দমে যাওয়ার প্রশ্নই আসে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৪৩ পিএম, ০৩ মার্চ ২০১৯

বাধা এলেও পুরান ঢাকার কেমিক্যাল গোডাউন উচ্ছেদ কার্যক্রম থেকে সরে আসবেন না বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

রোববার সচিবালয়ে ২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস এবং ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস শান্তিপূর্ণভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে আয়োজিত সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান তিনি।

চকবাজারে কেমিক্যালের গোডাউন উচ্ছেদে গেলে ব্যবসায়ীরা বাধা দেন। এভাবে বাধাগ্রস্ত হলে এবারও সরকার দমে যাবে কিনা- জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘দমে যাওয়ার তো প্রশ্নই আসে না। যেখানে এত মানুষ হতাহত হচ্ছে জনস্বার্থে দমে যাওয়ার প্রশ্নই আসে না। এখানে মেয়র মহোদয় একটা সিদ্ধান্ত দেবেন; তিনি তার নগরে কোথায় কোনটা রাখবেন। জাতীয় ভাবেও আমরা নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন যে, নিমতলীর ঘটনার পরই আমরা জাতীয় পর্যায়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম পুরান ঢাকায় এসব কেমিক্যাল ফ্যাক্টরি যাতে না থাকে। এ ধরনের দাহ্য পদার্থের গোডাউলগুলো যাতে সরিয়ে নেয়া হয়। আমরা দেখেছি প্রাথমিকভাবে কয়েক বছর তারা এটা মেনে নিয়ে ছিলেন, এখন দেখছি তারা আবার এ কর্মটি করছেন। যার খেসারত আমাদের দিতে হলো।’

‘এ ব্যাপারে আমরা সিরিয়াস একটা নীতিমালা তৈরি করব। এবং সেটা যাতে সবাই মানে সেজন্য উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে। এজন্য মুখ্য ভূমিকা পালন করছেন আমাদের দক্ষিণের মেয়র। তিনি যেভাবে সহযোগিতা চাইবেন বা চাচ্ছেন আমরা সেই কাজটিই করছি’- বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

Home

নীতিমালা করার বিষয়টি দীর্ঘ প্রক্রিয়ার বিষয়, উচ্ছেদ কার্যক্রম দীর্ঘসূত্রতার মধ্যে পড়ে যাচ্ছে কিনা- জানতে চাইলে আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘মোটেই না। আমাদের প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে অত্যন্ত সিরিয়াস, তিনি একটা দিকনির্দেশনা দিয়েছেন, এখান থেকে সরিয়ে নেয়ার জন্য। সেগুলো সরিয়ে নেয়া হচ্ছে পর্যায়ক্রমে। আপনারা দেখেছেন ট্রাক লেগে গেছে এগুলো সরিয়ে নেয়ার জন্য।’

তিনি বলেন, ‘যারা বাধা দিয়েছেন তাদের ভুল ভাঙবে, তারা নিজেরাই সহায়তা করবেন সরিয়ে নেয়ার জন্য।’

চকবাজারের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তদন্ত প্রতিবেদন আমরা প্রকাশ করব। এটা আমরা খুব ম্যাথডিক্যালি দেখছি যাতে কোনো কিছু বাদ না যায়। আমাদের হয়ে গেছে প্রায়। আমরা স্বল্প সময়ের মধ্যে এটা দেব।’

আরএমএম/এনডিএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :