গ্রামীণফোনের নেটওয়ার্ক নিয়ে সংসদীয় কমিটিতে ক্ষোভ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৩৬ পিএম, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৯

দেশের মোবাইল কোম্পানিগুলোর সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান গ্রামীণফোনের (জিপি) নেটওয়ার্ক ও কল ড্রপ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সংসদীয় কমিটি। দেশের অন্যান্য কোম্পানির চেয়ে গ্রামীণফোনের কল ড্রপ সবচেয়ে বেশি জানিয়ে যেসব এলাকায় এ সমস্যা বেশি সেখানে মন্ত্রণালয় থেকে টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করে তদন্তের দাবি জানানো হয়েছে।

তবে ভবিষ্যতে গ্রাহকের স্বার্থ রক্ষায় আরও বেশি কাজ করা হবে বলে বৈঠকে জানায় গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ।

সম্প্রতি সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির চতুর্থ বৈঠকে এ নিয়ে আলোচনা হয়। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক সদস্য জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

বৈঠকে কমিটির সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ (ঢাকা-১১) বলেন, গুলশান ও বনানী এলাকা থেকে তার গ্রামের বাড়ি মাত্র ৬ কিলোমিটার দূরে। সেখানে গ্রামীণফোনের নেটওয়ার্ক সবসময় পাওয়া যায় না। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়সহ গ্রামীণফোনের টেকনিক্যাল কমিটির সমন্বয়ে সমস্যার সমাধান করা সম্ভব বলে মনে করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, যেসব এলাকায় নেটওয়ার্ক, কলরেট ও কল ড্রপ সমস্যা হয় সেসব এলাকায় মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে টেকনিক্যাল কমিটি মনিটরিংসহ অন্যান্য বিষয় খতিয়ে দেখা উচিত।

কমিটির সদস্য ও প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) সার্ভিস প্রোভাইডের মাধ্যমে দেখা যায় গ্রামীণফোনের (জিপি) চেয়ে রবি, টেলিটক, বাংলালিংকের কল ড্রপের ঝামেলা কম। সবচেয়ে বেশি কল ড্রপ জিপিতে

তিনি বলেন, ফাইন্যান্সিয়াল অডিটের সঙ্গে টেকনোলজি অডিট সংযুক্ত করে শক্তিশালী যুগোপযুগী কমিটি গঠন করা যেতে পারে। সংসদ ভবন, গণভবন এরিয়াসহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকার নেটওয়ার্ক বিবেচনায় রেখে সংশ্লিষ্ট বিভাগকে সুদৃষ্টি রাখা উচিত।

জিপির ঘন ঘন কল ড্রপ, নেটওয়ার্ক ও কলরেট সম্পর্কে জানতে চাইলে গ্রামীণফোনের নির্বাহী পরিচালক হোসাইন সাহাদাৎ বিস্তারিত তুলে ধরে বলেন, নিজস্ব কিছু সমস্যা আছে। তবে বিটিআরসি ও গ্রামীণফোন সবসময় জনগণের স্বার্থ রক্ষায় কাজ করে। ভবিষ্যতে আরও বেশি আধুনিকতার স্পর্শে গ্রাহকের স্বার্থ রক্ষার কাজ করা হবে বলে জানান তিনি।

আলোচনা শেষে গ্রামীণফোনসহ জনগণের সেবার সব গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানের নেটওয়ার্ক যেন সব সময় থাকে সে সুপারিশ করে কমিটি। এছাড়া আগামী বৈঠকে গ্রাহকসেবা সংস্থার কলরেট, কল ড্রপ ও নেটওয়ার্ক-সংক্রান্ত পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট কমিটির বৈঠকে উপস্থাপনের সুপারিশ করা হয়।

কমিটির সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহর সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য ও প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, বেনজীর আহমদ, নূরুল আমিন, মনিরা সুলতানা, জাকিয়া পারভীন খানম ও অপরাজিতা হক অংশ নেন।

কমিটির বিশেষ আমন্ত্রণে ডাক, টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার সভায় উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া কমিটিকে সার্বিক সহায়তা প্রদানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এনএম জিয়াউল আলম, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস, গ্রামীণফোনের নির্বাহী পরিচালক হোসাইন সাহাদাৎ, ডাক বিভাগের মহাপরিচালক সুধাংশু শেখর ভদ্র, বিটিআরসি চেয়ারম্যান জহিরুল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এইচএস/এএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]