গোল্ডেন রাইস নিষিদ্ধের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:১২ পিএম, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

দেশি জাতের বীজ রক্ষাসহ ‘গোল্ডেন রাইস’ বন্ধের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশনসহ কয়েকটি সংগঠন। বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘গোল্ডেন রাইস একটি জেনেটিক্যালি মডিফাইড ধান। বাংলাদেশে গোল্ডেন রাইস প্রচলিত হলে কৃষি ও কৃষকের চরম ক্ষতি সাধিত হবে। ভারতের বিভিন্ন প্রদেশের জিএমও বিটি চাষ করে কৃষকরা ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছেন। তাই এ ধান বাংলাদেশে চাষ করা হলে কৃষকের নিজস্ব বীজ সংরক্ষণ ও উৎপাদন প্রক্রিয়া চূড়ান্তভাবে ব্যাহত হবে।’এ সময় দেশি বীজ সংরক্ষণের দাবি জানান তারা।

মানববন্ধনে আয়োজক সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে বেশ কিছু দাবি তুলে ধরা হয়। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশে যেন গোল্ডেন রাইস প্রবর্তন না করা হয়; বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় যেন গোল্ডেন রাইসকে ছাড়পত্র না দেয়; বিটি বেগুনের বাণিজ্যিক চাষাবাদ বন্ধ করতে হবে; পরিবেশ বিধ্বংসী ও স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর কোনো প্রকার ফসলের চাষাবাদ অনুমোদন দেয়া যাবে না এবং অতিমাত্রায় রাসায়নিক সার ও কীটনাশক নির্ভর ফসল চাষাবাদের অনুমোদন দেয়া যাবে না।

বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশনের সভাপতি বদরুল আলমের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টির মহানগর শাখার সভাপতি শ্রমিক নেতা আবুল হোসাইন, শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এ এ এম ফয়েজ হোসেন প্রমুখ।

‘গোল্ডেন রাইস’ হলো বিটা-ক্যারোটিন সমৃদ্ধ অনন্য এক ধরনের ধান। এ ধানের চাল সোনালি বর্ণের। বিটা-ক্যারোটিন মানুষের শরীরে প্রয়োজন অনুযায়ী ভিটামিন-এ-তে রূপান্তরিত হয়। জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের মাধ্যমে ভুট্টা থেকে সংশ্লিষ্ট জিন সন্নিবেশ করে এ ধান উদ্ভাবন করা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইআরআরআই) ও বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিআরআরআই) এ ধান উদ্ভাবন করেছে।

এএস/এসআর/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :