হাতিরঝিলের পানিতে থাকবে না দুর্গন্ধ!

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:০৭ পিএম, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

রাজধানীর হাতিরঝিলের লেকের পানিতে বোটিং কিংবা পাশ দিয়ে হেঁটে বেড়ানো দুষ্কর হয়ে উঠেছে। প্রতিনিয়ত উৎকট গন্ধ ছড়াচ্ছে পানি। নগরবাসীর নির্মল শ্বাস-প্রশ্বাস নেয়ার এ মুক্ত বিনোদনকেন্দ্রের পানি দূষিত হয়ে ওঠায় হতাশ পর্যটকেরা। তবে, আশার কথা হাতিরঝিলের পানি দুর্গন্ধমুক্ত করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এয়ারেশন, রাসায়নিক ও বায়োলজিক্যাল প্রক্রিয়ার মাধ্যমে লেকের পানি দূষণমুক্ত করা হবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

আশপাশের এলাকার পচা আবর্জনা ঝিলে প্রবেশ করে নষ্ট করছে পানির স্বচ্ছতা। এ পানি দীর্ঘদিন ঝিলে আটকে থাকায় ক্রমেই পানির রং কালো ও সবুজ হয়ে পড়ছে। দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে ঝিলপাড় ও আশপাশের এলাকায়। দূষিত পানির ওপর দিয়ে প্রতিদিন চলাচল করেছে ওয়াটার ট্যাক্সি। এ থেকে সৃষ্ট ঢেউয়ের কারণে চারদিকে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ছে। ফলে কোনো সৌন্দর্যই কাজে আসছে না।

Hatirjheel

এর আগে পানির দুর্গন্ধ নির্মূলে হাতিরঝিল উন্নয়ন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ প্রথমে পানি পরীক্ষা করিয়েছে। চলতি বছরের শুরুর দিকে পানি পরীক্ষার ফলাফল হাতিরঝিল কর্তৃপক্ষ হাতে পায়। এরপরে তিন ধাপে লেকের পানি গন্ধমুক্ত করার উদ্যোগ নেয়। যা দুই এক মাসের মধ্যে বাস্তবায়ন করার কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন হাতিরঝিল প্রকল্প পরিচালক জামাল আক্তার ভূঁইয়া।

তিনি জানান, হাতিরঝিলের পানি গন্ধমুক্ত করার লক্ষ্যে ইতোমধ্যে একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া শেষের দিকে। প্রায় ৪৯ কোটি টাকা ব্যয়ে কাজটি করা হচ্ছে।

জানা গেছে, হোটেল সোনারগাঁও এর পেছনে কাঁঠাল বাগান এলাকার বক্স কালভার্টের ময়লা পানি আর হাতিরঝিলে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। ওই ময়লা পানি বদ্ধস্থানে শোধন করে পাম্পের মাধ্যমে নিষ্কাশন করা হবে।

Hatirjheel

এছাড়া হাতিরঝিলের লেকের সঙ্গে যেসব পয়নিষ্কাশন সংযোগ রয়েছে তা অতি দ্রুত সরিয়ে ফেলা হবে। পানি সুন্দর রাখার জন্য লেকের পানিতে বায়ু সঞ্চালন করা হবে উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন মেশিনের মাধ্যমে। দুর্গন্ধ দূর করতে পানিতে অক্সিজেনের পরিমাণ বাড়ানোর জন্য এক ধরনের রাসায়নিক স্প্রে করা হবে।

হাতিরঝিলের ওয়াটার ট্যাক্সিতে চলাচল করেন রাহাত হোসেন। তিনি বলেন, ওয়াটার ট্যাক্সিতে যাতায়াতকারীরা পানির দুর্গন্ধে বিড়ম্বনা পোহায়। বেশিরভাগ সময়ই হাতিরঝিলের পানিতে দুর্গন্ধ থাকলেও কিছু কিছু সময় দুর্গন্ধের মাত্রা চরমে পৌঁছায়। হাজার হাজার যাত্রী প্রতিদিন ওয়াটার ট্যাক্সিতে চলাচল করে। এছাড়া প্রতিদিনই প্রচুর দর্শনার্থী আসে হাতিরঝিলে। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উচিত পানির দুর্গন্ধ দূর করতে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

এএস/এমআরএম/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :