মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ ওপেন হাউজডে

আহমাদুল কবির
আহমাদুল কবির আহমাদুল কবির , মালয়েশিয়া প্রতিনিধি মালয়েশিয়া
প্রকাশিত: ১১:৫২ এএম, ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

প্রবাসে দেশের ভাবমূর্তি বাড়াতে সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের হাইকমিশনার মুহ. শহীদুল ইসলাম।

শনিবার (৮ সেপ্টেম্বর) কুয়ালালামপুরের জালান ইউটান্টে হাইকমিশনারের বাসভবনে আয়োজিত বাংলাদেশ ওপেন হাউজডেতে এ আহ্বান জানান তিনি।

বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠান রাত সাড়ে ৯টায় শেষ হয়। এতে বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক, রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, সুশীল সমাজ ও প্রবাসীরা অংশ নেন।

মুহ. শহীদুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ এখন বিশ্বে সম্মানজনক স্থানে আসন করে নিয়েছে। এ সম্মানকে দৃঢ়তার সঙ্গে ধরে রাখতে আমাদের সব দ্বিধা-দ্বন্দ ভুলে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।

southeast

তিনি বলেন, ঈদের আনন্দ ভাগ করতে মূলত এ আয়োজন। দেরিতে হলেও প্রবাসীদের অনেককে একসঙ্গে পেয়ে খুবই ভালো লাগছে। প্রবাসীদের নিয়েই আমার কাজ। দূতাবাস সবসময় প্রবাসীদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। আপনাদের সহযোগিতা ছাড়া কোনো কাজ করা সম্ভব নয়।

তিনি আরও বলেন, সারাবিশ্বে পরিশ্রমী জাতি হিসেবে বাংলাদেশিদের বিশেষ মর্যাদা রয়েছে। তারা যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সে বিষয়টি লক্ষ্য রাখার দায়িত্ব যেমন সরকারের, তেমনি অন্য সবারও।

হাইকমিশনার বলেন, বাংলাদেশিরা মালয়েশিয়ায় কর্মরত অন্যান্য দেশের নাগরিকদের তুলনায় এ দেশের আইন কানুন, নিয়ম, শৃঙ্খলা মেনে চলার ব্যাপারে আলাদা অবস্থান তৈরি করেছে। এটি মালয়েশিয়ার সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে সরকার সবাই বিশ্বাস করে।

southeast

এ সময় আগত অতিথিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় এবং সবার খোঁজ খবর নেন হাইকমিশনার ও তার সহধর্মিনী শাহনাজ ইসলাম। প্রবাসীরাও নিজেদের সুখ-দুঃখের কথা রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে ভাগাভাগি করেন।
অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বাঙালি খাবার দিয়ে অতিথিদের আপ্যায়ন করান হাইকমিশনার।

ওপেন হাউজডেতে ডেপুটি হাইকমিশনার ওয়াহিদা আহমেদ, মিনিষ্টার পলিটিক্যাল মো. রইছ হাসান সারোয়ার, কাউন্সিলর শ্রম মো. সায়েদুল ইসলাম, ডিফেন্স উইং এয়ার কমডোর হুমায়ূন কবির, ফার্স্ট সেক্রেটারি মাসুদ হোসেইন, ফার্স্ট সেক্রেটারি (শ্রম) মো. হেদায়েতুল ইসলাম মন্ডল, কমার্শিয়াল উইং প্রধান মো. রাজিবুল আহসান, পাসপোর্ট ও ভিসা শাখার প্রথম সচিব মো. মশিউর রহমান তালুকদার, প্রথম সচিব তাহমিনা ইয়াসমিন, ২য় সচিব শ্রম মো. ফরিদ আহমদসহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন কমিউনিটি সংগঠন এবং দূতাবাসের সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ আড়াই শতাধিক প্রবাসী উপস্থিত ছিলেন।

এমএমজেড/এমএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :