সুনামগঞ্জে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৪৮ পিএম, ২৯ জুলাই ২০২১

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নামে সুনামগঞ্জে ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ২৬৬ কোটি ১৭ লাখ টাকা ব্যয়ে পূর্ত কাজের অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দুপুরে অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে ভার্চুয়ালি ২০তম অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত এবং ২৫তম সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়, বৈঠক শেষে বিকালে অনলাইন ব্রিফিংয়ে অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তিনি জানান, অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত কমিটির অনুমোদনের জন্য তিনটি এবং ক্রয় সংক্রান্ত কমিটির অনুমোদনের জন্য সাতটি প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়েছে। ক্রয় সংক্রান্ত কমিটির প্রস্তাবনাগুলোর মধ্যে শিল্প মন্ত্রণালয়ের দুইটি, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের দুইটি, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের একটি, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের একটি এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি প্রস্তাবনা ছিল।

ক্রয় সংক্রান্ত কমিটির অনুমোদিত সাতটি প্রস্তাবে মোট অর্থের পরিমাণ ১ হাজার ৫৩৭ কোটি ১৯ লাখ ৫ হাজার ৮৮২ টাকা। মোট অর্থায়নের মধ্যে জিওবি হতে ব্যয় হবে ১ হাজার ৪১৩ কোটি ৬৩ লাখ ১৬ হাজার ৬২৭ টাকা এবং দেশীয় ব্যাংক হতে ঋণ ১২৩ কোটি ৫৫ লাখ ৭৯ হাজার ২৫৫ টাকা।

অর্থমন্ত্রী বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নামে সুনামগঞ্জে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল স্থাপিত হবে। হাসপাতালটি হবে ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট। এটির পূর্ত (প্যাকেজ নং ডাব্লিউডি-১) কাজের প্রস্তাব আমাদের কাছে এসেছে। গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধীন গণপূর্ত অধিদফতরের প্রস্তাবটি আমরা গ্রহণ করেছি এবং অনুমোদন দিয়েছি।

এম জামাল অ্যান্ড কোম্পানির কাছ থেকে ২৬৬ কোটি ১৭ লাখ ১৭ হাজার ৬২৮ টাকায় ক্রয়ের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এটা সুনামগঞ্জের জন্য একটি আইকোনিক প্রজেক্ট হবে বলে আমরা আশা করছি।

তিনি আরও জানান, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধীন গণপূর্ত অধিদফতর ‘ঢাকাস্থ উত্তরা ১৮নং সেক্টরে নিম্ন ও মধ্যম আয়ের জনসাধারণের জন্য অ্যাপার্টমেন্ট নির্মাণ’ প্রকল্পের প্যাকেজ নং-লট ১৮/এ/১৫ এর নির্মাণ কাজ যুক্তভাবে পিবিএল (PBL), জিকে বিল্ডার্স (GK Builders) এবং পাইল (PAEL) এর সঙ্গে ভেরিয়েশন বাবদ ২ কোটি ৭৯ লাখ ২১ হাজার ১ টাকা ব্যয় হ্রাস করে ১৬৪ কোটি ৪ লাখ ৫৮ হাজার ১৬২ টাকার সংশোধিত ক্রয় চুক্তি সম্পাদনের প্রস্তাব এসেছিল।

এটার প্রাক্কলিত ব্যয়ের চাইতে টাকা কম লেগেছিল, কিন্তু আমাদের এখানে কম্পোনেন্টের ডিটেইলস ছিল না বলে আমরা ফেরত দিয়েছি। এটা আমাদের কাছে আবার পুনরায় উপস্থাপন করা হবে।

আইএইচআর/এমএসএম/এমআরএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]