‘অ্যাপে তিন মিনিটেই টিকিট হাওয়া’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:১৯ পিএম, ৩০ জুলাই ২০১৯

যাত্রীদের সুবিধার্থে অ্যাপ ও অনলাইনে ট্রেনের টিকিট বিক্রি করছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। তবে অনলাইনে বিক্রি শুরুর মাত্র তিন মিনিটেই ট্রেনের টিকিট শেষ হয়ে গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) রাজধানীর কমলাপুর রেল স্টেশনে একাধিক যাত্রী এমন অভিযোগ করেন।

দীর্ঘ লাইনে দাঁড়ানো রাজিব নামের একজন জাগো নিউজকে বলেন, অনলাইনে (অ্যাপ) টিকিট বিক্রি শুরু হয় সকাল ৬টায়। আমি ৮ আগস্টের টিকিটের জন্য সকাল ৬টা ৩ মিনিটে অনলাইনে প্রবেশ করি। কিন্তু রাজশাহীর এসি টিকিট পাইনি।

তিনি আরও বলেন, তিন মিনিটের মধ্যে কীভাবে টিকিট শেষ হয়ে গেল? এটা বিশ্বাস হচ্ছে না। এখানে অবশ্যই কোনো অনিয়ম রয়েছে, তা না হলে এত তাড়াতাড়ি কীভাবে টিকিট বিক্রি হলো? পরে নরমাল টিকিটের জন্য ঢুকেও কোনো টিকিট কিনতে পারিনি, সার্ভার সমস্যা দেখিয়েছে।

পরে বাধ্য হয়ে সকাল ৭টার দিকে কমলাপুর স্টেশনে লাইনে দাঁড়িয়েছেন বলেন জানান তিনি।

অ্যাপের মাধ্যমে টিকিট ক্রয়ে ব্যর্থ আরেক যাত্রী সামসুল আলম বলেন, ৬টা ২০ থেকে সাড়ে ৬টা পর্যন্ত অনলাইনে ঢোকার চেষ্টা করেছি, কিন্তু পারিনি। এরপর যখন ঢুকতে পেরেছি তখন কোনো টিকিট পাইনি। এখানে অবশ্যই কোনো কারসাজি চলছে।

Rail-2

ভুক্তভোগী রেজাউন নাহার লিজা বলেন, সকাল ৬টা থেকে অ্যাপস-এ ঢুকে টিকিট কাটার চেষ্টা করি। সাড়ে ৬টা পর্যন্ত অ্যাপসে ঢোকাই যাচ্ছিল না। একবার ঢুকে দুটি ট্রেনের সিট পেলেও অনলাইনে পেমেন্ট নিচ্ছিল না। ৭টার সময় সর্বশেষ ঢুকতে পেরে দেখি জামালপুর রুটের চারটি ট্রেনের সব টিকিট শেষ।

তবে যাত্রীদের এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে রেলওয়ের ই-সেবা প্রদানকারী বেসরকারি প্রতিষ্ঠান কম্পিউটার নেটওয়ার্ক সিস্টেম (সিএনএস) লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক জিয়াউল আহসান সরোয়ার বলেন, আমরা স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় টিকিট বিক্রি করছি, এখানে অনিয়মের কোনো সুযোগ নেই। ১৫শ’ এসি টিকিট অনলাইনে দেওয়া আছে। এখন যদি ১৫ হাজার লোক একসঙ্গে ঢুকে তাহলে সবাই টিকিট পাবেন কিভাবে?

তিনি আরও বলেন, মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) ১০ হাজার ২০০ টিকিট অনলাইনে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে সকাল সাড়ে ১০টার মধ্যে ৯ হাজার ৪০০ টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। বাকি আছে মাত্র ৮০০ টিকিট। এখানে যারা টিকিট কিনেছে তাদের আইডি ও মোবাইল নম্বর আছে। অনিয়ম করে টিকিট কাটার সুযোগ নেই। আমরা সিস্টেম ফাস্ট করে দিয়েছি, প্রথম ঘণ্টায় সাড়ে ৬ হাজার টিকিট বিক্রি হয়েছে। টিকিট সীমিত তাই সবাই পাবে না এটাই স্বাভাবিক।

কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার মোহাম্মদ আমিনুল হক জাগো নিউজকে জানান, ঈদ উপলক্ষে আজকে (মঙ্গলবার) আন্তঃনগর, মেইলসহ তিনটি স্পেশাল ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। আজ (মঙ্গলবার) ২৭ হাজার ৮৮৫টি টিকিট দেওয়া হচ্ছে ৮ আগস্টের জন্য। এর মধ্যে কমলাপুর স্টেশন থেকে ১৬টি ট্রেনের ১৩ হাজার ৭৩৫টি টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে।

লাইনে দাঁড়ানো সবাই টিকিট পাবেন কি না -জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের সক্ষমতা অনুযায়ী আমরা টিকিট বিক্রি করছি। সবাইকে টিকিট প্রদান করা সম্ভব হবে না। তবে কোনো রকম ঝামেলা ছাড়াই টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে, যতক্ষণ পর্যন্ত টিকিট থাকবে ততক্ষণ বিক্রি করা হবে।

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে ২৯ জুলাই (সোমবার) থেকে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, ৩০ জুলাই ৮ আগস্টের টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। এছাড়া ৩১ জুলাই ৯ আগস্টের, ১ আগস্ট ১০ আগস্টের এবং ২ আগস্ট ১১ আগস্টের অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে।

এসআই/আরএস/পিআর