ঈদের পর প্রথম কর্মদিবসে সচিবালয়ে উপস্থিতি কম

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:১০ এএম, ১৮ জুন ২০১৮

ঈদুল ফিতরের তিনদিন ছুটি শেষে আজ সোমবার থেকে খুলেছে সরকারি অফিস। তবে ঈদের ছুটিতে ফাঁকা ঢাকার মতো প্রশাসনের প্রাণ কেন্দ্র সচিবালয়েও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতির হার খুবই কম। কর্মচাঞ্চল্যহীন সচিবালয়ে প্রথম কর্মদিবস ঈদের আমেজ বিরাজ করছে।

সচিবালয়ে সরজমিনে দেখা যায়, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী ও সচিবরা সচিবালয়ে এসেই কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন। ঈদের পর প্রথম কর্মদিবসে সচিবালয়ের বারান্দা, সিড়ি, লিফট, সবত্রই ঈদ চলছে শুভেচ্ছা বিনিময়। একে অপরকে দেখা মাত্রই বুকে জড়িয়ে নিচ্ছেন। ভেদাভেদ নেই কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যেও।

sochibaloy

সারাদেশে গত শনিবার (১৬ জুন) পবিত্র ঈদুল ফিতর পালিত হয়েছে। ঈদ উপলক্ষে গত শুক্র, শনি ও রোববার (১৫, ১৬, ১৭ জুন) সরকারি ছুটি ছিল। এবার ঈদের ছুটিতে দুটি সাপ্তাহিক ছুটি (শুক্র ও শনিবার) থাকায় বাড়তি ছুটি হিসেবে ছিল মাত্র একদিন রোববার (১৭ জুন)।

বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা জানান, এবার ঈদের ছুটি তিনদিন থাকায় দূর-দূরান্তে গ্রামের বাড়ি ঈদ পালন করতে যাওয়া হয়নি। তবে অনেকেই আজ (সোমবার) অফিসে যোগ দেবেন না। তারা আরও দু’একদিন ছুটি নিয়েছেন। এছাড়া অনেকে পথে রয়েছেন। অনেকে দুপুরের দিকে এসেও অফিসে যোগ দেবেন।

sochibaloy

সচিবালয়ে দায়িত্ব পালনকারী বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার কর্মীরা জানান, ঈদের পর প্রথম কর্মদিবসে সচিবালয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতি ৫০ শতাংশের মতো।

সচিবালয়ে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়, তথ্য অধিদফতর, ভূমি মন্ত্রণালয়সহ কয়েকটি মন্ত্রণালয় ঘুরে দেখা যায়, কোনো কোনো মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তার কক্ষ তালাবদ্ধ অবস্থায়ই রয়েছে। অনেক কক্ষে চেয়ার টেবিল ফাঁকা পড়ে রয়েছে। আবার যারা এসেছেন তাদের কাজে-কর্মেও অনেকটাই ঢিলেঢালা ভাব। উপস্থিত কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা মূলত পারস্পরিক খোঁজ-খবর ও শুভেচ্ছা বিনিময়েই ব্যস্ত। চারদিকে ঈদের আমেজ।

sochibaloy

সকাল সোয়া ১০টা পর্যন্ত কৃষি মন্ত্রণালয়ে ৫০৫ (ক), ভূমি মন্ত্রণালয়ের ৪০৬, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের ১০৪ নম্বর কক্ষগুলো একেবারেই খালি পড়েছিল। যদিও প্রতিটি কক্ষে ৪ থেকে ৮ জনের বসার ব্যবস্থা রয়েছে।

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব কাইয়ুম চৌধুরী জাগো নিউজকে বলেন, ‘এবার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা শুধু ঈদের তিনদিন ছুটিই পেয়েছে। অনেকের তো বাড়ি অনেক দূরে। এই সময় তো শুধু তাদের আসতে যেতেই লাগে। তাই আমাদের মন্ত্রণালয়ের অনেকেই ছুটিতে আছেন। অনেকই হয়তো পথে আছেন, কিছুক্ষণের মধ্যেই অফিসে উপস্থিত হবেন।’

sochibaloy

সচিবালয়ে লিফটগুলোর সামনে ভিড় ছিল না। সচিবালয়ে এক ও দুই নম্বর গেটের মাঝের দর্শণার্থী কক্ষটিও ছিল ফাঁকা। তবে গাড়ি রাখার স্থানগুলো অন্যান্য সময়ের মতো গাড়িতে পূর্ণ ছিল।

সোমবার সচিবালয়ে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু সচিবালয়ে এসে মন্ত্রণালয়ের কর্মীদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন বলে জানা গেছে।

আরএমএম/আরএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :