ডেল্টা প্ল্যান বাস্তবায়নে নেদারল্যান্ডস-বাংলাদেশের দুই সমঝোতা

কূটনৈতিক প্রতিবেদক কূটনৈতিক প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:১০ পিএম, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

বাংলাদেশের ডেল্টা প্ল্যান ২১০০ বাস্তবায়নের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে নেদারল্যান্ডসের দুটি বিখ্যাত প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশ সরকার। দুটি প্রতিষ্ঠানের একটি হলো- ‘ইহে ডেল্ফট’, যা সারা বিশ্বে পানিবিষয়ক গবেষণা, উচ্চতর শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। অন্যটি- ডেল্টার্স, যা ওয়াটার মডেলিং ও গবেষণার ক্ষেত্রে স্বনামধন্য ডাচ স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান।

গত ১৩ ফেব্রুয়ারি নেদারল্যান্ডসে সমঝোতা স্মারক দুটিতে স্বাক্ষর করেন বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে পানিসম্পদ সচিব কবির বিন আনোয়ার এবং ডেল্টার্স ও ইহে ডেল্ফট’র পক্ষে যথাক্রমে ইয়াপ কোয়াডাইক (বৈজ্ঞানিক পরিচালক, ইহে ডেল্টার্স) এবং প্রফেসর এডি মুরস (রেক্টর, ইহে ডেল্ফট)।

Signing-2

স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে নেদারল্যান্ডসে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শেখ মুহম্মদ বেলাল, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহা-পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মো. মাহফুজুর রহমান, দূতাবাস এবং প্রতিষ্ঠান দুটির অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

শুক্রবার মন্ত্রণালয় থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

Signing-3

এতে বলা হয়, দেশের পানিসম্পদের উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনায় যথাযথ গবেষণা, বাংলাদেশের শিক্ষার্থী ও তরুণ পেশাজীবীদের উচ্চশিক্ষা, প্রশিক্ষণ ইত্যাদি বিষয়ে নেদারল্যান্ডসের দুটি বিখ্যাত প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়েছে। ২০১৫ সালের নভেম্বর মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেদারল্যান্ডসে সরকারি সফর পরবর্তী চলমান কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এবং বাংলাদেশ ডেল্টা প্ল্যান ২১০০ বাস্তবায়নের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে সমঝোতা স্মারক দুটি স্বাক্ষরিত হলো।

ডেল্টার্স’র সঙ্গে স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারকের আলোকে প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়কে পানিবিষয়ক গবেষণা, বিশেষ করে ডেল্টা পরিকল্পনা, নদী ব্যবস্থাপনা, নীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন, বন্যা ও খরা মোকাবেলা, পানির গুণাগুণ ও পরিমাণ নিশ্চিত, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, উপকূলীয় পোল্ডার ব্যবস্থাপনা সর্বোপরি ভূ-প্রকৌশল, নদী ও উপকূল ব্যবস্থাপনায় প্রয়োজনীয় প্রকৌশল সহায়তা প্রদান করবে।

Signing-4

ইহে ডেল্ফট’র সঙ্গে স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারকের ফলে প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের জন্য উপযোগী স্বল্পমেয়াদি বিভিন্ন কোর্স, মাস্টার্স ও পিএইচডি পর্যায়ে বাংলাদেশি তরুণ পেশাজীবী/পানি বিশেষজ্ঞদের দক্ষতা উন্নয়ন ও সক্ষমতা বৃদ্ধিতে কাজ করবে। বিভিন্ন মেয়াদের এসব প্রশিক্ষণ ও কোর্সে অন্তর্ভুক্ত থাকবে অববাহিকা অঞ্চলের পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা, পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনায় উদ্ভাবনাময় এবং বাস্তবিক সমাধান নির্ধারণে যৌথ গবেষণা। তাছাড়া, পানিসম্পদের উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে বাংলাদেশ পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবিত আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট স্থাপনে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দেবে।

জেপি/জেডএ/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :