স্বাভাবিক পদ্ধতিতে সরকার ‘সরানো’ নিয়ে ফখরুলের সংশয়

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২৬ পিএম, ২২ নভেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ০৮:৩৪ পিএম, ২২ নভেম্বর ২০১৭
স্বাভাবিক পদ্ধতিতে সরকার ‘সরানো’ নিয়ে ফখরুলের সংশয়

‘স্বাভাবিক পদ্ধতি’তে ক্ষমতাসীন সরকারকে ‘সরানো’ যাবে না বলে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, স্বাভাবিক পদ্ধতিতে সরকারকে সরাতে পারবো বলে মনে হয় না।

‘সরকারকে বিদায় করতে আমাদের হাতিয়ার লাগবে। কারণ, এরা জনগণের অধিকার কেড়ে নিয়ে বন্দুক পিস্তল হাতে নিয়ে জোর করে ক্ষমতায় বসে আছে। তাই এদের সরাতে হলে এবং জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে রুখে দাঁড়াতে হবে। সবাইকে জেগে উঠতে হবে।’

রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে বুধবার সন্ধ্যায় এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, যে কোনো মূল্যে বর্তমান দখলদারী ক্ষমতাসীন সরকারকে বিদায় করে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। কেননা দেশের মানুষ এদের কাছ থেকে মুক্তি পেতে চায়, চায় পরিবর্তন। শুধু ভাই ভাই বলে স্লোগান না দিয়ে অঙ্গীকার করতে হবে। আমরা যদি খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী বানাতে পারি এবং জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে পারি তাহলেই তারেক রহমান নির্বাসিত জীবন থেকে দেশে আসবেন, অন্যথায় নয়।

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৩তম জন্মদিন উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে ছাত্রদল।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, সরকার দেশের প্রতিটি প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে দিচ্ছে। এরা বাংলাদেশকে একটি ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। মেগা প্রজেক্টের নামে মেগা লুট চালাচ্ছে। দেশের প্রধান বিচারপতিকে পর্যন্ত প্রথমে দেশ ছাড়তে, পরবর্তীতে পদত্যাগে বাধ্য করেছে। তাই এরা যদি রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকে তাহলে দেশের পতাকা থাকবে, কিন্তু স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব ও অস্তিত্ব থাকবে না।

তারেক রহমানকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি বলেন, তারেক রহমান তরুণদের নেতা, তিনি স্বপ্ন দেখিয়েছেন নতুন বাংলাদেশের, যেখানে থাকবে না গুম-খুন ও বিচারবর্হিভূত হত্যা। তাই সত্যিকার অর্থে দেশ ও জাতির স্বাধীনতা ও মানুষের মুক্তি,গণতন্ত্র পেতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে জেগে উঠতে হবে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি রাজীব আহসানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্যে দেন- সাবেক ছাত্র নেতা শামসুজ্জামান দুদু, আমান উল্লাহ আমান, খায়রুল কবির খোকন, ফজলুল হক মিলন, আজিজুল বারী হেলাল, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, কামরুজ্জামান রতন, সুলতান সালাহ উদ্দিন টুকু, আমিরুল ইসলাম আলীম, আব্দুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েল, ছাত্রদলের সিনিয়র সহ সভাপতি মামুনুর রশীদ, সহ সভাপতি এজমল হোসেন পাইলট, নাজমুল হাসান প্রমুখ।

আলোচনা সভা সঞ্চলনা করেন ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ।

এমএম/এনএফ/জেআইএম