চিকিৎসা পাচ্ছেন না কর্মস্থলে আহত বিমান শ্রমিক

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৪৭ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০১৮

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কার্গোর মালামাল ডেলিভারি দিতে গিয়ে গুরুতর আহত হন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের শ্রমিক মো. হাওলাদার নুরুল হুদা (সি নম্বর- ৫০৭)। এখন তিনি বিনা চিকিৎসায় কাতরাচ্ছেন, পড়ে আছেন বাসায়।

জানা গেছে, গত ৫ অক্টোবর কর্মস্থলে গুরুগত আহত হন মো. হাওলাদার নুরুল হুদা। কর্মরত অবস্থায় এমন মর্মান্তিক দুর্ঘটনার শিকার হওয়া এই কার্গো হেলপারের পাশে দাঁড়ায়নি বিমান কর্তৃপক্ষ। ক্যাজুয়াল (অস্থায়ী) শ্রমিক হওয়ায় দুই সপ্তাহ পার হলেও বিমান কর্তৃপক্ষ তার কোনো দায়িত্ব নিচ্ছে না বলে অভিযোগ। এতে ক্যাজুয়াল শ্রমিকদের মধ্যে ক্ষোভের দানা বাঁধছে।

এদিকে সহকর্মীদের কাছ থেকে দু-চার পাঁচশ’ টাকা করে চাঁদা তুলে কয়েকদিন চিকিৎসা খরচ চললেও এখন জখম ও বিকল পা নিয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন।

অথচ তিনি ৩২ বছর ধরে কলুর বলদের মতো বিমানের জন্য খেটেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন করিম নামে তার এক সহকর্মী।

করিম জানান, কার্গো ডেলিভারির এক নম্বর গেটে ট্রলি সরানোর সময় নুরুল হুদা পায়ে জখম হন। মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনার পর বিমান কর্তৃপক্ষ কোনো প্রকার সহানুভূতি দেখায়নি। আমরা তাৎক্ষণিকভাবে সহকর্মীরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাই, সামান্য কিছু চিকিৎসা নিয়ে তিনি এখন বাসায় পড়ে আছেন।

তিনি বলেন, আমাদের মতো শ্রমিকরা যদি না বাঁচি তবে, কে দেখভাল করবে আধুনিক ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজের?

এ বিষয়ে বিমানের মুখপাত্র মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ জাগো নিউজকে বলেন, গত বোর্ড মিটিংয়ে এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। কর্মস্থলে কোনো ক্যাজুয়াল শ্রমিক আহত হলে তার চিকিৎসার খরচ বহন করবে বিমান কর্তৃপক্ষ।

তিনি বলেন, গুরুতর আহত বিমান শ্রমিক মো. হাওলাদার নুরুল হুদার বিষয়ে আমার জানা নাই। যদি কর্মস্থলে এ দুর্ঘটনা ঘটে থাকে, তবে তিনি আমাদের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের নিকট আবেদন করতে পারেন। এতে তিনি প্রয়োজনীয় সুবিধা পাবেন।

আরএম/জেডএ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :