মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের হাতে থাকবে পাটের ব্রিফকেস

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৩৩ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এখন থেকে মন্ত্রিসভার বৈঠকে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের হাতে থাকবে পাটের ব্রিফকেস। ইতোমধ্যে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় থেকে মন্ত্রিসভা বৈঠকে ব্যবহারের জন্য ৭০টি পাটের ব্রিফকেস সরবরাহ করা হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আগামী বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে সদস্যদের হাতে চামড়ার ব্রিফকেসের পরিবর্তে পাটের সোনালি ব্রিফকেস থাকবে।

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, গত বুধবার (২৬ সেপ্টেম্বর) ব্রিফকেসগুলো মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমের কাছে হস্তান্তর করেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম। প্রতিটি ব্রিফকেসের দাম পড়েছে সাড়ে তিন হাজার টাকা।

মন্ত্রিসভা বৈঠকের আলোচ্যসূচিসহ প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস মন্ত্রীসহ মন্ত্রিসভার সদস্যদের কাছে পাঠানোর কাজে ব্রিফকেস ব্যবহার করা হয়। এতদিন মন্ত্রিপরিষদ বৈঠকের আলোচ্যসূচিসহ সব কাগজপত্র চামড়ার তৈরি কালো রঙের ব্রিফকেসে পাঠানো হতো।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রোববার মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম জাগো নিউজকে বলেন, ‘বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে পাটের ব্রিফকেসগুলো আমরা ইতোমধ্যে পেয়েছি। মন্ত্রিসভার ডকুমেন্টসসহ সেগুলো মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীদের কাছে পাঠানো হয়েছে। আগামী বুধবার (৩ অক্টোবর) মন্ত্রিসভার বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। সেই বৈঠকে প্রথমবারের মতো মন্ত্রীদের হাতে পাটের ব্রিফকেস থাকবে।’

jute

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, পাটের সুদিন ফেরাতে পাটের নানামুখী ব্যবহার নিয়ে কাজ চলছে। এরই অংশ হিসেবে বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মন্ত্রিসভায় চামড়ার পরিবর্তে পাটের ব্রিফকেস ব্যবহারের প্রস্তাব দেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই প্রস্তাব গ্রহণ করে পাটের ব্রিফকেস সরবরাহের নির্দেশ দেন।

পাটের ব্রিফকেস টেকসই ও দামে সাশ্রয়ী। চামড়ার ব্রিফকেসের অর্ধেক দামে এটি পাওয়া যায় বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।

আরএমএম/এমএআর/আরআইপি