পুরো শরীরে অজ্ঞাত রোগ মাসুমের

প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৩৫ পিএম, ০৩ জুন ২০২০

সৌদি আরবের রিয়াদ প্রবাসী মাসুম বিল্লাল ছয়মাস ধরে অজ্ঞাত এক রোগে আক্রান্ত ৷ অসুস্থ হওয়ার পর থেকে তিনি বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিলেও এখন পর্যন্ত কোনো ডাক্তার এই রোগের নাম চিহ্নিত করতে পারেনি। তবে সব ডাক্তারই ঔষধ দিচ্ছেন । ঔষধ খাওয়ার পরেও গত ছয়মাসে তার শারীরিক অবস্থার কোনো পরিবর্তন হয়নি। বরং দিন দিন বেড়েই চলছে তার অসুস্থতা।

সোশ্যাল এক্টিভিস্ট প্রবাসী আব্দুল হালিম নিহন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার অসুস্থতার বিষয়টি জেনে দেখতে যান তাকে। তিনি জানান, মাসুম বিল্লালের বর্তমান পরিস্থিতি খুবই খারাপ। তার শরীরের এমন কোনো অংশ বাকি নেই যেখানে এই রোগ ছড়ায়নি । এমনকি মুখের ভেতর পর্যন্ত এ রোগ ছড়িয়েছে । যার ফলে মাসুম ঠিকভাবে খেতেও পারেন না । এই রোগের কারণে মাসুম বিল্লাল না বসতে পারেন, না ঘুমাতে । তিনি ঠিকভাবে কথাও বলতে পারছেন না ।

নিহন জানান, মাসুম বিল্লালের বর্তমান মানবেতর জীবন দেখলে যে কারো চোখের অশ্রু চলে আসবে । মাসুম বিল্লালের এই অজানা রোগের চিকিৎসা করাতে অনেক অর্থের প্রয়োজন । এতদিন চিকিৎসা করিয়ে প্রবাসে যে টাকা রোজগার বরেছেন তা ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। তাই মাসুমের চিকিৎসায় এগিয়ে আসার জন্য তিনি প্রবাসসহ দেশি হৃদয়বান ব্যক্তিদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।

এদিকে মাসুম বিল্লালের দেশে যাওয়া খুব জরুরি বলে মনে করছেন ডাক্তাররা । ডাক্তাররা বলছেন, দেশে গিয়ে এর চিকিৎসা করালে সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ।

নিহন জানান, মাসুম বিল্লালের মেডিকেল রিপোর্ট নিয়ে রিয়াদ দূতাবাসের লেবার কাউন্সিলর মেহেদি হাসানের সঙ্গে দেখা করলে তিনি আশ্বস্ত করে বলেন, পরস্থিতি আরেকটু স্বাভাবিক হলে বিমান চলাচল শুরু হবে । বিমান চলাচল স্বাভাবিক হলেই অসুস্থ প্রবাসী যারা আছেন এবং যাদের দেশে যাওয়া খুব জরুরি তাদের দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করবেন রিয়াদ দূতাবাসের লেবার উইং ।

তিনি আরও বলেন, বিমান চলাচন স্বাভাবিক হতে সময়ের প্রয়োজন হলে, তারা চেষ্টা করবেন এদের জন্য বিশেষ কোনো ফ্লাইট চালু করা যায় কিনা ।

অন্যদিকে আব্দুল হালিম নিহন তার এক লাইভে সকল প্রবাসীদের মাসুম বিল্লালের চিকিৎসায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন । আহ্বান জানিয়েছেন একজন রেমিটেন্স যোদ্ধার জীবন বাঁচানোর ।

এমএফ/জেআইএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]