ঈদযাত্রা আরামদায়ক হবে : ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৩২ পিএম, ১৭ আগস্ট ২০১৮

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এবারের ঈদযাত্রা স্বস্তি ও আরামদায়ক হবে। রাস্তায় যেসব স্থানে সমস্যা ছিল তা সমাধান করা হয়েছে।

শুক্রবার বেলা ১১টায় রাজধানীর মহাখালী বাস টার্মিনাল পরিদর্শন ও ঈদযাত্রীদের সাথে কুশল বিনিময় শেষে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ঈদের ১০ দিন আগেই সড়কের কাজ ও খোঁড়াখুঁড়ি বন্ধ করা হয়েছে। শুধুমাত্র পশুবাহী পরিবহন যদি সঠিক লেন মেনে চলাচল করে তবে আর সমস্যা হবে না।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এবার ২৩টি সেতু প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেছেন। এর মাধ্যমে এবারের যাত্রা স্বস্তিদায়ক হবে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ফোর লেন থেকে সিক্স লেন করা হয়েছে। ঢাকা জয়দেবপুর টাঙ্গাইল রুটে ২৩টি ব্রিজ খুলে দেয়া হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, ফিটনেসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কাজ অব্যাহত রেখেছে। এর বাইরে বিআরটিএর ভিজিলেন্স টিম কাজ করছে। সবকিছু মিলিয়ে ভারি বর্ষণ না হলে গত ঈদের তুলনায় এবার স্বস্তিদায়ক হবে।

Kader-2

অধিকাংশ চালকের পেশাদার লাইসেন্স নেই, কাউন্টার থেকে বলা হচ্ছে চালকের অভাব রয়েছে। তাহলে কি এবার চালকের অভাবে কোনো সমস্যা হচ্ছে? -এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, আইনে সে রকম কিছু বলা নেই। তবে মিডিয়াম কোয়ালিটির লাইসেন্সধারীরা বাস চালাতে পারবেন।

অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ে বাস কাউন্টার বন্ধের নির্দেশ দেন মন্ত্রী

মহাখালী বাস টার্মিনাল পরিদর্শনকালে সিরাজগঞ্জের এক নারী যাত্রী স্টারলিট ক্লাসিক নামে একটি পরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার অভিযোগ করেন। এ সময় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমানসহ ওই কাউন্টারে যান মন্ত্রী। তবে মন্ত্রী যাওয়ায় খবরে পরিবহনটির কাউন্টার বন্ধ রাখা হয়। পরে মন্ত্রী সেটা বন্ধের নির্দেশ দেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তাৎক্ষণিক অভিযোগেই আমি ব্যবস্থা নিয়েছি। এছাড়া আর কোনো অভিযোগ পাইনি। আমাদের এখানে যাত্রীদের সেবাদানে ভিজিলেন্স টিম কাজ করছে। যাত্রীদের সব ধরনের সহযোগিতা দেয়া হচ্ছে। অভিযোগ পেলেই তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান, বিআরটিএ ঢাকা বিভাগের উপ-পরিচালক মো. মাসুদ আলম, ট্রাফিক উত্তরের এডিসি নাজমুল আলম, মহাখালী ট্রাফিক পুলিশের সহকারী কমিশনার আশরাফ উল্লাহ প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

জেইউ/আরএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :