প্রবাসে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান ফোবানা চেয়ারম্যানের

প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:০৫ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সংগঠন ‘ফেডারেশন অব বাংলাদেশি অ্যাসোসিয়েশন ইন নর্থ আমেরিকার’ (ফোবানা) ছায়াতলে প্রবাসের সকল সংগঠনকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন সংগঠনের এক্সিকিউটিভ কমিটির নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মীর এইচ চৌধুরী। শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ার স্প্রিংফিল্ড শহরের হলিডেইন এক্সপ্রেস হোটেলে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই আহ্বান জানান।

সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রথম ফোবানা সম্মেলনের সদস্য সচিব ও ওয়াশিংটনে প্রবাসীদের অত্যন্ত পরিচিত মুখ ভয়েস অব আমেরিকা বাংলা বিভাগের সাবেক সাংবাদিক ওয়াহিদ হোসাইনী এবং সভা পরিচালনা করেন লেখক সাংবাদিক শিব্বীর আহমেদ।

আমেরিকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটি ও আমেরিকা বাংলাদেশ বিজনেস অ্যাসোসিয়েশনের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এই মতবিনিময় সভার সহযোগিতায় ছিল বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব আমেরিকা ইনক (বাই), বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব গ্রেটার ওয়াশিংটন ডিসি ইনক (বাগডিসি) ও বাংলাদেশ আমেরিকা ফ্রেন্ডশিপ ফাউন্ডেশন (বাফি)।

মতবিনিময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ফোবানার নবনির্বাচিত এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি জাকারিয়া চৌধুরী, এক্সিকিউটিভ সদস্য ও প্রাক্তন চেয়ারম্যান বেদারুল ইসলাম বাবলা, ফোবানা-২০১৯ এর কনভেনার নার্গিস আহমেদ, সদস্য সচিব আবীর আলমগীর, বাই-এর প্রাক্তন সভাপতি ইনারা ইসলাম, বাগডিসির প্রাক্তন সভাপতি হাজী করিম সালাউদ্দীন, ফোবানা-২০১৬ এর কনভেনার ও বাগডিসির প্রাক্তন সভাপতি এটিএম আলম, ফ্রেন্ডস অ্যান্ড ফ্যামিলির পরিচালক আকতার হোসাইন ও আয়োজক সংগঠনের সভাপতি জিআই রাসেল প্রমুখ।

fobana7.jpg

এছাড়াও মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন বাই সভাপতি সাংবাদিক শফি দেলওয়ার কাজল, পারভিন পাটোয়ারী, মনির হোসাইন, সাংবাদিক হারুন চৌধুরী, ডাটা গ্রুপের সিইও জাকির হোসাইন, জুয়েল বড়ুয়া, মজিবুর রহমান খান প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ফোবানার চেয়ারম্যান মীর এইচ চৌধুরী বলেন, ১৯৮৭ সালে এই ফোবানা ওয়াশিংটন থেকে তার যাত্রা শুরু করে। ১৯৮৭ সালের সেই ছোট্ট ফোবানা আজ ৩৩ বছরের এক তরতাজা যুবকে পরিণত হয়েছে। আর এর সকল কৃতিত্বের দাবিদার আপনারা।

তিনি বলেন, এই ফোবানা ওয়াশিংটনের মাটিতে শুরু হয়েছে, ওয়াশিংটনের মাটিতেই এর রেজিস্ট্রেশন এবং ট্রেডমার্ক সম্পন্ন করা হয়েছে। বৈধভাবে এই ফোবানা উত্তর আমেরিকায় তার কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে আসছে এবং সাংগঠনিক নিয়মের মধ্যদিয়ে আজ ফোবানা এই পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে।

মীর চৌধুরী বলেন, ফোবানার রেজিস্ট্রেশন ট্রেডমার্ক বাংলাদেশেও সম্পন্ন করা হয়েছে যাতে ফোবানা নিয়ে আর কেউ বাংলাদেশেও কিছু করতে না পারে।

fobana7.jpg

তিনি ফোবানার যেকোনো সমস্যা নিয়ে খোলামেলা আলোচনা করে সমাধান করার জন্য সকলের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।

মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ফোবানা সম্মেলন-২০১৯ এর কনভেনার নার্গিস আহমেদ আসন্ন ফোবানা সম্মেলন সফল করার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন এবং নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিতব্য ফোবানা সম্মেলনে অংশগ্রহণ করার জন্য সবাইকে আমন্ত্রন জানান।

ফোবানা সম্মেলন-২০১৯ এর সদস্য সচিব আবীর আলমগীর তার বক্তব্যে ফোবানা সম্মেলন-২০১৯ এর বিস্তারিত কর্মযজ্ঞ তুলে ধরেন। তিনি বলেন, এই প্রথমবারের মতো ফোবানা সম্মেলন নিউইয়র্কের লংআইন্ডের নাসাউ কলোসিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশিরা ইতিপূর্বে এই নাসাউ কলোসিয়ামে অনুষ্ঠান করতে পারেনি। এই নাসাউ কলোসিয়ামে শুধুমাত্র ভারত-পাকিস্তানের অনুষ্ঠানসহ মূলধারার অনুষ্ঠান হয়ে থাকে। কিন্তু এই প্রথমবারের মতো ড্রামা সার্কেল নাসাউ কলোসিয়ামে ৩৩তম ফোবানা সম্মেলন আয়োজন করছে।

মতবিনিময় সভা শেষে ফোবানা সম্মেলনের প্রথম সদস্য সচিব ও মতবিনিময় সভার সভাপতি ওয়াহেদ হোসেইনী প্রথম ফোবানা সম্মেলনসহ পরবর্তী সাতটি সম্মেলনের যাবতীয় দলিলপত্র ফোবানার নবনির্বাচিত কর্মকর্তাদের হস্তান্তর করেন।

বিএ/এমএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - jagofeature@gmail.com