পাকিস্তানিদের ভুয়া লটারির ফাঁদে প্রবাসীরা

সাদেক রিপন
সাদেক রিপন সাদেক রিপন , কুয়েত প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৫:৩১ পিএম, ২৮ মে ২০১৮

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ১ কোটিরও বেশি প্রবাসী বিভিন্ন পেশায় কর্মরত রয়েছে। পরিবারের স্বচ্ছলতা ফেরাতে রাত দিন কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছে এই প্রবাসীরা। এরই মধ্যে মোবাইলে আসে অনাকাঙ্খিত ফোন। বলা হয়, ভাই আমি এই মোবাইল কোম্পানিতে থেকে বলছি আপনি লটারিতে বিজয়ী হয়েছেন।

সৌদি আরব, কুয়েত, কাতার, আরব আমিরাতসহ অনেক দেশে এই রকম লটারি বিজয়ের নামে প্রতারণার ফাঁদ পেতে বসেন পাকিস্তানিরা। কুয়েতে অনেক প্রবাসী কাছে এই অনাকাঙ্খিত ফোন আসার কথা স্বীকার করেন প্রতারণার কাহিনী।

রবিউল হোসেন বলেন, তারা প্রথমে লটারিতে ২০ হাজার দিনার পাওয়ার কথা বলে একটা নম্বর দেয়, সেই নম্বরটা সিম কার্ডের পেছনের নম্বরে সঙ্গে মিল আছে কিনা দেখতে বলে সময় দেয় ২ মিনিট। এরপর যদি মিল আছে বলা হয় তাহলে তারা জানায় আপনি সেই সৌভাগ্যবান ব্যক্তি যে ২০ হাজার দিনার বিজয়ী। এই বিষয়ে আপনার পরিচিত বা আশপাশের কারো সঙ্গে শেয়ার করবেন না।

আপনার সিভিল আইডির নম্বরও বলুন, ছবি পাঠান শেয়ার করলে আপনার সিম, মোবাইল চুরি বা ক্ষতি হতে পারে তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব যেই ঠিকানা দিচিছ সেই ঠিকানায় যোগাযোগ করুন।

বলা হয় আল মোল্লা ব্যাংকসহ একাধিক ব্যাংকের নাম। আমরা আপনার সব ডকুমেন্ট প্রস্তুত করছি কিছু খরচ আছে ব্যাংকে যাওয়ার আগে আপনাকে যে কাজটা করতে হবে ৩৩.৫০০ দিনারে ওয়ান কার্ড নিতে হবে সেটার পেছনে আপনার নাম আর ঠিকানা লিখে আমাদের পাঠান। অনেকেই কিছু বুঝে উঠার আগে এই রকম ফাঁদে পড়ে পাঠিয়ে দেন কষ্টে অর্জিত সেই অর্থ রুমে ভাড়া, মেস খরচ, অন্যের কাছ থেকে ধার করে এবং পরে আপসোস করে।

প্রতারণার শিকার হয়েছেন রবিউল, আবুল কালাম, রতন দত্তসহ আরও অনেকে।

এসব প্রতারণার সঙ্গে পাকিস্তানিরা জড়িত বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীরা। ঝামেলার কারণে কেউ থানায় অভিযোগ করে না। এ ধরণে প্রতারণার ফোন প্রতিদিন কারো না কারো ফোনো আসে।

এমআরএম/জেআইএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :