবে অপসারণ করা হয়।

উল্লেখ্য, হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী সব প্রতিষ্ঠানের (দূতাবাস, বিদেশি সংস্থা ও তৎসংশ্লিষ্ট ক্ষেত্র ব্যতীত) নামফলক, সাইনবোর্ড, বিলবোর্ড, ব্যানার ইত্যাদি বাংলায় লেখা বাধ্যতামূলক। স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে হাইকোর্টের আদেশটি ডিএনসিসি এলাকায় নিশ্চিতের দায়িত্ব ডিএনসিসি কর্তৃপক্ষকে দেয়া হয়।

এ প্রেক্ষিতে ২৮ জানুয়ারি জাতীয় দৈনিকে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে ডিএনসিসির এখতিয়ারাধীন এলাকার যেসব প্রতিষ্ঠানের (দূতাবাস, বিদেশি সংস্থা ও তৎসংশ্লিষ্ট ক্ষেত্র ব্যতীত) নামফলক, সাইনবোর্ড, বিলবোর্ড, ব্যানার ইত্যাদি বাংলায় লেখা হয়নি তা অবিলম্বে স্ব-উদ্যোগে অপসারণ করতে সাত দিনের সময় দিয়ে অনুরোধ জানানো হয়েছিল। এছাড়া মাইকিং, গণমাধ্যমে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিসহ ডিএনসিসির ওয়েবসাইট এবং ফেসবুক পেজেও বিজ্ঞপ্তিটি প্রকাশ করা হয়।

হাইকোর্টের আদেশ এবং ডিএনসিসির গণবিজ্ঞপ্তি বাস্তবায়ন না করার অপরাধে স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) আইন ২০০৯ অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানগুলোকে জরিমানা করা হয়।

অভিযান পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অজিয়র রহমান বলেন, ডিএনসিসি আওতাধীন সব এলাকায় মাইকিং করা ছাড়াও বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বিষয়টি জানানো হয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এছাড়া যে কোনো প্রতিষ্ঠানকে ট্রেড লাইসেন্স প্রদানের সময়ই বাংলায় নামফলক, ব্যানার, সাইনবোর্ড লেখার বিষয়ে অবহিত করা হয়। প্রত্যেকটি নামফলক, সাইনবোর্ড ইত্যাদিতে বাংলা ভাষা নিশ্চিত করতে ডিএনসিসির উচ্ছেদ অভিযান ও ভ্রাম্যমাণ আদালত অব্যাহত থাকবে।

ভ্রাম্যমান আদালত চলাকালে ডিএনসিসির প্যানেল মেয়র সদস্য আলেয়া সারোয়ার ডেইজী, জনসংযোগ কর্মকর্তা এ এস এম মামুন ও অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এএস/এএইচ/পিআর