বিএনপিকে ধ্বংসাত্মক রাজনীতি ছাড়ার আহ্বান কৃষিমন্ত্রীর

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৫৯ পিএম, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বিএনপিকে ধ্বংসাত্মক রাজনীতি ছাড়ার আহ্বান জানিয়ে কৃষিমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, দেশকে আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় পরিচালিত করব, শাসন করব, আমরা বলেছিলাম বাংলাদেশ থেকে ক্ষুধা-দুর্ভিক্ষ দূর করব, জিনিসপত্রের দাম কমিয়ে নিয়ে আসব। আমরা সেটি করতে পেরেছি।

সোমবার জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি একথা বলেন।

এ সময় কৃষিমন্ত্রী সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নের তথ্য তুলে ধরে বলেন, যাদের পাকিস্তানের জন্য এখনও প্রাণ কাঁদে তাদের যদি মানুষের প্রতি সামান্য ভালোবাসা আর দেশপ্রেম থাকে তাহলে তারা ধ্বংসের রাজনীতি ছেড়ে সরলপথে আসবেন। সত্যিকারে সততা ও মূল্যবোধের ভিত্তিতে রাজনীতি করবেন।

তিনি বলেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার পরে পৃথিবীর অর্থনীতিবিদরা বিভিন্ন কথা বলেছিলেন। কিন্তু অত্যন্ত খুশির বিষয় আমাদের নেত্রী পৃথিবীকে হতাশ করে দেখিয়ে দিয়েছেন- বাংলাদেশে বিদেশি সাহায্যের ওপরে নির্ভরশীল না। আগে আমাদের বাজেটের ১৫-২০ ভাগ বিদেশি সাহায্য থেকে আসত, এটি আজকে দুই ভাগের নিচে নেমে এসেছে।আজকে বাংলাদেশের সব ক্ষেত্রে উন্নয়ন হয়েছে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশকে আমরা জানতাম চির খাদ্যঘাটতির দেশ। খাদ্যের জন্য সারা পৃথিবীতে ঘুরে বেড়াতাম ভিক্ষুকের জাতি হিসেবে, দুর্ভিক্ষের জাতি হিসেবে পরিচিত ছিল। কিন্তু এখন আমরা খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্ণ।

তিনি বলেন, যারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না, যারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চায় না- তাদের ঘাড়ে এখনও পাকিস্তানের ভূত চেপে আছে। এরা বাংলাদেশে অস্থিতিশীল করতে চায়। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে-ধ্বংস করতে চায়। আমরা দেখেছি ২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে বিএনপি-জামায়াত বাংলাদেশ কি করেছে। বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে। রেললাইন কেটে দিয়েছে। বিদ্যুতের লাইন কেটেছে। পুলিশের মাথা থেঁতলে দিয়েছে। পুলিশের গাড়ি পুড়িয়েছে। হরতাল-অবরোধ করেছে। মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। হরতাল-অবরোধের নামে বাংলার মাটিতে ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে। আমি তাদের বলতে চাই -বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে হলে শান্তি দরকার। মানুষের জীবনের নিরাপত্তা দরকার।

ড. কামাল হোসেনের নাম উল্লেখ না করে তিনি তাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, তিনি জীবনে নির্বাচন করতে পারেন নিই। দুইবার জিতেছিলেন। তাও বঙ্গবন্ধুর ছেড়ে দেয়া আসনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায়। তিনি বলেন কি না বর্তমান সরকার বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতার সরকার। তিনি বলেছেন এই সরকারের পতন ঘটাতে হবে এবং প্রয়োজনে সরকারকে এবং প্রধানমন্ত্রীকে সরিয়ে দিতে হবে। আমি ওনাকে বলতে চাই এটি রাজনীতির ভাষা নয়। এটা রাজনৈতিক শিষ্টাচারে পড়ে না।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, বেগম খালেদা জিয়া বলেছিলেন শেখ হাসিনা যতদিন না যাবে ততদিন আমি ঘরে ফিরে যাব না। তারপর হরতাল অবরোধ করেছে। মানুষকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। কিন্তু খালেদা জিয়া এখন দুর্নীতির মামলায় জেলে। আর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ চালাচ্ছেন।

তিনি বলেন, তারা সরকারের পতন ঘটাতে পারবেন না। সরকারের পতন ঘটাতে হলে জনগণকে নিয়ে যেতে হবে। আপনাদের পায়ের নিচে মাটি নেই। জনগণ আপনাদের সাথে নেই। মানুষ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন। গণতন্ত্রের মাধ্যমে, নির্বাচনের মাধ্যমে আপনাদের এই সরকারের পতন ঘটাতে হবে ।

এইচএস/জেএইচ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]