প্রোগ্রামিংয়ে মেয়েরা আসলে প্রজন্ম সমৃদ্ধ হবে

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:১৮ পিএম, ২০ জুলাই ২০১৯

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ‘কম্পিউটার প্রোগ্রামিং একটি সৃজনশীল কাজ। এ কাজে দেশের মেয়েরা যত বেশি এগিয়ে আসবে তাদের হাত ধরে জ্ঞানভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় আগামী প্রজন্ম ততো বেশি সমৃদ্ধ হবে।’

সম্প্রতি নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত এসিএম- ইন্টারন্যাশনাল গার্লস প্রোগ্রামিং কনটেস্ট ২০১৯ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব বলেন।

তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল শিল্প বিপ্লব বা চতুর্থ শিল্প বিপ্লবসহ রোবটিক, আইওটি, বিগডাটা কিংবা ব্লকচেইনের মতো প্রযুক্তির বিস্ময়কর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রোগ্রামিং কার্যকর একটি হাতিয়ার।’

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘প্রোগ্রামিং কঠিন কোনো কাজ নয়। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রযুক্তি যাই আসুক না কেন, প্রযুক্তির চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে টিকে থাকার জন্য প্রোগ্রামিং প্রয়োজন। দেশে প্রোগ্রামিং উৎসাহিত করতে গত এক বছর আগে জাতীয় পর্যায়ে জাতীয় শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার যাত্রা আমরা শুরু করেছি।’

দেশে নারী শিক্ষার অগ্রগতি চিত্র তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, ‘নারী শিক্ষা বিস্তারে এবং নারীর ক্ষমতায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার যুগান্তকারী বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়নের ফলে দেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহে মোট শিক্ষার্থীর শতকরা ৫৩ ভাগ নারী। মেয়েরা প্রোগ্রামিংয়ে কম, তবে তাদের প্রোগ্রামিংয়ে আগ্রহ বাড়ছে।

ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচি তথা তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি বিকাশে গত দশ বছরে বাংলাদেশের সফলতা বিশ্বে একটি অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপান্তর ও অর্জনে বাংলাদেশ যা করেছে অনেক উন্নত দেশ তা কল্পনাও করতে পারেনি।’

অনুষ্ঠানে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর আতিকুল ইসলাম, প্রো-ভিসি জিইউ আহসান এবং সহযোগী অধ্যাপক ডা. সাজ্জাত হোসেন বক্তব্য দেন।

আরএম/এমআরএম/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :