বিমানবন্দরে অস্ত্রসহ আটক আওয়ামী লীগ নেতার জামিন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৫৪ পিএম, ১২ মার্চ ২০১৯

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অস্ত্র নিয়ে প্রবেশের অভিযোগে আটক যশোরের চৌগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী মাসুদ চৌধুরীর জামিন আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার ফৌজদারি কার্যবিধি ৫৪ ধারায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় মেহেদী মাসুদ চৌধুরীর আইনজীবী আমিনুল ইসলাম জামিনের আবেদন করেন। জামিন আবেদনে তার বৈধ অস্ত্রের লাইসেন্স আদালতে উপস্থাপন করা হয়। ঢাকা মহানগর হাকিম ধীমান চন্দ্র মণ্ডল লাইসেন্সের তথ্যটি পর্যালোচনা করে পাঁচ হাজার টাকা মুচলেকায় তার জামিন মঞ্জুর করেন।

আদালতে বিমানবন্দর থানার সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আলম মিয়া বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেন।

এর আগে সোমবার তাকে এভিয়েশন নিরাপত্তা সংস্থা এভসেক আটক করে।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক উইং কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল ফারুক বলেছিলেন, নিয়ম না মেনে ঘোষণা ছাড়া শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অস্ত্র নিয়ে প্রবেশ করায় মেহেদী মাসুদ চৌধুরীকে আটক করা হয়। আমাদের এভিয়েশন নিরাপত্তা গ্রুপ এভসেক তাকে আটক করে বিমানবন্দর থানা পুলিশে হস্তান্তর করে।

সোমবার রাতে মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা তানভীর আহমেদ স্বাক্ষরিক এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মাসুদ চৌধুরী ঢাকা থেকে যশোরগামী নভোএয়ারের একটি বিমানের যাত্রী ছিলেন।

ওইদিন বিকেল সাড়ে ৪টায় মাসুদ চৌধুরী যশোর যাওয়ার উদ্দেশে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসেন। অভ্যন্তরীণ টার্মিনালে ঢোকার সময় চেকিং পয়েন্টে পৌঁছালে তার হ্যান্ডব্যাগ স্ক্যান করার সময় বিমানবন্দরের নিরাপত্তা কর্মীরা স্ক্যানিং মেশিনে একটি পিস্তলসহ সাত রাউন্ড গুলি শনাক্ত করেন।

বিমানবন্দরের নিরাপত্তা কর্মীদের জিজ্ঞাসাবাদে মাসুদ চৌধুরী জানান তিনি যশোরের চৌগাছার ফুলসাহারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই অবৈধভাবে পিস্তল ও গুলি হ্যান্ডব্যাগে বহনের অপরাধে তাকে পুলিশে সোপর্দ করে।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামে বিমান ছিনতাই-চেষ্টার ঘটনায় প্রাপ্ত খেলনা পিস্তলের তদন্ত শেষ না হতেই গত ৫ মার্চ লাইসেন্স করা পিস্তল নিয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের স্ক্যানিং মেশিন পার হন চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। ইলিয়াস কাঞ্চনের পিস্তল বিতর্ক শেষ না হতে না হতেই গত ৮ মার্চ শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনালে প্রথম চেকিং পার হওয়ার পর নিজের সঙ্গে অস্ত্র থাকার কথা স্বীকার করেন মামুন আলী নামে এক যাত্রী। পরবর্তীতে যাত্রী মামুন পিস্তল ও গুলি এয়ারলাইন্সের মাধ্যমে নিয়ম মেনে সঙ্গে করে সিলেটে নিয়ে যান।

এরপর ঘোষণা ছাড়াই অস্ত্র নিয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রবেশের অভিযোগে এক আওয়ামী লীগ নেতাকে বিমানবন্দরে আটক করা হলো।

জেএ/জেএইচ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :