আষাঢ়ে বৃষ্টিতে হাতিরঝিলে শিশুদের ঝুঁকিপূর্ণ আনন্দ খেলা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:৩৬ এএম, ০৫ জুলাই ২০২০

দুপুর দেড়টা। মগবাজার থেকে গুলশান অভিমুখে হাতিরঝিলের রাস্তায় প্রাইভেটকার, মোটরসাইকেল ও সিএনজিচালিত অটোরিকশা ছুটে চলেছে। হঠাৎ করে নামল বৃষ্টি। মিনিট খানেকের মধ্যেই মোটরসাইকেল আরোহীরা ভিজে একাকার। তেজগাঁও লিংক রোডের একটি ওভারব্রিজের সামনে মোটরসাইকেল থামিয়ে কাকভেজা হওয়া থেকে নিজেদের রক্ষায় ব্যস্ত হয়ে পড়তে দেখা যায় সবাইকে।

Jheel-1

হঠাৎ হাতিরঝিলের পানির দিকে তাকাতেই দেখা যায়, আনুমানিক ৮-১০ বছর বয়সী সাত-আটজন শিশু ককশিটের ওপর চেপে সাঁতরে সামনে এগিয়ে যাচ্ছে। বৃষ্টি নামায় ওদের আনন্দের সীমা নেই। ঝিলের পানিতে কেউ ডুব দিচ্ছে কেউ সাঁতরে সামনে যাচ্ছে। আবার কেউবা উচ্চস্বরে তীরে অপেক্ষমান অন্যান্য শিশুদের দেখে পানিতে নামতে বলছে।

তাদের বেশ কয়েকজনকে সাঁতরে ঝিলের পানিতে স্থাপিত ইলেকট্রিক পোলের ওপর উঠতে দেখা যায়। এভাবে ওদের উঠতে দেখে বৃষ্টির জন্য সেখানে অপেক্ষমান অনেকে আঁতকে উঠেছিলেন। তারা বলাবলি করছিলেন, ইলেকট্রিক পোলে উঠে ওরা যেভাবে লাফালাফি করছে তাতে যেকোনো সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে প্রাণহানির ঘটনাও ঘটতে পারে।

Jheel

সেখানে উপস্থিত স্থানীয় কয়েকজন যুবক জানান, এ সকল শিশুদের বেশিরভাগই আশপাশের নিম্নআয়ের গার্মেন্টস কর্মী, দিনমজুর ও রিকশাচালকসহ শ্রমজীবী পরিবারের সন্তান। বৃষ্টি নামলে ওদেরকে ঝিলের পানিতে দেখা যায়। ককশিট দিয়ে নৌকা বানিয়ে ঝিলের পানিতে ভেসে বেড়ায়। এতে ওদের আনন্দ। মাঝে মাঝে পানিতে ডুবে মৃত্যুর ঘটনাও ঘটে বলে তারা জানান।

এমইউ/এসআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]