প্রাইভেটকার চালক কখনো এসপি কখনো ম্যাজিস্ট্রেট

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২৭ পিএম, ০২ এপ্রিল ২০১৮ | আপডেট: ০৮:৩৪ পিএম, ০২ এপ্রিল ২০১৮
প্রাইভেটকার চালক কখনো এসপি কখনো ম্যাজিস্ট্রেট
ফাইল ছবি

প্রাইভেটকারের সামনে লাগানো বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের স্টিকার। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে গাড়িটি দীর্ঘসময় অবৈধভাবে পার্কিংয়ে রাখা। ট্র্যাফিক ব্যবস্থাপনায় নিয়োজিত আর্ম পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) সদস্যরা গাড়িটি সরাতে বলেন। এতে রেগে যান চালক দীন মোহাম্মদ। পুলিশ সদস্যদের পাত্তাই দিচ্ছিলেন না তিনি। তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেন সবাইকে। তার আচার-আচরণে সন্দেহ হওয়ায় তাকে ডেকে নেয়া হয় বিমানবন্দর আর্ম পুলিশ কার্যালয়ে। আর তখনই বেরিয়ে পড়ে থলের বিড়াল। ধরা পড়েন তিনি।

রোববার বিকেলে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এ ঘটনা ঘটে। পরে সিভিল এভিয়েশন ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইউসুফের আদালত তাকে তিন মাসের কারাদণ্ড দেন।

দীন মোহাম্মদের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানার ভবননাথপুরে। তিনি যে গাড়িটি চালাচ্ছিলেন সেটির নম্বর- ঢাকা মেট্রো গ-১৯৯১৫৫।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বিমানবন্দর আর্ম পুলিশের এসপি তারিক আহমেদ আস সাদিক জাগো নিউজকে জানান, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ১নং টার্মিনালের ঢোকার মুখে অবৈধভাবে পার্কিং করেন দীন মোহাম্মদ। এতে করে রাস্তায় চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছিল। তাকে গাড়িটি সরিয়ে বৈধ পার্কিংয়ে রাখার অনুরোধ জানালে রেগে যান তিনি। পরিচয় দেন তিনি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রে। এরপর অফিসে ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে আসল পরিচয়।

তিনি বলেন, ‘তিনি ম্যাজিস্ট্রেট নন। নিজে ভাড়ায় প্রাইভেট গাড়িটি চালান। গাড়ির নেই কোনো কাগজপত্র। মেয়াদোত্তীর্ণ কাগজে তিনি দিব্যি কখনো নিজেকে এসপি, কখনো ম্যাজিস্ট্রেট কখনো বা অন্য কোনো পদস্থ কর্মকর্তার পরিচয় দিয়ে গাড়িতে স্টিগার লাগিয়ে চালিয়ে আসছিলেন।’

জেইউ/জেডএ/পিআর