আবুধাবি বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতীয় শোক দিবস পালন

মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন
মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন , আমিরাত প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৬:১৭ পিএম, ১৫ আগস্ট ২০১৯

সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবিতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়েছে। এদিন জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য প্রদান করা হয়।

এরপর আলোচনার সভার আয়োজন করা হয়। শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন দূতাবাস কর্মকর্তা মুহাম্মদ রেজাউল আলম। রাষ্ট্রদূত মুহাম্মদ ইমরান এর সভাপতিত্বে ও প্রথম সচিব রেয়াজুল হকের পরিচালনায় সভায় রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শুনান যথাক্রমে লেবার কাউন্সিলর মুহাম্মদ আবদুল আলিম মিয়া, প্রথম সচিব মুহাম্মদ রেয়াজুল হক ও প্রথম সচিব মুহাম্মদ জুবায়েদ হোসেন।

বাণী শেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনী নিয়ে বিশেষ প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

এরপর আলোচনা সভায় অংশ নেন বাংলাদেশ সমিতি ইউএই'র সভাপতি প্রকৌশলী মোয়াজ্জেম হোসেন, শেখ যায়েদ ইউনিভার্সিটির প্রফেসর হাবীবুল হক খন্দকার, জনতা ব্যাংক ইউএই'র সিইও মুহাম্মদ আমিরুল হাসান, ইমরাদ হোসেন ইমু, নাছির তালুকদার, আশিস কুমার বড়ুয়া, উত্তম হাওলাদার, বশির ভূইয়া, গোলাম কাদের ইফতি, মুহাম্মদ রফিকুল আলম, মুহাম্মদ জাকের হোসেন জসিম, আইয়ুব খান-সহ আমিরাতের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতারা।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ মোরশেদ আলম, সাংবাদিক মুহাম্মদ আবদুল মন্নান, সাংবাদিক সনজিদ কুমার শীল ও সাংবাদিক নিমাই সরকার।

এসময় রাষ্ট্রদূত বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণের পথে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধুর সব স্বপ্ন এক এক করে বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, বর্তমান প্রবৃদ্ধির হার ৮.১৩ যেটি অনেক দেশের জন্য স্বপ্ন এবং দেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসাবে এগিয়ে যাচ্ছে। আর দেশ এগিয়ে যাওয়ার মূল হাতিয়ার হলো প্রবাসী বাংলাদেশিরা। তাই প্রবাসী বাংলাদেশিদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান রাষ্ট্রদূত ও প্রবাসী নেতারা।

সবশেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন রেজাউল আলম।

এসএইচএস/এমকেএইচ

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]

আপনার মতামত লিখুন :