ফেসবুক বন্ধুদের নিয়ে অন্যরকম মিলনমেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৪ পিএম, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

একজন ভালো বন্ধুর সহযোগিতায় পাল্টে যেতে পারে জীবনের মোড়, পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে জীবনের গল্প। একজন ভালো বন্ধু হতে পারে জীবনের স্বপ্নদ্রষ্টা। এমন সব ভাবনা থেকে ফেসবুক বন্ধুদের নিয়ে রাজধানীতে এক অন্যরকম মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ফেসবুকেই আমন্ত্রণ জানানো হয় এই অনুষ্ঠানের, আর সেই আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে এসেছে হাজারো ফেসবুক বন্ধুরাও। অনাড়ম্বর এই অনুষ্ঠানে পরিশ্রম আর নিষ্ঠার সঙ্গে চেষ্টা কীভাবে জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছে এমন সব গল্প শুনিয়েছেন অনেকে।

শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ মিলনায়তনে ফেসবুক বন্ধুদের মিলনমেলা এবং ফেসবুক ব্যবহারের ইতিবাচক-নেতিবাচক দিক নিয়ে উন্মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে টেকনো মিডিয়া লিমিটেডের পরিচালক ড. যশোদা জীবন দেবনাথ (সিআইপি)। তিনি নিজের জীবনের সাফল্যের গল্প শোনান আর ফেসবুক বন্ধুদের নানা প্রশ্নের উত্তর দেন।

আড্ডায় যোগ দেন শিল্পপতি জামান আহমেদ, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব শাকিল বিন মুস্তাক, রাজিব খান, ব্যাংকার হাবিব আহমেদ। তারা প্রত্যেক নিজ নিজ জায়গায় সফলতার চরম শিখরে পৌঁছেছেন নিজেদের পরিশ্রম আর চেষ্টায়। তাদের এ সাফল্যের পেছনে জীবনের কোনো না কোনো সময় বন্ধুদের অবদান ছিল। সেই অবদানের কথা শোনালেন তারা।

FB

‘জিরো’ থেকে শুরু করে এখন সিঙ্গাপুরে জামান টাওয়ারের মালিক শিল্পপতি জামান আহমেদ। তিনি বললেন, কঠোর পরিশ্রম করলে আর সততা থাকলে জীবনে অনেক বড় হওয়া যায়। তার জীবনের পরিবর্তনে বন্ধুরাও বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেছেন বলে জানান তিনি।

ড. যশোদা জীবন দেবনাথ তার জীবনের গল্প শোনাতে গিয়ে বলেন, ‘এমন একটা সময় ছিল আমার অনার্সে ভর্তির টাকা ছিল না, তখন রাস্তার পাশে বসে কান্না করছিলাম। পাশ দিয়ে এক চাচা, যিনি সাবেক মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের বাবা, সেই চাচা আমাকে ৫ হাজার টাকা দিয়েছিলেন অনার্সে ভর্তি হওয়ার জন্য। কিন্তু আমি থেমে থাকিনি। আজ আমি বেঙ্গল কমার্শিয়াল ব্যাংকের মালিক, অনেকগুলো প্রতিষ্ঠানের মালিক।’

তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল যুগে ফেসবুক বন্ধুরাই হতে পারে পরম বন্ধু, একে অপরের নানা উপকারে আসতে পারে। তাই আসুন, সবাই বিপদে বন্ধুদের সহযোগিতা করি। দেশের অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য কাজ করি সবাই মিলে।’

আলোচনা সভা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন অনুষ্ঠানে আগতরা।

এএস/এসআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]