শিশুদের শৈশব যেন হারিয়ে না যায় : শিক্ষামন্ত্রী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৪২ এএম, ০৩ এপ্রিল ২০১৯
শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির হাত থেকে পুরস্কার ও সনদপত্র গ্রহণ করছে গভ. ল্যাবরেটরি স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র সাকীফ বায়েজিদ আহসান।

শিক্ষার্থীদের শৈশব ও কৈশোর যেন হারিয়ে না যায় সেদিকে নজর রাখতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে পিইসি ও জেএসসি পরীক্ষায় কৃতী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে এ আহ্বান জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘জিপিএ ফাইভ ও জিপিএ গোল্ডেন পাওয়ার প্রতিযোগিতায় শিশুদের শৈশব-কৈশোর হারিয়ে যাচ্ছে। সবাই খেয়াল রাখবেন প্রতিযোগিতার কারণে যেন শিশুদের আনন্দ হারিয়ে না যায়।’

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডা. দীপু মনি বলেন, ‘দেশের রাজনীতিতে কিছু পরাশক্তি রয়েছে, রাজনীতির নামে একটি অপরাজনীতি আছে, যারা নারীদের এগিয়ে যাওয়ার পথে অন্তরায়। মৌলবাদের দোহাই দিয়ে যারা নারীদের পিছিয়ে রাখতে চায় তাদের প্রত্যাখ্যান করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘যারা মৌলবাদকে প্রশ্রয় দেয়, জঙ্গিবাদকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়, তারা যদি ক্ষমতায় যায়, তাহলে তারা আপনার-আমার এগিয়ে যাওয়ার পথে বাধা হবে। আপনার কন্যাসন্তানের এগিয়ে যাওয়ার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াবে। সেটা শুধু সমাজ বা রাষ্ট্র নয়, পুরো বিশ্বের প্রতিবন্ধকতা। যারা নারীর এগিয়ে যাওয়ার পথে বাধা, যারা ধ্বংসযজ্ঞকে পছন্দ করে আমরা যেনও তাদের প্রত্যাখ্যান করি।’

শিক্ষামন্ত্রী প্রশ্ন ফাঁস ও নকল রোধে অভিভাবক ও গণমাধ্যমকর্মীদের সহায়তা চান।

ডিআরইউ মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে পিএসসি ও জেএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৫০ জন শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। ডিআরইউ’র পক্ষ থেকে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে দুই হাজার টাকা, ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী।

ডিআরইউ সভাপতি ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সাংবাদিক আরিফুর রহমান বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ডিআরইউ সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান এতে স্বাগত বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত শিক্ষার্থী, তাদের অভিভাবক এবং ডিআরইউ’র বিভিন্ন পর্যায়ের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

জেপি/বিএ

আপনার মতামত লিখুন :